পোর্তোকে হারিয়ে‌ও বিদায় জুভেন্টাসের

পোর্তোকে হারিয়ে‌ও বিদায় জুভেন্টাসের

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে শিরোপা জিতলেও এবারো জুভেন্টাসের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ অধরাই থেকে গেলো পর্তুগিজ মহাতারকার! টানা দ্বিতীয় মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ১৬’ থেকে বিদায় নিতে হলো জুভেন্টাসকে। মঙ্গলবার ১০ জনের পোর্তোর বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে ৩-২ গোলে জয়ী হয়েও শেষ রক্ষা হলোনা ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়নদের।

অতিরিক্ত সময়ে সার্জিও অলিভিয়েরার ফ্রি-কিকে দুইবারের সাবেক চ্যাম্পিয়ন পোর্তোর কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয়। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৪ ব্যবধানে সমতা থাকলেও এ্যাওয়ে গোলের সুবাদে এগিয়ে পর্তুগীজ চ্যাম্পিয়নরা শেষ আটে উঠেছে। এর আগে পর্তুগালে প্রথম লেগের ম্যাচে তারা ২-১ গোলে জয়ী হয়েছিল। অলিভিয়েরার প্রথমার্ধের পেনাল্টিতে পোর্তো গতকালও তুরিনের মাঠে এগিয়ে যায়। কিন্তু ফেডেরিকো চিয়েসার দুই অর্ধের দুই গোলে জুভেন্টাস ম্যাচে সমতা ফেরায়। ৫৪ মিনিটে মেহদি টারেমি দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠত্যাগ করলে ১০জনের দলে পরিনত হয় সফরকারীরা। ১১৫ মিনিটে অলিভিয়েরার লো ফ্রি-কিক আটকাতে পারেননি জুভ গোলরক্ষক ওজিচে সিজিসনি। ১১৭ মিনিটে আদ্রিয়েন রাবোয়িত জুভেন্টাসকে স্বপ্ন দেখালেও শেষ রক্ষা হয়নি।

জুভেন্টাস কোচ আন্দ্রে পিরলো বলেন, 'চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দুই লেগে যখন কেউ বড় চারটির ভুল করে তখন বিদায় নেয়াটা স্বাভাবিক। এই ম্যাচগুলো মাথা থেকে সড়িয়ে ফেলতে আমার কিছু সময়ের প্রয়োজন রয়েছে। কিন্তু তারপরেও ব্যস্ত সূচীতে সব কিছু থেকে বেরিয়ে আসতেই হবে। বিশেষ করে এখন আমাদের সামনে মূল লক্ষ্য সিরি-এ টেবিলের শীর্ষস্থান নিশ্চিত করা।'

জুভেন্টাসকে এখন পর্তুগীজ সুপাস্টার ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো ও ইন-ফর্ম আলভারো মোরাতাকে নিয়ে নতুন করে ভাবতে হচ্ছে। গত ২৫ বছর ধরে সর্বাত্মক চেষ্টা করেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সফল হতে পারেনি তুরিনের জায়ান্টরা। গত মৌসুমে ফরাসি ক্লাব লিঁওর কাছে ধরা পড়ার পর এবারও নক আউট পর্বের শুরুতেই বিদায় নিতে হলো।

পোর্তোর অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার পেপে বলেছেন, ‘সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আজ আমরা সফল হয়েছি, এই জয়টা আমাদের প্রাপ্য ছিল। ১০ জন নিয়ে খেলেও জুভেন্টাসের মত দলের বিপক্ষে প্রতিরোধ গড়ে তোলাটা সহজ ছিল না। আজ আমরা নিজেদের সত্যিকার ভাবেই প্রমান করেছি। খেলোয়াড়রা দারুন মনোযোগী ছিল, যা ম্যাচটি সহজ করে দিয়েছে।’

জুভেন্টাসের কোচ হিসেবে এটাই পিরলোর প্রথম মেয়াদ। ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরেছিলেন মিডফিল্ডার আর্থার ও ডিফেন্ডার লিওনার্দো বনুচ্চি। কিন্তু অধিনায়ক গিওর্গিও কিয়েলিনি ইনজুরির কারণে আর দানিলো নিষেধাজ্ঞার কারণে বেঞ্চেই ছিলেন। ম্যাচের শুরুতেই মোরাতার হেড দারুণভাবে রুখে দেন পোর্তো গোলরক্ষক অগাস্টিন মারচেসিন। টারেমির শট ক্রসবারে লেগে ফেরত আসে। ১৯ মিনিটে মেরি ডেমিরাল বক্সের ভিতর টারেমিকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় পোর্তো। স্পট কিক থেকে অলিভিয়েরা কোন ভুল করেননি। সিজিনসিকে ভুল দিকে পাঠিয়ে অলিভিয়েরা বল জালে জড়ালে সফরকারীরা সব মিলিয়ে ৩-১ গোলের লিড পায়। এরপর বেশ কয়েকবার মারচেসিন পোর্তোকে রক্ষা করেছেন। ২৬ মিনিটে মোরাতা ও মিনিটখানেক পর রাবোয়িতকে রুখে দিয়ে নিজের যোগ্যতার প্রমান দেন এই আর্জেন্টাইন।

বিরতির পর ৪৯ মিনিটে রোনাল্ডোর সহায়তায় চিয়েসার কার্লিং শট জুভেন্টাসকে ম্যাচে ফেরার স্বপ্ন দেখায়। এরপরই দুই মিনিটের ব্যবধানে দুটি হলুদ কার্ড দেখে টারেমি মাঠত্যাগ করেন। ইরানিয়ান এই স্ট্রাইকারের অনুপস্থিতিতেও পোর্তো পিছু হটেনি। তবে হুয়ান কুয়াড্রাডোর ক্রসে মারচেসিনকে পরাস্ত করে চিয়েসা জুভেন্টাসকে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-৩ গোলের সমতায় ফেরান। ম্যাচ শেষের ১২ মিনিট আগে কুয়ড্রাডোর পাস থেকে রোনাল্ডো চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজের গোলসংখ্যা ১৩৪ থেকে বাড়াতে ব্যর্থ হন। একেবারে শেষ মুহূর্তে চিয়েসাকে হ্যাটট্রিক করতে দেননি মারচেসিন, মোরতার গোল অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে গেলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

অতিরিক্ত সময়ের ১৫ মিনিটে মুসা মারেগার হেড রুখে দিয়ে সিজিসনি পোর্তোকে ম্যাচের সেরা সুযোগ থেকে বঞ্চিত করেন। কিন্ত ১১৫ মিনিটে অলিভিয়েরার ফ্রি-কিক আটকানোর সাধ্য ছিলনা সিজিসনির। দুই মিনিট পর রাবোয়িতের হেডে জুভেন্টাস ম্যাচে ফিরলেও গোলটি শুধু সান্তনাই দিয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD