রাত ৪:৩৩, মঙ্গলবার, ২৯শে মে, ২০১৭ ইং

এক নজরে

ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের ভূবনেশ্বর শহরে অায়োজিত ১০ কিট আন্তর্জাতিক দাবা ফেস্টিভালের তৃতীয় রাউন্ডের খেলা শেষে গ্র্যান্ড মাস্টার জিয়াউর রহমান পূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে ১০ জন খেলোয়াড়ের সাথে মিলিতভাবে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন। গ্র্যান্ড মাস্টার রিফাত বিন সাত্তার ও ফিদে মাস্টার মোহাম্মদ ফাহাদ রহমান আড়াই পয়েন্ট করে অর্জন করে অন্য ৩০ জনের সাথে মিলিতভাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন। তিন খেলায় আনিসুজ্জামান জুয়েল ২ পয়েন্ট, গ্র্যান্ড মাস্টার নিয়াজ মোরশেদ ও মোহাম্মদ সিরাজুল কবীর দেড় পয়েন্ট করে, মোঃ জামাল উদ্দিন, শাহনাজ মোহাম্মদ ফারুক, মিজানুর রহমান, মোঃ রাজু আহমেদ ও সাদনান হাসান দিহান এক পয়েন্ট করে এবং ফিদে মাস্টার সৈয়দ মাহফুজুর রহমান ইমন আধা পয়েন্ট অর্জন করেছেন। গতকাল (শনিবার) সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত তৃতীয় রাউন্ডের খেলায় জিয়া ভারতের আকাশ আইয়ারকে, রিফাত ভারতের জিৎ জেনকে, ফাহাদ শ্রীলংকার অমরাসিংহেকে, জুয়েল ভারতের আগাম আদিত্যকে ও রাজু ভারতের গৌর হরি মহাপুত্রকে পরাজিত করেন। নিয়াজ ভারতের মহিতে রানবিরের সাথে ও সিরাজ ভারতের শারাভানান কৃষ্ণানের সাথে ড্র করেন। দিহান ভারতের আন্তর্জাতিক মাস্টার রতœাকরণের কাছে, শাহনাজ ইংল্যান্ডের সারদানা হৃষির কাছে, মিজান নেপালের হিমাল লামার কাছে, জামাল ভারতের হরি সুরেশের কাছে, মাহফুজ বিনয় থমাস আব্রাহামের কাছে, হাসান ভারতের তৃষা কানিয়ামারালার কাছে ও মনোন ভারতের রওনক মন্ডলের কাছে হেরে যান।

এ ম্যাচও হারল বাংলাদেশ!

এটাকে কি বলা চলে? জিততে না চাওয়া? ৩৪১ রান করে পাকিস্তানের আট উইকেট ২৪৯ রানে ফেলে দেয়ার পরও বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির নিজেদের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ জিততে পারল না। দুই বোলার ফাহিম আশরাফ ও হাসান আলী মিলে নাকাানিচুবানি খাওয়ালেন বাংলাদেশের বোলারদের। ৪৪ বলে দরকার ছিল ৯৩ রান। যা তারা ৩ বল হাতে রেখে তুলে নেন। ৪২.৪ ওভারে ২৪৯ রানে পাকিস্তান তাদের ৮ উইকেট হারায়। এ সময় মনে হচ্ছিল জয় বাংলাদেশের হাতের নাগালে। কিন্তু মাশরাফি-তাসকিনদের নিয়ে ছেলেখেলা খেললেন ফাহিম ও হাসান। ফাহিমের কথা বিশেষভাবে বলতে হয়। এই বোলার মাত্র ৩০ বলে চারটি করে চার ও ছক্কা মেরে অপরাজিত ৬৪ রান করেন। বাংলাদেশের জয় তুলে নেয়ার কাজে সাহায্যে করেন হাসান আলীও। তিনি ১৫ বলে ২৭ রান করে অজেয় হয়ে যান টাইগার বোলাদের কাছে। পাকিস্তান ২ উইকেটে জয় লাভ করে ৩ বল বাকি রেখে।
অথচ রানের পাহাড়ে চড়তে গিয়ে পাকিস্তান ১৪ রানে প্রথম উইকেট হারায়। তাসকিন আহমেদের বলে মাত্র ৮ রানে মুশফিকুর রহিমের ক্যাচ হন পাকিস্তানি ওপেনার। পরের ওভারে মাশরাফি মুর্তজা পান দ্বিতীয় উইকেট। এবারও মুশফিক গ্লাভসবন্দি করেন বাবর আজমকে (১)।
আহমেদ শেহজাদ ও মোহাম্মদ হাফিজ তাদের ব্যাটিং লাইনআপকে কিছুটা মেরামত করতে সফল হন। ৫৯ রানের জুটি গড়েন তারা। এ শক্ত জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান। ৪৪ রানে শেহজাদকে বোল্ড করেন তিনি।
এর পর শোয়েব মালিককে নিয়ে দাঁড়িয়ে যান হাফিজ। ৭৯ রানের জুটি গড়েন তিনি। তবে হাফসেঞ্চুরি করতে পারেননি হাফিজ। ৪৯ রানে তাকে ক্রিজ ছাড়া করেন শফিউল ইসলাম। মোসাদ্দেক হোসেন প্রতিপ অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে ফেরালে পাকিস্তানকে আরও চাপে ফেলে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের বোলারদের সামনে শক্ত প্রতিরোধ গড়া শোয়েব মালিক সাজঘরে ফেরেন ৭২ রান করে। তাকে ইমরুল কায়েসের ক্যাচ বানান মেহেদী হাসান মিরাজ। কয়েক ওভার যেতেই সাদাব খান রান আউট হন। পরের ওভারে মিরাজ ফেরান ইমাদ ওয়াসিমকে (৪৫)।
এর আগে টস জিতে পাকিস্তানের বিপে দুর্দান্ত ব্যাটিং অনুশীলন করে বাংলাদেশ। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে গতকাল ৯ উইকেটে ৩৪১ রান করেছে তারা।
বার্মিংহামের এজবাস্টনে শুরুটা হোঁচট খায় বাংলাদেশ। জুনাইদ খানের বলে মাত্র ১৯ রানে সৌম্য সরকার বাবর আজমের ক্যাচ হন। এর পর ক্রিজে দাঁড়িয়ে যান তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস। দ্বিতীয় উইকেটে ১৪২ রানের শক্তিশালী জুটি গড়েন তারা। হাফসেঞ্চুরি পাওয়ার পর বেশিণ টিকতে পারেননি ইমরুল। ৬২ বলে ৮ চারে ৬১ রানে সাদাব খানের শিকার তিনি। তবে তামিম অপর প্রান্তে ঝড় অব্যাহত রেখেছিলেন। মুশফিকের সঙ্গে মাত্র ৪০ বলে ৫০ রানের জুটি গড়ে ফিরতে হয় তাকে। সাদাব তাকে ফেরান। জুনাইদের ক্যাচ হওয়ার আগে তামিম ৯৩ বলে ৯ চার ও ৪ ছয়ে ১০২ রান করেন।
মুশফিক ৩টি করে চার ও ছয়ে হাফসেঞ্চুরির আপে নিয়ে মাঠ ছাড়েন। ৩৫ বলে ৪৬ রানে তিনি জুনাইদের শিকার হলে দুর্বার রানের গতি কিছুটা কমে যায়।
হাসান আলী তার এক ওভারে মাহমুদউল্লাহ (২৯) ও সাকিব আল হাসানকে (২৩) ফেরালে পরের ব্যাটসম্যানরা বড় অবদান রাখতে পারেনি। মোসাদ্দেক ১৫ বলে ২৬ রানের ছোট ঝড়ো ইনিংস খেলেন।
পাকিস্তানের জুনাইদ খান তার শেষ ২ ওভারে আরও দুটি উইকেট নিয়ে দলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি। ৯ ওভারে ৭৩ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন তিনি। দুটি করে পান হাসান ও সাদাব।

ক্রিকেট

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির অন্যতম সেরা তামিম

আর মাত্র ক’দিন পরেই শুরু হচ্ছে বহুল আলোচিত চ্যাম্পিয়নস ট্রফি। আট দলের অংশগ্রহনে এবারের আসরটি বেশ জমজমাটই হতে চলেছে। এই টুর্নামেন্টে এক দশকেরও বেশি সময় পর খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। যেখানে ইতোমধ্যে যেকোনো দলের জন্যই হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে টাইগাররা। আগামী ১ জুন ইংল্যান্ডের মাটিতে তাদেরই বিপে উদ্বোধনী ম্যাচে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। তবে এই টুর্নামেন্টে বিশ্বের সেরা দলগুলোই লড়াই করবে। যেখানে গ্রুপ ‘এ’তে রয়েছে ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড। আর ‘বি’ গ্রুপে আছে ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও দণি আফ্রিকা। এই আটটি দলে রয়েছে অসংখ্য তারকা ক্রিকেটার। যারা এবারের আসরে দেখাতে পারেন চমক করা পারফরম্যান্স। এই তারকাদের একজন বাংলাদেশ ওপেনার তামিম ইকবাল। যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলি এক কলামে আট দল থেকে একজন করে সেরা ক্রিকেটার বাছাই করা হয়েছে। এ তালিকায় টাইগার ড্যাশিং ব্যাটসম্যান তামিমের বর্ণনা দেওয়া হয়েছে।
কলামে বাংলাদেশ সম্পর্কে বলা হয়েছে, গত কয়েক বছর ধরে এই দলটি দারুণ উন্নতি করেছে। অবশ্যই তারা টুর্নামেন্টে অন্য দলগুলোর জন্য হুমকি। তাদের কয়েকজন সেরা স্পিনার রয়েছেন যারা প্রতিপরে জন্য টার্নিং উইকেটে ভয়ঙ্কর হতে পারেন। পরে বিশেষ ক্রিকেটার হিসেবে তামিম সম্পর্কে বলা হয়, টপ অর্ডারে দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান তামিম। তার দিনে সে প্রতিপকে ধ্বংস করে দিতে পারে। সত্যিকারের একজন স্ট্রোক খেলোয়াড়, যে কিনা প্রথম বল থেকেই ভয়হীন ক্রিকেট খেলেন।
নিচে অন্য সাত দলের সেরা ক্রিকেটারের নাম দেওয়া হলো :
ভারত-রবিচন্দ্রন অশ্বিন (স্পিন অলরাউন্ডার)।
দণি আফ্রিকা-কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক-ব্যাটসম্যান)।
শ্রীলঙ্কা-অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (ব্যাটিং অলরাউন্ডার)।
পাকিস্তান-মোহাম্মদ আমির (ফাস্ট বোলার)।
ইংল্যান্ড-আদিল রশিদ (লেগ স্পিনার অলরাউন্ডার)।
অস্ট্রেলিয়া-জেমস প্যাটিনসন (ফাস্ট বোলার)।
নিউজিল্যান্ড-কেন উইলিয়ামসন (ব্যাটসম্যান)।

ফুটবল

মেয়েদের স্বাস্থ্য বীমা চুক্তি

গার্ডিয়ান লাইফ ইন্সুরেন্সের সঙ্গে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৬ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের গ্রুপ লাইফ ও স্বাস্থ্য বীমা সেবা চুক্তি হয়েছে। মতিঝিলের বাফুফে ভবনে সম্পন্ন হওয়া এই চুক্তির আওতায়, বাংলাদেশ অ-১৬ জাতীয় মহিলা ফুটবল দলের সকল খেলোয়াড়, ম্যানেজার ও প্রশিকদের ২০১৭ হতে আগামী ২০২০ সাল পর্যন্ত গ্র“প লাইফ ও স্বাস্থ্য বীমা সুবিধা দেবে ‘গার্ডিয়ান লাইফ ইন্সুরেন্স লিমিটেড’।
চুক্তি স্বার অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাহউদ্দিন, সহ-সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মহি ও সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ উপস্থিত ছিলেন। গার্ডিয়ান লাইফ ইন্সুরেন্সে পে তপন চৌধুরী, গার্ডিয়ান লাইফ ইন্সুরেন্সের ডাইরেক্টর সৈয়দ আখতার হাসান উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।


ভিডিও
ICC #WT20 England Women vs Bangladesh Women Match Highlights
New Zealand vs Bangladesh world T 20 2016 Highlights HD
More Video
ফেইসবুক

হ্যান্ডবল
গলফ
দাবা
হকি
লন-টেনিস
আর্ন্তজাতিক
সাক্ষাৎকার
সাঁতার
এ্যাথলেটিকস্