জয়ে শুরু বাংলাদেশের

জয়ে শুরু বাংলাদেশের

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ‌ওয়ানডে সিরিজ

প্রথম ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে ৩৩ রানে হারিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেলো বাংলাদেশ। কলম্বোয় টেস্ট সিরিজে পরাজয়ের পর সীমিত ওভারের ম্যাচে নিজেদের দক্ষতারও প্রমান দিলো তামিম ইকবালের দল। বাংলাদেশের ৬ উইকেটে ২৫৭ রানের জবাবে ২২৪ রানে থামে লঙ্কানদের ইনিংস। 

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ সুপার লিগের ম্যাচে দারুণ এক জয় পেলো বাংলাদেশ। এতে সুপার লিগে ৭ ম্যাচে চতুর্থ জয়ে ৪০ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে এলো তামিম ইকবালের দল।  

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে, ২৫৮ রানের টার্গেটে নেমে শ্রীলঙ্কার শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি। দলের ৯৭ রানেই হারায় তারা ৫ উইকেট। কুশল মেন্ডিসকে ফিরিয়ে ক্রিকেটে ১ হাজার উইকেটের মালিক হন সাকিব আল হাসান। আর লঙ্কান অধিনায়ক কুশল পেরেরার পর ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাকে বিদায় করে মিরাজ তুলে নেন, ক্যারিয়ারের ৫০তম ওয়ানডে উইকেট। শেষ পর্যন্ত ৩০ রানের খরচায় মিরাজ ৪ উইকেট তুলে নিয়ে শ্রীলঙ্কাকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন। সতীর্থদের আসা-যাওয়ার মাঝে ব্যতিক্রম ছিলেন হাসারাঙা ডি সিলভা। ৬০ বলে তার ৭৪ রানও লঙ্কানদের পরাজয় ঠেকাতে পারেননি। ২২৪ রানে থামে তারা। 

এর আগে টস জিতে ব্যাট করে, দলের একশ’ রানের আগেই সাজঘরে বাংলাদেশের ৪ ব্যাটসম্যান। রানের খাতা খোলার আগেই বিদায় লিটন দাস। বাউন্ডারি দিয়ে শুরু করলেও ৩৪ বলে ১৫ রানের পুঁজিতে থামেন সাকিব আল হাসান। ফিফটির ফিফটি করলেও ৭০ বলে ৬ চার আর এক ছক্কায় ৫২ রানে সাজঘরে ফেরেন প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে তিন ফরমেটের ক্রিকেটে ১৪ হাজার রান ক্লাবে যোগ দেওয়া তামিম ইকবাল। আর মাঠে নেমেই লেগ বিফোর মোহাম্মদ মিঠুন। 

সেই অবস্থা থেকে বাংলাদেশ দলের ত্রাতা হয়ে ওঠেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহিম। তাদের ১০৯ রানের জুটি লড়াকু পুঁজি এনে দেয় বাংলাদেশকে। সেঞ্চুরি করার সুযোগ মিস করা মুশফিক ৮৪ রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেন রিভার্স সুইপের বলি হয়ে। আর বোল্ড হওয়ার আগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাট থেকে আসে ৫৪ রান। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে হারানো বাংলাদেশ থামে ২৫৭ রানে। 
পরে এই রানই জয়ের জন্য যথেষ্ট প্রমান করেন বাংলাদেশী বোলাররা।   
 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD