মেসির গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা

মেসির গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা

দুই ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে কাল কোপা ডেল রে’র ম্যাচে মাঠে ফিরেছিলেন বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসি। আর তার এই ফেরাটাকে মোটেই ম্লান হতে দেননি বার্সা সতীর্থরা। রায়ো ভায়েকানোকে ২-১ গোলে পরাজিত করে কোপা ডেল রে’র কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে কাতালান জায়ান্টরা।

রিয়াল মাদ্রিদ ও এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ ইতোমধ্যেই ঘরোয়া এই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে। আরো একটি অঘটনের জন্ম হতে পারতো কাল মাদ্রিদের এস্তাদিও ডি ভায়েকাসে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ফ্র্যান গার্সিয়া গোল করে আকস্মিক ভাবেই এগিয়ে যায় রায়ো। কিন্তু আঁতোয়ান গ্রীজম্যানের পাস থেকে মেসি ম্যাচে সমতা ফেরানোর পর জোর্দি আলবার সহায়তায় ফ্রেংকি ডি জং সফরকারীদের জয় উপহার দেন।

২০১৯ সালে শীর্ষ লিগ থেকে অবনমনের পর স্পেনের দ্বিতীয় টায়ারের লিগ সেগুন্ডাতে চতুর্থ স্থানে রয়েছে রায়ো। ৩০ বারের কোপা ডেল রে চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনার বিপক্ষে তাদের জয়টা হতে পারতো ক্লাবের অন্যতম স্বরণীয় এক জয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তেমন কিছুই ঘটেনি।

বার্সা কোচ রোনাল্ড কোম্যান দলের এই জয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিতের পথে দুই ম্যাচ পর মাঠে নেমেও সেই মেসিই দলকে টেনে তুলেছেন। সব মিলিয়ে এবারের মৌসুমে আর্জেন্টাইন এই তারকার গোলসংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫।

স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে এ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কাছে পরাজয়ের ম্যাচটির একেবারে শেষ মুহূর্তে প্রতিপক্ষ এক ডিফেন্ডারের সাথে অশোভন আচরণের দায়ে লাল কার্ড পেয়েছিলেন মেসি। পরবর্তীতে তাকে দুই ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয়। মূল দলে সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি রিকুই পুইগ, ফ্রান্সিসকো ট্রিনকাও ও জুনিয়র ফিরপো। যে কারনে ৬৩ মিনিটে রায়ো লিড নেবার সাথে সাথেই এই তিনজনকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন কোম্যান। তবে বার্সা কোচের আস্থার পূর্ণ প্রতিদান দিয়েছেন ডাচ মিডফিল্ডার ডি জং। কোম্যান বলেছেন, ‘এখন সে পরিপূর্ণ একজন খেলোয়াড় হিসেবে নিজেকে প্রমান করেছে। পিছন থেকে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে সঠিক সময়ে সে সতীর্থদের দারুণ কিছু সুযোগ তৈরী করে দিচ্ছে। এমনকি নিজেও গোল করছে। আমরা এখনো কোপা ডেল রে’তে টিকে আছি এবং লিগেও নিজেদের সঠিক পথেই এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আমাদের এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে।’

শেষ আটে বার্সার সাথে কাল আরো যোগ দিয়েছে সেভিয়া। ধুকতে থাকা ভ্যালেন্সিয়াকে তারা ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে। ঘরোয়া কাপ থেকে বিদায় নেবার পর ভ্যালেন্সিয়া এখন লা লিগার রেলিগেশন থেকে বাঁচার চেষ্টা করবে।

মঙ্গলবার শেষ আট নিশ্চি করেছিল রিয়াল বেটিস, ভিয়ারিয়াল ও লেভান্তে।

প্রথমার্ধে বার্সেলোনা দুইবার পোস্টে বল লাগালে হতাশ হতে হয় কোম্যানকে। ডি জংয়ের ফ্লিক ক্রসবারে লেগে ফেরত আসে, পুইগের শটও পোস্টে লাগে, ট্রিনকাওয়ের শট অল্পের জন্য পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়। কিছুটা পিছন থেকে মেসি বল সংগ্রহ করে অনেকটাই ভিতরে ঢুকে পড়লেও রায়োর আগ্রাসী রক্ষনভাগের সামনে তাকে হতাশ হয়েই ফিরতে হয়েছে। 

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে মেসির কার্লিং ফ্রি-কিক ক্রসবারে লেগে ফেরত আসলে আবারো ভাগ্য সহায় হয় রায়োর। কিন্তু নিজেদের প্রথম সুযোগটা কোনভাবেই হাতছাড়া হতে দেয়নি স্বাগতিক রায়ো। আলভারো গার্সিয়ার ক্রস বার্সা গোলরক্ষক নেটো ধরতে গিয়ে ব্যর্থ হলে ফ্র্যান গার্সিয়া ৬৩ মিনিটে বল জালে জড়ান। 

এক গোলে পিছিয়ে থেকে সাথে সাথে পুইগ, ফিরপো ও ট্রিনকাওয়ের পরিবর্তে কোম্যান মাঠে নামান জোর্দি আলবা, পেড্রি ও ওসমানে ডেম্বেলেকে। ৬৯ মিনিটে গ্রীজম্যানের সহায়তায় মেসি বার্সেলোনাকে সমতায় ফেরান। বদলী খেলোয়াড় ডি জং ম্যাচ শেষের ১০ মিনিট আগে আলবার এসিস্টে দলের জয় নিশ্চিত করেন। গত সাত ম্যাচে এটি ডি জংয়ের চতুর্থ গোল।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD