শেন ‌ওয়ার্নের চিরবিদায়

শেন ‌ওয়ার্নের চিরবিদায়

রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাপ্ত হলো শেন ওয়ার্নের শেষকৃত্য অনুষ্ঠান। মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে এই কিংবদন্তির উদ্দেশে চলে স্মৃতিচারণ। আর উন্মুক্ত করা হয় শেন ‌ওয়ার্ন স্ট্যান্ডের।

মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে তখন রাতের অন্ধকার ছাপিয়ে বড় হয়ে উঠছে একজনের শোকের কালো আঁধার। শেন ওয়ার্ন, শুধু একজন ক্রিকেটারই ছিলেন না। ছিলেন একজন জাদুকর, একজন কিংবদন্তি। থাইল্যান্ডের কোহ সামুইয়ে চলতি মাসের ৪ তারিখ ভ্রমণে গিয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।  আজ বুধবার (৩০ মার্চ) ছিল তার শেষকৃত্য। দুই ঘন্টার এই অনুষ্ঠানে মেলবোর্ন স্টেডিয়ামে তাকে চিরবিদায় জানাতে উপস্থিত ছিলেন এককালের জাতীয় দলের সতীর্থ কিংবা প্রতিপক্ষ থেকে শুরু করে অনেক রথী-মহারথী। 

চোখের জলে কিংবদন্তি ওয়ার্নকে বিদায় জানাতে মাঠে উপস্থিত আছেন ৫০ হাজার ভক্ত। তালিকায় ছিলেন ক্রিকেটার, অভিনেতা, গায়ক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ। মঞ্চে ছিলেন ওয়ার্নের তিন সন্তানকেও। গান ও স্মৃতিচারণার মধ্যে দিয়ে চলে বিদায় জানানোর পালা। স্টেডিয়ামের বাইরে তাঁর মূর্তিতে জমা হতে থাকে ফুলের তোড়া। শ্রদ্ধা জানান ভক্তরা। 

আবেগতাড়িত কণ্ঠে সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক নাসের হুসেন বলেন, ‘তোমার সঙ্গে মাঠে খেলতে পারাটা ছিল দারুণ সৌভাগ্যের বিষয়। আমার দেখা সেরা বোলার তুমিই ছিলে। দশ বছর ধরে ধারাভাষ্য কক্ষে তোমার সঙ্গে থাকতে পারা এবং বন্ধু হিসেবে পাওয়াটা দারুণ ব্যাপার। ইংল্যান্ডের সবার পক্ষ থেকে বলছি, আমরা তোমাকে ভালোবাসি আর সব সময় তোমাকে মিস করব।’ 

ওয়ার্নকে নিয়ে এত বড় আয়োজনে নাসের হুসেন ছাড়া‌ও ব্রায়ান লারা, অ্যালান বোর্ডার কিংবা শচীন টেন্ডুলকার ছিলেন সবাই। সারিবদ্ধভাবে বসেন সমর্থক ও ভক্তরা। সবার চোখের কোণেই জল।   

স্মৃতিচারণার মঞ্চে লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকার বলেন, সে সবসময় আউট করার উপায় ‍খুঁজে বেড়াত। বল অব দ্য সেঞ্চুরিতে বোকা বনে যাওয়া ইয়ান বেলের বিশ্বাস, ‘ওয়ার্নের চেয়ে অসাধারণ ও পাওয়ারফুল উপস্থিতি আর কারো নেই।’

প্রিয় সতীর্থ কিংবা এককালের প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের স্মৃতিচারণার মাঝেই পর্দায় ভেসে উঠে ‘বল অব দ্য সেঞ্চুরি’। কিংবা তাকে নিয়ে মজার কোনো স্মৃতির ভিডিও। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD