আবাহনীর ড্র মোহামেডানের হার

আবাহনীর ড্র মোহামেডানের হার

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে বসুন্ধরা কিংস। অন্য ম্যাচে ১-১ গোলে ড্র করেছে ঢাকা ‌ও চট্টগ্রাম আবাহনী।

কুমিল্লার ধীরেন্দ্রনাথ দ্ত্ত স্টেডিয়ামে, মোহামেডানের রক্ষণে চাপ ধরে রেখে খেলার ৯ মিনিটে এগিয়ে যায় বসুন্ধরা কিংস। জোনাথন দি সিলভেইরা ফের্নান্দেসের ক্রসে আর্জেন্টাইন বংশোদ্ভূত চিলিয়ান ফরোয়ার্ড রাউল অস্কার বেসেইরা হেডের মাধ্যমে দলকে এগিয়ে দেন।

পিছিয়ে পড়া মোহামেডান গোল শোধে মরিয়া হয়ে ওঠে। আগের ম্যাচে আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে ২-২ ড্র করা শন লেনের দল ২২ মিনিটে পেয়েও যায় কাঙ্ক্ষিত গোল। মোহাম্মদ আতিকুজ্জামানের লম্বা থ্রো বসুন্ধরার গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো ফেরালেও পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ডি-বক্সের জটলার ভেতর থেকে দারুণ টোকায় লক্ষ্যভেদ করেন আবিওলা নুরাত। ম্যাচে ফেরে ১-১ গোলের সমতা। 

কিন্তু এরপর আর বসুন্ধরার সাথে পেরে ওঠেনি মোহামেডান। প্রথমার্ধের শেষ দিকে রবসন দি সিলভা রবিনহো নিখুঁত চিপে আবার‌ও এগিয়ে দেন বসুন্ধরা কিংসকে। ৬ গোল নিয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে প্রতিআক্রমণ থেকে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে নেয় ২০১৮-১৯ মৌসুমের লিগ চ্যাম্পিয়নরা। বিশ্বনাথ ঘোষকে পাস বাড়িয়ে এক ছুটে ডি-বক্সে ঢুকে যান ফের্নান্দেস। বিশ্বনাথের ফিরতি আড়াআড়ি ক্রস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে মাপা শটে লক্ষ্যভেদ করেন ফের্নান্দেস নিজেই। লিগে প্রথম গোল পেলেন ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ড।

৮১ মিনিটে বেসেরার স্পট কিক পোস্টের ভেতরের দিকে লেগে জালে জড়ালে পঞ্চম জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বসুন্ধরা কিংসের। ডি-বক্সে চিলির এই ফরোয়ার্ডকে জাফর ইকবাল ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। এতে টানা পাঁচ জয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে রয়েছে বসুন্ধরা। 

এদিকে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে, চট্টগ্রাম আবাহনীর সাথে ১-১ গোলে ড্র করেছে ঢাকা আবাহনী। খেলার ৩১ মিনিটে ফিলহোর স্পট কিকে গোলের অপেক্ষা ফুরায় আবাহনীর। বক্সে এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডকে ফাউল করেছিলেন শাকের উল্লাহ।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সমতার স্বস্তি ফিরে আগের ম্যাচে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের কাছে হেরে আসা চট্টগ্রাম আবাহনীর শিবিরে। রাকিব হোসেনের হেড টুটুল হোসেন বাদশার হাতে লাগলে পেনাল্টি দেন রেফারি। লক্ষ্যভেদ করেন গুইলের্মে।

৬২ মিনিটে জুয়েল রানাকে ডি-বক্সের একটু উপরে মঞ্জুরুর রহমান মানিক ফাউল করলে ফ্রি কিক পায় আবাহনী। কিন্তু ফিলহোর পারেননি দলকে এগিয়ে নিতে। দ্বিতীয়ার্ধের শেষ দিকে ডি-বক্সে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে চার্লস দিদিয়েরের সঙ্গে নাসির উদ্দিন চৌধুরির একটু সংঘর্ষ হলে পেনাল্টি পায় চট্টগ্রাম আবাহনী। গুইলের্মের শট ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে ফেরান শহীদুল আলম সোহেল।

যোগ করা সময়ে ওয়ান টু ওয়ান পজিশনে রাকিব শট নেওয়ার আগেই দ্রুত ছুটে এসে স্লাইড করে আবারও আবাহনীর ত্রাতা সোহেল।

এতে টানা তিন জয়ের পর টানা দুই ম্যাচ পয়েন্ট ভাগাভাগি করল আবাহনী। পাঁচ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট মারিও লেমোসের দলের। সমান ম্যাচে ৭ পয়েন্ট চট্টগ্রাম আবাহনীর।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD