শিরোপা জয়ে বার্টির প্রতিপক্ষ কোলিন্স

শিরোপা জয়ে বার্টির প্রতিপক্ষ কোলিন্স

অস্ট্রেলিয়ান ‌ওপেন টেনিস

অস্ট্রেলিয়ান ‌ওপেন টেনিসে অ্যাশলে বার্টির জয়রথ ছুটছেই। বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালে মেডিসন কেইসকে উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। সঙ্গে জীবনের প্রথম মেলবোর্নের ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করেছেন বর্তমান বিশ্ব টেনিসের র‌্যাঙ্কিংয়ের নম্বার ওয়ান এই তারকা। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে জয়ের স্বাদ পেয়েছেন ড্যানিয়েল কোলিন্স। আমেরিকার এই অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ও এদিন সরাসরি সেটে পরাজিত করেন ফ্রেঞ্চ ওপেনের সাবেক চ্যাম্পিয়ন ইগা সুইয়াটেককে। এর ফলে ক্যারিয়ারের প্রথম মেজর কোন গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছেন ২৮ বছর বয়সী ড্যানিয়েল কোলিন্স। শনিবার মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হবেন বার্টি-কোলিন্স।


 
কয়েক বছর ধরেই বিশ্ব টেনিসে আলো ছড়াচ্ছেন অ্যাশলে বার্টি। ২০০৯ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনের মাধ্যমে ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ডস্লাম জয়ের স্বাদ পান তিনি। গত বছরে উইম্বলডনে জিতেন দ্বিতীয় মেজর শিরোপা। নতুন মৌসুমেও ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মেখে কোর্টে নামেন অস্ট্রেলিয়ান তারকা। শুরুটাও করেন এ্যাডিলেড ইন্টারন্যাশনাল টেনিস টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হয়ে। পারফর্মেন্সের সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখেন মেলবোর্নেও। বৃহস্পতিবার প্রথম সেমিফাইনালে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করেই মেডিসন কেইসকে সরাসরি সেটে হারিয়েছেন তিনি। টুর্নামেন্টের শীর্ষ বাছাই এদিন ৬-১ এবং ৬-৩ গেমে পরাজিত করেন র‌্যাঙ্কিংয়ের ৫১তম স্থানে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের কেইসকে। প্রতিপক্ষকে হারাতে বার্টি এদিন সময় নেন মাত্র ৬২ মিনিট।

এই জয়ের ফলে ইতিহাসও গড়েছেন এ্যাশলে বার্টি। ৪২ বছরের ইতিহাসে প্রথম কোন অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড় হিসেবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালের টিকেট কেটেছেন তিনি। তার আগে এই কীর্তি গড়েছিলেন ওয়েন্ডি টার্নবুল, ১৯৮০ সালে। বছরের প্রথম টুর্নামেন্টের শুরু থেকে টানা ১০ ম্যাচে অপরাজিত এ্যাশলে বার্টি। এমন দাপুটে জয়ের পর স্বাভাবিকভাবেই রোমাঞ্চিত শীর্ষ বাছাই। এ প্রসঙ্গে নিজের অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে এটি ছিল অভাবনীয়। এখানে নিজের সেরা খেলাটা খেলতে পেরে আমি খুবই খুশি। রাতে বল কিছুটা ধীরগতির ছিল। আমি শুধু মানিয়ে নেয়ার জন্য ছোটাছুটি করে গেছি। যতটুকু সম্ভব মেডিকে চাপে রাখার চেষ্টা করেছি। কেননা বেশ দ্রুততার সঙ্গে বল আমার নাগালের বাইরে পাঠানোর মতো দক্ষতা তার রয়েছে।’

মেডিসন কেইস হেরে বিদায় নিলেও দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ঠিকই দুর্দান্ত জয় তুলে নিয়েছেন তারই স্বদেশী ড্যানিয়েল কোলিন্স। তাও আবার সাবেক গ্র্যান্ডস্লামজয়ী ইগা সুইয়াটেককে গুড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। ২৭তম বাছাই কোলিন্স ৬-৪ এবং ৬-১ ব্যবধানে হারান পোল্যান্ডের প্রতিভাবান এই খেলোয়াড়কে। সেইসঙ্গে ক্যারিয়ারের প্রথম কোন মেজর টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ের ম্যাচের টিকেট কাটতে সক্ষম হয়েছেন তিনি। এর আগে তার সেরা ফলাফল ছিল সেমিফাইনাল। ২০১৯ সালে এই মেলবোর্নেই শেষ চারে খেলেছিলেন আমেরিকান তারকা। এবার আর সেই ভুল হতে দেননি তিনি। ফ্রেঞ্চ ওপেনের সাবেক চ্যাম্পিয়ন ইগা সুইয়াটেকের বিপক্ষে ম্যাচে সতর্ক থেকেই কোর্টে নামেন আমেরিকান তারকা। শেষ পর্যন্ত হাসি নিয়েই কোর্ট ছেড়েছেন তিনি। প্রথম সেটে লড়াই হলেও দ্বিতীয় সেটে তো পাত্তাই দেননি সুইয়াটেককে। সেইসঙ্গে ক্যারিয়ারে সপ্তমবারের মতো শীর্ষ দশে থাকা খেলোয়াড়ের বিপক্ষে জয় তুলে নেন কোলিন্স। 

এবার ফাইনালেও নিজের সেরাটা ঢেলে দিতে চান কোলিন্স। যেখানে তার বড় বাধা বর্তমান বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের নম্বার ওয়ান তারকা অ্যাশলে বার্টি। অস্ট্রেলিয়ার এই শীর্ষ বাছাইয়ের বিপক্ষে এর আগে চারবার মুখোমুখি লড়াই করেছেন তিনি। তিনবার হেরেছন। তবে সর্বশেষ ম্যাচে অ্যাশলে বার্টির বিপক্ষে জয় তুলে নিয়েছিলেন কোলিন্স। এবার ফাইনালে বার্টির বিপক্ষে জেতা সেই ম্যাচই কোলিন্সের অনুপ্রেরণা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD