রাত ১:১৪, সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং

এক নজরে

গত দুই বছর ধরেই দারুণ ক্রিকেট খেলছে বাংলাদেশ। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির পাশাপাশি টেস্ট ক্রিকেটেও এগিয়েছে টাইগাররা। তবে সীমিত ওভারের ম্যাচে বোলিং যেমন শক্তিশালী তেমনটা নয় টেস্ট ক্রিকেটে। এখনও কোন বিশেষজ্ঞ টেস্ট বোলার খুঁজে পায়নি বাংলাদেশ। তারপরও মোস্তাফিজ, মিরাজ ও সাকিবের কম্বিনেশনে নিজেদের বোলিং ইউনিটকেই শক্তিশালী বললেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম।

শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার আগে রোববার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শেষ দিনের মত অনুশীলন করে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। অনুশীলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেন, ‘টেস্টে ব্যাটিং ইউনিটে আমরা যতোটা উন্নতি করেছি, ততোটা কিন্তু বোলিংয়ে হয়নি। এটার একটা কারণ হলো, তারা বেশ অনভিজ্ঞ। আমি মনে করি, মোস্তাফিজ-তাসকিন-রুবেল-শুভাশিস-মিরাজ-সাকিব; এরা সবাই যদি পারফর্ম করে তাবে ওদের ২০টি উইকেট নেয়া অবশ্যই সম্ভব। আমরা এবার বেশ শক্তিশালী বোলিং ইউনিট নিয়েই শ্রীলঙ্কা যাচ্ছি।’

তবে আগের টেস্টগুলোতে বোলিং ইউনিট কার্যকরী না হওয়ার পেছনে ফিল্ডারের দায় রয়েছে বলে মনে করেন মুশফিক। নিউজিল্যান্ড ও ভারত সফরে একের পর এক ক্যাচ, স্ট্যাম্পিং ও রানআউট মিসের খেসারত দিয়ে হারতে হয়েছে টাইগারদের। মুশফিকের ভাষায়, ‘আমাদের বোলাররা এখন যতো খেলবে, ততোই পরিণত হয়ে উঠবে। তবে তাদের প্রত্যাশিত সফলতা না পাওয়ার পিছনে আমাদের ফিল্ডারদেরও দায় আছে।’

আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য দলে রয়েছেন দুই জন বিশেষজ্ঞ স্পিনার ও পাঁচ জন পেসার। এদের মধ্যে বলার মত অভিজ্ঞ বলতে গেলে ২৪ টেস্ট খেলা রুবেল হোসেনই। আর তাইজুল ইসলাম খেলেছেন ১২ টেস্ট। এর বাইরে ৪৭ টেস্টে খেলা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান রয়েছেন। আর বাকি সবার অভিজ্ঞতা ৩/-৪ টেস্টের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।

যদিও মোস্তাফিজ দলে ফেরায় দারুণ খুশি মুশফিক। সাকিব-মিরাজের সঙ্গে মোস্তাফিজের জুটি প্রতিপক্ষের জন্য চাপের কারণ হবে বলে মনে করেন তিনি, ‘একটা কথা বলবো যে, সাকিব-মোস্তাফিজ-মিরাজ; এ রকম তিনজন আলাদা আলাদাভাবে স্কিলফুল বোলার যখন একটা দলের হয়ে বোলিং করবে, তখন প্রতিপক্ষের জন্য সেটা চাপেরই হবে। এটা আমাদের দলের জন্য দারুণ একটি ব্যাপার।’

গল টেস্টের স্মৃতিই অনুপ্রেরণা, তবে…

মুশফিক-আশরাফুলের অতিমানবীয় ব্যাটিংয়ে ২০১৩ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে গল টেস্টে ড্র করতে পেরেছিল বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত লঙ্কানদের মাটিতে এটাই বাংলাদেশের সেরা সাফল্য। সেই সুখস্মৃতির কথা ভুলে যাননি বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। ওই টেস্টে ফ্ল্যাট উইকেট বানিয়েছিল লঙ্কানরা। তবে এবার সেখানে ভিন্ন উইকেট হতে পারে ধারণা করছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক।

গল টেস্টের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে মুশফিক বলেন, ‘সেটা অবশ্যই দারুণ স্মৃতি ছিল। তবে আমাদের কিন্তু সব কিছু নতুন করে শুরু করতে হবে। অন্য দলের বিপক্ষে সাধারণত গলের উইকেট স্পিনিং ট্র্যাক হয়। সর্বশেষ আমরা যখন সেখানে খেলেছি, তখন ব্যাটিং উইকেট ছিলো। এ কারণে ফলাফল ভালো হয়েছে। তবে আমাদের অনেক কষ্ট করে খেলতে হয়েছে। কারণ তারাও স্কোরবোর্ডে বড় রান তুলেছিলো।’

তবে এবার শ্রীলঙ্কার উইকেট ভিন্ন ধরণের হতে পারে বলেই ধারণা মুশফিকের। কারণ গত কয়েক বছরে দারুণ বদলে গেছে বাংলাদেশ দল। কদিন আগেই ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের মত শক্তিশালী দলকে হারিয়েছে টাইগাররা। এরপর নিউজিল্যান্ড ও ভারত সফরেও দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে মুশফিকবাহিনী।

‘উইকেট তো অবশ্যই প্রভাব ফেলে। এটা একটা বড় ব্যাপার। তবে যে কোনো উইকেটে আমরা খেলার জন্য প্রস্তুত। উইকেট থেকে আমরা যেমন সুবিধা পাবো, সেটা তারাও পাবে। আমার মনে হয়, যে উইকেটেই খেলা হোক না কেনো, আমাদের দলে ভারসাম্য আছে। বৈচিত্র আছে। আমরা চেষ্টা করবো ফলাফল আমাদের পক্ষে আনার।’

উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পুর্নাঙ্গ সিরিজ খেলতে আগামী সোমবার রওনা হবে বাংলাদেশ। সেখানে তিনটি ওয়ানডে, দুটি টি-টোয়েন্টি ও দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে টাইগাররা।

ক্রিকেট

‘অনভিজ্ঞ হলেও বাংলাদেশের বোলিং ইউনিটই শক্তিশালী’

গত দুই বছর ধরেই দারুণ ক্রিকেট খেলছে বাংলাদেশ। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির পাশাপাশি টেস্ট ক্রিকেটেও এগিয়েছে টাইগাররা। তবে সীমিত ওভারের ম্যাচে বোলিং যেমন শক্তিশালী তেমনটা নয় টেস্ট ক্রিকেটে। এখনও কোন বিশেষজ্ঞ টেস্ট বোলার খুঁজে পায়নি বাংলাদেশ। তারপরও মোস্তাফিজ, মিরাজ ও সাকিবের কম্বিনেশনে নিজেদের বোলিং ইউনিটকেই শক্তিশালী বললেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম।

শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার আগে রোববার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে শেষ দিনের মত অনুশীলন করে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। অনুশীলন শেষে সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেন, ‘টেস্টে ব্যাটিং ইউনিটে আমরা যতোটা উন্নতি করেছি, ততোটা কিন্তু বোলিংয়ে হয়নি। এটার একটা কারণ হলো, তারা বেশ অনভিজ্ঞ। আমি মনে করি, মোস্তাফিজ-তাসকিন-রুবেল-শুভাশিস-মিরাজ-সাকিব; এরা সবাই যদি পারফর্ম করে তাবে ওদের ২০টি উইকেট নেয়া অবশ্যই সম্ভব। আমরা এবার বেশ শক্তিশালী বোলিং ইউনিট নিয়েই শ্রীলঙ্কা যাচ্ছি।’

তবে আগের টেস্টগুলোতে বোলিং ইউনিট কার্যকরী না হওয়ার পেছনে ফিল্ডারের দায় রয়েছে বলে মনে করেন মুশফিক। নিউজিল্যান্ড ও ভারত সফরে একের পর এক ক্যাচ, স্ট্যাম্পিং ও রানআউট মিসের খেসারত দিয়ে হারতে হয়েছে টাইগারদের। মুশফিকের ভাষায়, ‘আমাদের বোলাররা এখন যতো খেলবে, ততোই পরিণত হয়ে উঠবে। তবে তাদের প্রত্যাশিত সফলতা না পাওয়ার পিছনে আমাদের ফিল্ডারদেরও দায় আছে।’

আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য দলে রয়েছেন দুই জন বিশেষজ্ঞ স্পিনার ও পাঁচ জন পেসার। এদের মধ্যে বলার মত অভিজ্ঞ বলতে গেলে ২৪ টেস্ট খেলা রুবেল হোসেনই। আর তাইজুল ইসলাম খেলেছেন ১২ টেস্ট। এর বাইরে ৪৭ টেস্টে খেলা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান রয়েছেন। আর বাকি সবার অভিজ্ঞতা ৩/-৪ টেস্টের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।

যদিও মোস্তাফিজ দলে ফেরায় দারুণ খুশি মুশফিক। সাকিব-মিরাজের সঙ্গে মোস্তাফিজের জুটি প্রতিপক্ষের জন্য চাপের কারণ হবে বলে মনে করেন তিনি, ‘একটা কথা বলবো যে, সাকিব-মোস্তাফিজ-মিরাজ; এ রকম তিনজন আলাদা আলাদাভাবে স্কিলফুল বোলার যখন একটা দলের হয়ে বোলিং করবে, তখন প্রতিপক্ষের জন্য সেটা চাপেরই হবে। এটা আমাদের দলের জন্য দারুণ একটি ব্যাপার।’

ফুটবল

নেইমারের জন্য বিশ্বরেকর্ড গড়তে চান মরিনহো

ফুটবলে ট্রান্সফার ফির ইতিহাসে সবচেয়ে দামি ফুটবলার কে? উত্তর- পল পগবা। ১১ কোটি ইউরোর (৮৯.৩ মিলিয়ন পাউন্ড) বিনিময়ে জুভেন্টাস থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে পাড়ি জমান ফরাসি এই মিডফিল্ডার। তবে নেইমারের জন্য নিজেদের দখলে থাকা এই বিশ্বরেকর্ড ভাঙতে চান ম্যানইউ কোচ হোসে মরিনহো।

ইতোমধ্যে ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টারের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করে দিয়েছেন মরিনহো। ইংলিশ মিডিয়ার খবর এমনই। তবে পর্তুগিজ কোচের জন্য কাজটি কি সহজ হবে? কেননা ২০২১ সাল পর্যন্ত নেইমারের সঙ্গে চুক্তি রয়েছে বার্সেলোনার।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট জানিয়েছে, নেইমারকে দলে টানতে তার বাই-আউট ক্লজ হিসেবে ১৮০ মিলিয়ন পাউন্ড খরচ করতে হবে ম্যানইউকে। যদি আরও এক বছর সময় নেয়, অর্থাৎ আগামী মৌসুমে তাকে পেতে হলে খরচ বেড়ে দাঁড়াবে ২০০ মিলিয়ন পাউন্ডে।

এর পরের বছর হলে ট্রান্সফার-ফি দাঁড়াবে ২২৫ মিলিয়ন পাউন্ড। এভাবে ২০২১ পর্যন্ত জ্যামিতিক হারে নেইমারের ট্রান্সফার-ফি বাড়তে থাকবে।

ফেইসবুক

গলফ
দাবা
লন-টেনিস
হকি
হ্যান্ডবল
আর্ন্তজাতিক
সাক্ষাৎকার
সাঁতার
এ্যাথলেটিকস্