বিশ্বকাপ খেলা হচ্ছেনা ইতালি কিংবা পর্তুগালের

বিশ্বকাপ খেলা হচ্ছেনা ইতালি কিংবা পর্তুগালের

বর্তমান ও সাবেক দুই ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়ন ইতালি কিংবা পর্তুগালের মধ্যে যেকোন এক দলের কাতার বিশ্বকাপের টিকিট পাওয়া হচ্ছেনা। প্লে-অফে একই বিভাগে দু’দল পড়ে যাওয়ায় শেষ পর্যন্ত বাদ পড়তে হবে যেকোন একটি দলকে।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ইউরোপীয়ান অঞ্চলে ইতোমধ্যেই ১০ গ্রুপের সেরা ১০ দল কাতারের টিকিট নিশ্চিত করেছে। আজ্জুরি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল নিজ নিজ গ্রুপে রানার্স-আপ হওয়ায় তাদের ভাগ্য ঝুলে গেছে মার্চের প্লে-অফ পর্যন্ত। সুইজারল্যান্ড ও সার্বিয়ার পরে থেকে এই দুই দল গ্রুপ-সি ও গ্রুপ-এ’র দ্বিতীয় দল হিসেবে প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে। মার্চে প্লে-অফের প্রথম রাউন্ডে ইতালি নর্থ মেসিডোনিয়াকে আতিথ্য দিবে। অন্যদিকে তুরষ্ক সফরে যাবে পর্তুগাল। এই দুই ম্যাচের বিজয়ী দল কাতারে যাবার জন্য একে অপরের মোকাবেলা করবে। এর অর্থ হচ্ছে শেষ দুইবারের ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়ন দুটি দলের মধ্যে যেকোন একটি দলকে বিশ্বকাপের আগেই বিদায় নিতে হচ্ছে। ২০১৬ সালে ইউরো চ্যাম্পিয়নশীপ জয় করেছিল ইতালি।

বাছাইপর্বে ১০ গ্রুপের ১০ রানার্সআপ ও নেশন্স লিগে ভালো করেছে কিন্তু বিশ্বকাপে জায়গা করতে পারেনি এমন দুই দল অস্ট্রিয়া ও চেক প্রজাতন্ত্রকে নিয়ে আয়োজিত হবে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের প্লে-অফ ম্যাচ। এই ১২ দলকে তিনটি ভাগে ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। এক একটি ভাগের চার দলের মধ্যে প্রথমে সেমিফাইনাল হবে। আর সেখান থেকে ফাইনালে যাবে দুই দল। ফাইনালের বিজয়ী দল যাবে বিশ্বকাপে। এভাবে তিন ভাগ থেকে তিনটি দল যাবে কাতার বিশ্বকাপে।

জুরিখে ফিফার সদর দপ্তরে আয়োজিত এই প্লে­ অফের ড্রতে বাছাই দল হিসেবে ছিল ছয়টি দল পর্তুগাল, স্কটল্যান্ড, ইতালি, রাশিয়া, সুইডেন, ওয়েলস। অবাছাই দল হিসেবে ছিল তুরস্ক, পোল্যান্ড, নর্থ মেসেডোনিয়া, ইউক্রেন, অস্ট্রিয়া, চেক প্রজাতন্ত্র। বাছাই হওয়ার সুবিধা হিসেবে দলগুলো সব ঘরের মাঠে খেলার সুযোগ পাচ্ছে।

প্রথম ভাগে একদিকের সেমিফাইনালে খেলবে স্কটল্যান্ড। এই ভাগের অন্য সেমিফাইনালে খেলবে ওয়েলস। অন্য ভাগে একদিকে বাছাই দল হিসেবে নাম উঠেছে রাশিয়ার। সে ভাগের অন্য বাছাই দল হিসেবে নাম উঠেছে সুইডেনের। আর এতেই নিশ্চিত হয়েছে, তৃতীয় ভাগে দুই বাছাই দল হিসেবে থাকছে ইতালি ও পর্তুগাল। আর এই ভাগ থেকে শুধু এক দল যাওয়ার অর্থই হচ্ছে রোনাল্ডো কিংবা রবার্তো মানচিনির দলের এক দলের বিদায় নিশ্চিত।

ইতালিয়ান কোচ রবার্তো মানচিনি বলেছেন, ‘এটা আমাদের জন্য কঠিন একটি ড্র হয়েছে। নর্থ মেসিডোনিয়া খুবই ভাল দল। এই ম্যাচে জিততে পারলে আমাদের এ্যাওয়ে ম্যাচে খেলতে হবে।‘

জুলাইয়ে ইউরোর ফাইনালে ইংল্যান্ডকে পেনাল্টিতে পরাজিত করে শিরোপা জিতেছিল ইতালি। চার বছর আগে সুইডেনের কাছে প্লে-অফে পরাজিত হয়ে ১৯৫৮ সালের পর প্রথমবারের মত বিশ্বকাপে খেলতে পারেনি আজ্জুরিরা। সেই দু:সহ স্মৃতি কাটিয়ে এবার কাতার বিশ্বকাপে খেলার ব্যপারে আশাবাদী মানচিনি।

অন্যদিকে ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপের পর প্রথমবারের মত বড় কোন টুর্নামেন্টে খেলতে না পারার দ্বারপ্রান্তে রয়েছে পর্তুগাল। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে শেষ মুহূর্তের গোলে সার্বিয়ার কাছে ২-১ গোলে পরাজিত হয়েছিল পর্তুগাল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD