চট্টগ্রামে জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ

চট্টগ্রামে জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ

চট্টগ্রাম টেস্ট জিততে ম্যাচের পঞ্চম ও শেষ দিনে বাংলাদেশের দরকার ৭ উইকেট। আর ওয়েস্ট ইন্ডিজের করতে হবে আরও ২৮৫ রান। বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেয়া ৩৯৫ রানের টার্গেটে চতুর্থ দিন শেষে ৩ উইকেটে ১১০ রান করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

এর আগে অধিনায়ক মুমিনুল হকের সেঞ্চুরিতে ৮ উইকেটে ২২৩ রান তুলে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বড় টার্গেট দেয় বাংলাদেশ। ১১৫ রান করে আউট হন মুমিনুল।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে তৃতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেটে ৪৭ রান করেছিলো বাংলাদেশ। এমন অবস্থায় ৭ উইকেট হাতে নিয়ে ২১৮ রানে এগিয়েছিলো টাইগাররা। প্রথম ইনিংস থেকে ১৭১ রানের লিড পায় বাংলাদেশ।

আজ মোমিনুল ৩১ ও মুশফিকুর রহিম ১০ রান নিয়ে খেলতে নামেন। আরও ৮ রান যোগ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্পিনার রাকিম কর্নওয়ালের বলে ব্যক্তিগত ১৮ রানে থামেন মুশফিক। এরপর লিটন দাসকে নিয়ে দলের স্কোর ও লিড বাড়িয়েছেন মুমিনুল। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের সামনে প্রতিরোধ গড়ে ৬১তম ওভারের চতুর্থ বলে ৪১তম টেস্টে ১০তম সেঞ্চুরি পুরন করেন টাইগার দলপতি।

১৭৩ তম বলে কিন অংকে পা দিয়ে দেশের ক্রিকেট ইতিহাসে লংগার ভার্সনে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির মালিক বনে যান মুমিনুল। পেছনে ফেলেন ৯ সেঞ্চুরি করা সতীর্থ তামিম ইকবাল। ১০টি সেঞ্চুরির সবগুলোই দেশের মাটিতে করেছেন মুমিনুল। এরমধ্যে ৭টিই করেছেন এই ভেন্যুতে (চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম)।

মুমিনুলের সেঞ্চুরির পর প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন লিটন। টেস্ট ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ হাফ-সেঞ্চুরি তুলে ১১২ বলে বাউন্ডারিতে ৬৯ রানে আউট হন তিনি। পঞ্চম উইকেটে মোমিনুল-লিটন ২১১ বলে ১৩৩ রান যোগ করেন।

লিটনের বিদায়ের পরই মোমিনুলের ১১৫ রানের নান্দনিক ইনিংসের সমাপ্তি ঘটে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার শ্যানন গাব্রিয়েলের বলে শিকার হবার আগে ১৮২ বল খেলে ১০টি চার মারেন তিনি। এরপর মেহেদি হাসান মিরাজ ৭, তাইজুল ইসলাম ৩ রান করে আউট হন। তাইজুলের আউটের পরই ইনিংস ঘোষনা করে বাংলাদেশ। ১ রানে অপরাজিত থাকেন নাইম হাসান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই স্পিনার কর্নওয়াল-ওয়ারিকান ৩টি করে ও গাব্রিয়েল ২টি উইকেট নেন।

ইনিংস ঘোষনা করে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জয়ের জন্য ৩৯৫ রানের টার্গেট দেয় বাংলাদেশ। সেই লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালোই ছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ১৬ ওভার বিপদ ছাড়াই পার করেন দেন দুই ওপেনার অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ও জন ক্যাম্পবেল।

তবে ১৭তম ওভারের প্রথম বলে ক্যাম্পবেলকে ২৩ রানে থামিয়ে বাংলাদেশকে প্রথম ব্রেক-থ্রু এনে দেন মিরাজ। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্কোর বোর্ডে ২০ রান যোগ আরও ২ উইকেট তুলে নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে চাপে ফেলেন মিরাজ। ব্র্যাথওয়েট ২০ ও শায়নে মোসলে ১২ রান আউট হন।

এনক্রুমার বোনার ১৫ ও কাইল মায়ারস ৩৭ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেন। বাংলাদেশের মিরাজ ১৬ ওভারে ৫২ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD