শীর্ষে ‌ওঠার সুযোগ হারাল বার্সেলোনা

শীর্ষে ‌ওঠার সুযোগ হারাল বার্সেলোনা

লা লিগায় শীর্ষে ‌ওঠার সুযোগ হারাল বার্সেলোনা। বৃহস্পতিবার রাতে নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে গ্রানাদার কাছে ২-১ গোলে পরাজিত হল রোনাল্ড কোম্যানের দল। তাতে করে শিরোপা জয়ের আশাটা‌ও ফিকে হয়ে যায় কাতালানদের।

স্প্যানিশ লা লিগায় ২৫তম বারের মতো বার্সেলোনার আতিথ্য নিতে এসেছিল গ্রানাদা। আগের ২৪ ম্যাচে কোনো পয়েন্টই পায়নি তারা। সবকটিতে হার। সেই গ্রানাদাই কিনা লিওনেল মেসির গোলে পিছিয়ে পড়ার পরও ঘুরে দাঁড়িয়ে তুলে নিল স্মরণীয় এক জয়! বিপরীতে, অঘটনের শিকার হওয়ায় বার্সার শিরোপা পুনরুদ্ধারের স্বপ্নে লাগল ধাক্কা।

শুরু থেকে গ্রানাদাকে চেপে ধরে বার্সা। নবম মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে জর্দি আলবার নেওয়া শট চলে যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে। দশ মিনিট পর আঁতোয়ান গ্রিজমানের দূরপাল্লার শট ঝাঁপিয়ে রক্ষা করেন গোলরক্ষক অ্যারন এস্কান্দেল। সাফল্য আসে খেলার ২৩ মিনিটে। মেসির দারুণ লক্ষ্যভেদে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা।

সার্জিও বুসকেতস মাঝমাঠের সামনে থেকে খুঁজে নেন মেসিকে। তিনি বল বাড়ান গ্রিজমানকে। পুরো শরীর ঘুরিয়ে সঙ্গে লেগে থাকা প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারকে ছিটকে ফেলেন এই ফরাসি ফরোয়ার্ড। এরপর ডি-বক্সে ঢুকে বলে একবার ছোঁয়া লাগিয়ে তিনি চকিতে দেখে নেন মেসিকে। পরের ছোঁয়ায় বাঁ দিকে আর্জেন্টাইন সতীর্থের উদ্দেশ্যে বল ঠেলে দেন গ্রিজমান। রেকর্ড ছয়বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা ততক্ষণে পৌঁছে যান ফাঁকায়। দ্বিতীয় কোনো ভাবনা ছাড়াই বাঁ পায়ের কোণাকুণি শট নেন তিনি। বল জড়াল জালে। চলতি আসরে এটি তার ২৬তম গোল।

দুই মিনিট পরই সমতায় ফিরতে পারত গ্রানাদা। বার্সার ডি-বক্সের সামনে বুসকেতসের পা থেকে বল কেড়ে নেন ইয়াঙ্গেল হেরেরা। কিন্তু সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন তিনি। তার দুর্বল শট লক্ষ্যেই থাকেনি।

৩৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করার দারুণ সুযোগ পেয়েছিল বার্সেলোনা। সফরকারীদের রক্ষণভাগ তছনছ করে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন মেসি। কিন্তু এস্কান্দেলকে পরাস্ত করতে ব্যর্থ হন তিনি। পরের মিনিটে কর্নার থেকে স্যামুয়েল উমতিতির হেডও সহজেই লুফে নেন গ্রানাদার এই গোলরক্ষক। ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বার্সেলোনা।

বিরতির পর ম্যাচে সমতা ফেরাতে বার্সেলোনার উপর আক্রমণ চালায় গ্রানাদা। সফল হয় তারা খেলার ৬৩ মিনিটে। ডারউইন মাচিসের গোলে ১-১ এ সমতা ফেরায় গ্রেনাদা। এই গোলের রেশ কাটত েনা কাটতেই মিনিটে ব্যবধান ২-১ এ নিয়ে যান বদলি খেলোয়াড় জর্জ মলিনা। বাকী সময়ে আর কোনো গোল হয়নি। তাতে ২-১ ব্যবধানের দারুণ এক জয় নিয়ে ঘরে ফেরে গ্রানাদা।

এই ম্যাচ জিতলে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদকে পিছনে ফেলে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠতে পারত বার্সেলোনা। কিন্তু তা না হ‌ওয়ায় তারা এখন আছে তৃতীয় স্থানে। ৩৩ ম্যাচে ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। আর সমান ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রিয়াল মাদ্রিদ, পয়েন্ট সমান ৭১ হলে‌ও গোল ব্যবধানে তৃতীয় স্থানে এখন বার্সেলোনা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD