পাওয়েলের সেঞ্চুরিতে লিড ওয়েস্ট ইন্ডিজের

পাওয়েলের সেঞ্চুরিতে লিড ওয়েস্ট ইন্ডিজের

রোভম্যান পাওয়েলের সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে লিড নিলো স্বাগতিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গতরাতে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০ রানে হারিয়েছে ইংল্যান্ডকে। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ক্যারিবিয়রা। ৫৩ বলে ১০৭ রানের দানবীয় ইনিংস খেলেন পাওয়েল।

সিরিজে সমতা নিয়ে বার্বাডোজে তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ড। টস জিতে প্রথমে বোলিং বেছে নেয় ইংলিশরা। ব্যাট হাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই ওপেনার ব্রান্ডন কিং ১০ ও শাই হোপ ৪ রানে আউট হন।

দুই ওপেনার ব্যর্থ হলেও, ব্যাট হাতে জ্বলে উঠেন নিকোলাস পুরান ও পাওয়েল। দু’জনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১০ ওভার শেষে ৯৬ রান পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৩৪ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পান পুরান। ছক্কা মেরে ৩১ বলে ফিফটিতে পা রাখেন পাওয়েল। পুরান-পাওয়েলের জোড়া হাফ-সেঞ্চুরিতে ১৫ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান ১৫৩। ১৭তম ওভারে পুরানকে শিকার করে জমে যাওয়া জুটি ভাঙ্গেন ইংল্যান্ডের স্পিনার আদিল রশিদ। ৪৩ বলে ৪টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৭০ রান করেন পুরান। তৃতীয় উইকেটে ৬৭ বলে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১২২ রানের জুটি গড়েন পুরান-পাওয়েল।

পুরান ফিরলেও, ব্যাট হাতে মারমুখী ছিলেন পাওয়েল। এতে ১৯তম ওভারের চতুর্থ বলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। ৩৪তম ম্যাচে এসে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পেতে ৫১ বল লেগেছে পাওয়েলের। সেঞ্চুরি পাওয়া ওভারের শেষ ডেলিভারিতেই আউট হন পাওয়েল। ইংল্যান্ডের বাঁ-হাতি পেসার রিচ টপলির শিকার হয়ে ১০৭ রানে আউট হন তিনি। ৭১ মিনিট ক্রিজে থেকে ৫৩ বলে ৪টি ও ১০টি ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান পাওয়েল। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ২২৪ রানের পাহাড় গড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এটিই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

২২৫ রানের বড় টার্গেটের জবাবটা মারমুখী মেজাজেই শুরু করে ইংল্যান্ড। চতুর্থ ওভারে ওপেনার জেসন রয়কে হারালেও, আরেক ওপেনার টম ব্যান্টনের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লেতে ৬১ রান পায় ইংল্যান্ড। তবে শতরানে পৌঁছানোর আগে আরও ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে ইংল্যান্ড। অন্যপ্রান্তে ইংল্যান্ডের রানের চাকা ঘুড়িয়ে ২৯ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পেয়েছেন ব্যান্টন।

কিন্তু ১৩তম ওভারে থামতে হয় ব্যান্টনকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক কাইরন পোলার্ডের বলে আউট হবার আগে ৭৩ রান করেন তিনি। ৩৯ বল খেলে ৩টি চার ও ৬টি ছক্কা মারেন ব্যান্টন। ব্যান্টনের আউটের পর শেষ ৭ ওভারে ৯৩ রান দরকার ছিলো ইংল্যান্ডের। দলের এই প্রয়োজন মেটাতে পারেনি ইংল্যান্ডের পরের দিকে ব্যাটাররা।

ছয় নম্বরে নামা ফিল সল্ট  চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তার ২৪ বলে ৫৭ রানের ঝড়ো ইনিংসটি শেষ পর্যন্ত বৃথাই যায়। ৩টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন সল্ট। তাকে থামান ডান-হাতি পেসার রোমারিও শেফহার্ড। সল্টের ইনিংসে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ২০৪ রান পর্যন্ত তুলতে পারে ইংল্যান্ড। ওয়েস্ট ইন্ডিজের শেফহার্ড ৫৯ রানে ৩ উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হন পাওয়েল। আগামী ৩০ জানুয়ারি একই ভেন্যুতে হবে সিরিজের চতুর্থ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD