রাত ২:১০, রবিবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং

এক নজরে

ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ঘুরপাক খাচ্ছে তিনজনকে ঘিরেই। এবারও সেরা হওয়ার লড়াইটা হবে রিয়াল মাদ্রিদের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, বার্সেলোনার লিওনেল মেসি আর পিএসজি-র নেইমারের মধ্যে। শুক্রবার এই তিন জনকে নিয়ে সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করেছে ফিফা।

বর্ষসেরা পুরস্কারের জন্য গত মাসে ২৪ জনের তালিকা প্রকাশ করেছিল ফিফা। সেই তালিকা ছোট করে তিন জনে নামিয়ে আনলো বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এ যেনো ২০১৫ সালের প্রতিচ্ছবি। সে বছরও এই পুরস্কারের জন্য লড়াই করেন মেসি, রোনালদো ও নেইমার।

গত ২০ নভেম্বর থেকে এ বছরের ২ জুলাই পর্যন্ত খেলোয়াড়দের যোগ্যতা ও অর্জন বিবেচনা করে পুরস্কারটি দেয়া হবে।

ক্লাবের হয়ে গত মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও লা লিগা জয়ে দ্যুতি ছড়িয়েছেন, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে নকআউট পর্বে ৫০ গোলের মাইলফলকও স্পর্শ করেন তিনি। সেই সঙ্গে নকআউট পর্বে টানা দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গড়েন পর্তুগিজ এই মহাতারকা।

ইউরোপ সেরা এই প্রতিযোগিতার ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এ মৌসুমে ১০০ গোলের রেকর্ডও গড়েন রোনালদো। ফাইনালে দুটিসহ এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সর্বোচ্চ ১২বার বল জালে জড়ান তিনি।

তবে রোনালদোর চেয়ে দলগত সফলতা কম হলেও ব্যক্তিগতভাবে গত মৌসুম দারুণ কাটে আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার তারকা লিওনেল মেসির। ক্লাব ফুটবল ক্যারিয়ারে ৫০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। কাতালান ক্লাবটির সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনিই। তাছাড়া বার্সা এখনো জয়ের ধারায় রয়েছে মেসির কল্যাণেই।

এদিকে, মেসি-রোনালদোর মতো নেইমারের প্রাপ্তি খুব একটা বেশি না হলেও বার্সেলোনার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তার পারফরম্যান্স ছিল চমৎকার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে পিএসজির কাছে ৪-০ গোলে পরাজয়ের পর, ফিরতি পর্বে কাতালানদের ৬-১ গোলের রোমাঞ্চকর জয়ের নায়ক ছিলেন তিনিই।
জাতীয় দলের কোচ, অধিনায়ক ও ফিফার সদস্য দেশের একজন করে সাংবাদিকের ভোটে ২৩ অক্টোবর লন্ডনে ঘোষণা করা হবে এবারের বর্ষসেরা ফুটবলারের নাম।

এদিকে, গত নয় বছরে বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার মেসি ও রোনালদো ছাড়া আর কেউ জিততে পারেন নি। এবারও তার অন্যথা হবে বলে মনে হয় না। এর আগে, বার্সেলোনা তারকা পাঁচবার ও রিয়াল মাদ্রিদের ফরোয়ার্ড চারবার জিতেছেন এই পুরস্কার।

ভিন্ন কন্ডিশনে মানিয়ে নে‌ওয়ার অভিযান কাল শুরু মুশফিকদের

ভিন্ন কন্ডিশনে নিজেদের মানিয়ে নিতে সিরিজের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ বেশ গুরুত্বপূর্ন বলে মনে করেন বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। প্রস্তুতি ম্যাচের আগে নিজেদের অনুশীলন শেষে একথা বলেন তিনি। বেনোনিতে দক্ষিণ আফ্রিকা আমন্ত্রিত একাদশের বিপক্ষে আগামীকাল বাংলাদেশ সময় দুপুর দু’টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড কিংবা শ্রীলঙ্কার মতো টেস্ট খেলুড়ে ঐতিহ্যবাহী দলগুলোর সঙ্গে জেতা হলেও, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এখনও জয়হীন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ঘরের মাটিতে সমীহ জাগানো প্রতিপক্ষ হয়ে উঠলেও বিদেশে এখনও সেভাবে নিজেদেরকে প্রমান করতে পারে নি টাইগাররা। এবার সেটা প্রমানের পালা। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম বেনোনিতে অনুশিলন শেষে তেমনটাই জানালেন। বললেন, ‘বেশ কিছুদিন যাবত ঘরের মাঠে আমরা বেশ ভালো করছি। সুতরাং সেই অভিজ্ঞতা আমরা বিদেশের মাটিতেও কাজে লাগাতে চাই। অন্তত নিজেদের ভালো খেলার ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্যও সেটা আমাদেরকে করতে হবে।’
মুশফিক আরো জানান, ‘দেশের মতো বিদেশেও আমাদের ভালো খেলার সার্মথ আছে। সেই সার্মথের পরিচয় দিতে পারলেও কেবল বড় দল হয়ে ওঠার পথে এগিয়ে যেতে পারবে বাংলাদেশ। আমাদের লক্ষ্য সেটাই।’

ঘরের মাটিতে টেস্ট ক্রিকেটেও প্রতিপক্ষের জন্য আতঙ্কে পরিনত হয়েছে বাংলাদেশ। গত বছর ইংল্যান্ডকে এক সেশনেই উড়িয়ে দিয়ে নিজেদের সামর্থের জানান দিয়েছিলো মুশফিক বাহিনী। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়াও দেখেছে টাইগারদের গর্জে ওঠা। ঢাকা টেস্টে পিছিয়ে পড়েও একদিন বাকি থাকতেই হারায় অজিদের।
তবে ক্রিকেটের পরাশক্তি হয়ে উঠতে হলে দাপটের ধারাবাহিকতা রাখতে হবে বিদেশের মাটিতেও। ভিন্ন কন্ডিশনে নিজেদের মানিয়ে নিয়ে স্বাগতিক দলকে আতঙ্কে ডোবাতে পারলেই শক্তিশালী দল হয়ে উঠবে টাইগাররা। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে এবার তেমন কিছুই করে দেখাতে চায় মুশফিকবাহিনী। তাই একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচটি বেশ গুরুত্বের সাথেই দেখছেন টেস্ট অধিনায়ক।

এমনিতেই ভিন্ন কন্ডিশনে খেলা। তার ওপর বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান দলে না থাকায় এবার বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জটা আরও কঠিন। কঠিনকে জয় করতে পারলেই বড় দল হয়ে উঠবে টাইগাররা। তাই এই সিরিজে নতুনদের সাথে নিয়ে দলগত পারফরমেন্স উপহার দিতে চান বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক। মুশফিকুর রহিম বলেন, ‘পুরো শক্তি নিয়ে আমরা দক্ষিণ আফ্রিকায় আসতে পারি নি। তবে নতুন পুরণোদের নিয়ে বাংলাদেশ এখন বেশ ব্যালান্সড দল। কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারলে ভালো ফল পা‌ওয়া সম্ভব।’

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এখন পর্যন্ত খেলা ১০ টেস্টে এখন পর্যন্ত জয়ের স্বাদ পায়নি বাংলদেশ। দুটি টেস্ট ড্র করেছে, তা‌ও আবার বৃষ্টির আশীর্বাদে। তবে এবার জয়ের সেই সুমধুর স্বাদ পেতে প্রত্যয়ী টাইগাররা।

ক্রিকেট

মিরপুরের আউটফিল্ডের ব্যাখ্যা দিয়েছে বিসিবি

২০০৬ সালে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাওয়ার পর থেকে সবসময় প্রশংসিত হয়ে এসেছে মিরপুর স্টেডিয়াম। কিন্তু সেই ভাবমূর্তি রক্ষা করা গেল না, সদ্য শেষ হওয়া সিরিজে। প্রশ্ন উঠেছে বিসিবির কিউরেটর থেকে শুরু করে পুরো গ্রাউন্ডস কমিটির অদূরদর্শিতা নিয়ে। বিসিবির সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী অবশ্য কাউকে দোষারোপ করতে চান না। তিনি জানান, ‘স্বীকৃতি পাওয়ার পর শের-ই-বাংলা নিয়ে কোনো অভিযোগ কখনও পাইনি। এই মাঠে আইসিসির কয়েকটি বড় আয়োজন হয়েছে। ২০১৪ সালে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল এখানে হয়েছে। পরপর তিনটি এশিয়া কাপ আমরা এখানেই আয়োজন করেছি। মাঠের যে প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি ছিলো না। বৈরি আবহাওয়ার কারণে এটা হয়েছে। আইসিসি কিন্তু শুধুমাত্র ঘাসের কারণে অভিযোগ করেছে। অন্যান্য দিক ঠিক আছে। এখন সময়ের সাথে সাথে এটা ভালো হয়ে যাবে। আমাদের প্রস্তুতির ঘাটতি ছিলো, তা বলবো না।’

সংস্কারের পর পুরোপুরি প্রস্তুত হওয়ার আগেই মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে গড়ায় বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট। ম্যাচ শুরুর আগে দেখা যায় মাঠের ঘাসগুলোর মাঝে প্রচুর ফাঁক। আন্তর্জাতিক ভেন্যুর এমন দশা কেন হল, তার জবাব চেয়ে বিসিবিকে চিঠি দেয় আইসিসি। নির্ধারিত ১৪ দিন পার হওয়ার আগেই কারণ ব্যাখ্যা করে আইসিসিতে চিঠি পাঠিয়েছে বিসিবি। চিঠিতে কী উল্লেখ করা হয়েছে, সেটি গোপন রেখে বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আইসিসি শেরে বাংলার আউটফিল্ডকে বাজে বলে আখ্যায়িত করেছে। আমরা এ বিষয়ে আইসিসিকে একটা রিপোর্ট জমা দিয়েছি। আপনারা জানেন যে, গত চার-পাঁচ মাসে বাংলাদেশে যে বন্যা পরিস্থিতি ও বৃষ্টি, তাতে সময় মতো মাঠটা প্রস্তুত করা একটা চ্যালেঞ্জিং কাজ ছিলো। তারপরও আমরা চেষ্টা করেছি। আমরা মনে করি, আমাদের গ্রাউন্ডস কমিটি খুব কষ্ট করে কাজ করেছে।’

বিসিবি যে কারণ দেখিয়েছে সেটিতে আইসিসি সন্তুষ্ট না হতে হলে মোটা অঙ্কের জরিমানা গুনতে হবে বিসিবিকে। সঙ্গে আইসিসির তরফ থেকে তিরস্কার তো থাকবেই।

ফুটবল

ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার পুরস্কারের সংক্ষিপ্ত তালিকা

ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ঘুরপাক খাচ্ছে তিনজনকে ঘিরেই। এবারও সেরা হওয়ার লড়াইটা হবে রিয়াল মাদ্রিদের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, বার্সেলোনার লিওনেল মেসি আর পিএসজি-র নেইমারের মধ্যে। শুক্রবার এই তিন জনকে নিয়ে সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করেছে ফিফা।

বর্ষসেরা পুরস্কারের জন্য গত মাসে ২৪ জনের তালিকা প্রকাশ করেছিল ফিফা। সেই তালিকা ছোট করে তিন জনে নামিয়ে আনলো বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এ যেনো ২০১৫ সালের প্রতিচ্ছবি। সে বছরও এই পুরস্কারের জন্য লড়াই করেন মেসি, রোনালদো ও নেইমার।

গত ২০ নভেম্বর থেকে এ বছরের ২ জুলাই পর্যন্ত খেলোয়াড়দের যোগ্যতা ও অর্জন বিবেচনা করে পুরস্কারটি দেয়া হবে।

ক্লাবের হয়ে গত মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও লা লিগা জয়ে দ্যুতি ছড়িয়েছেন, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে নকআউট পর্বে ৫০ গোলের মাইলফলকও স্পর্শ করেন তিনি। সেই সঙ্গে নকআউট পর্বে টানা দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গড়েন পর্তুগিজ এই মহাতারকা।

ইউরোপ সেরা এই প্রতিযোগিতার ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এ মৌসুমে ১০০ গোলের রেকর্ডও গড়েন রোনালদো। ফাইনালে দুটিসহ এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সর্বোচ্চ ১২বার বল জালে জড়ান তিনি।

তবে রোনালদোর চেয়ে দলগত সফলতা কম হলেও ব্যক্তিগতভাবে গত মৌসুম দারুণ কাটে আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার তারকা লিওনেল মেসির। ক্লাব ফুটবল ক্যারিয়ারে ৫০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। কাতালান ক্লাবটির সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনিই। তাছাড়া বার্সা এখনো জয়ের ধারায় রয়েছে মেসির কল্যাণেই।

এদিকে, মেসি-রোনালদোর মতো নেইমারের প্রাপ্তি খুব একটা বেশি না হলেও বার্সেলোনার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে তার পারফরম্যান্স ছিল চমৎকার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে পিএসজির কাছে ৪-০ গোলে পরাজয়ের পর, ফিরতি পর্বে কাতালানদের ৬-১ গোলের রোমাঞ্চকর জয়ের নায়ক ছিলেন তিনিই।
জাতীয় দলের কোচ, অধিনায়ক ও ফিফার সদস্য দেশের একজন করে সাংবাদিকের ভোটে ২৩ অক্টোবর লন্ডনে ঘোষণা করা হবে এবারের বর্ষসেরা ফুটবলারের নাম।

এদিকে, গত নয় বছরে বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার মেসি ও রোনালদো ছাড়া আর কেউ জিততে পারেন নি। এবারও তার অন্যথা হবে বলে মনে হয় না। এর আগে, বার্সেলোনা তারকা পাঁচবার ও রিয়াল মাদ্রিদের ফরোয়ার্ড চারবার জিতেছেন এই পুরস্কার।


ভিডিও
ICC #WT20 England Women vs Bangladesh Women Match Highlights
New Zealand vs Bangladesh world T 20 2016 Highlights HD
More Video
ফেইসবুক

হ্যান্ডবল
গলফ
দাবা
হকি
লন-টেনিস
আর্ন্তজাতিক
সাক্ষাৎকার
সাঁতার
এ্যাথলেটিকস্