প্রথম দল হিসেবে নকআউটে ইটালি

প্রথম দল হিসেবে নকআউটে ইটালি

অসাধারণ পথচলায় আরেকটি দুর্দান্ত জয় তুলে নিল ইতালি। সুইজারল্যান্ডকে ৩-০ গোলে হারিয়ে এবারের ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম দল হিসেবে শেষ ১৬-তে জায়গা করে নিলো ইটালি। আর তুরস্ককে ২-০ গোলে পরাজিত করে নকআউট পর্বের আশা বাঁচিয়ে রাখলো ওয়েলস।

পুরো খেলায় ১৩ শটের ৩টিই ছিলো লক্ষ্যে ইটালির। তাতেই এক ম্যাচ হাতে রেখে ইউরো ফুটবলে প্রথম দল হিসেবে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যায় রবার্তো মানচিনিরি দল।

অবশ্য রোমের স্তাদিও অলিম্পিকোয়, শুরুতেই সুইজারল্যান্ড অগোছালো ফুটবল উপহার দেয়। অন্যদিকে নিজেদেরর রক্ষণ নিশ্চিদ্র রেখে, ঘন ঘন আক্রমণে সুইসদেরকে বিপর্যস্ত করে ইটালি। এমনি আক্রমণে খেলার ১৯ মিনিটে অধিনায়ক কিয়েল্লিনি গোল করলেও হ্যান্ডবলের কারণে বাতিল হয়। তবে গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষায় থাকতে হয়নি। ২৬ মিনিটে ম্যানুয়েল লোকাতেল্লির গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

সুইস ডিফেন্সের ফাঁক-ফোকরগুলোর সদ্ব্যবহার করে দ্বিতীয়ার্ধে আরো বিপদজনক হয়ে ওঠে ইটালি। ৫২ মিনিটে বুলেট গতির শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লোকাতেল্লি। এরপর ম্যাচ থেকে হারিয়েই যায় সুইজারল্যান্ড। ৮৯ মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ করেন চিরো ইম্মোবিলে।

দিনের অন্য ম্যাচে তুরস্ককে ২-০ গোলে হারিয়ে শেষ ষোলোর আশা ধরে রেখেছে গ্যারেথ বেলের দল ওয়েলস। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে শুরু থেকে জমে ওঠা ম্যাচে দুই দলই পেল অসংখ্য সুযোগ। কাজে লাগাতে পারল শুধু ওয়েলস। পেনাল্টি মিসের আগে-পরে সতীর্থের গোলে অবদান রাখলেন গ্যারেথ বেল। রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে তুরস্ককে হারিয়ে ইউরো ২০২০ আসরে প্রথম জয়ের স্বাদ পেল তার দল। উজ্জ্বল করল পরের রাউন্ডে যাওয়ার আশা।

‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে ২-০ গোলে জিতেছে ওয়েলস। অ্যারন র‌্যামজির গোলে তারা এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান কনর রবার্টস। চার দশক পর তুরস্ককে হারাল ওয়েলস। এর আগে সবশেষ ১৯৮১ সালে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ১-০ ব্যবধানে জিতেছিল তারা। মাঝে দুইবারের দেখায় একটিতে হেরেছিল, ড্র করেছিল অন্যটি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD