বড় লিডের পথে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

বড় লিডের পথে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

বোলিং নৈপুন্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ২৫৭ রানে অলআউট করলেও ব্যাটিং ব্যর্থতা প্রদর্শন করলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) একাদশের ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ইনিংসে ১৬০ রানে অলআউট হলো বিসিবি একাদশ। ৪৭ রানে ৫ উইকেট নিয়ে বিসিবি একাদশকে দ্রুত গুটিয়ে দিতে বড় ভূমিকা রাখেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্পিনার রাকিম কর্নওয়াল।

ফলে প্রথম ইনিংসে ৯৭ রানের লিড পায় সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই লিডকে তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের দ্বিতীয় দিন শেষে ২৭৬ রানে নিয়ে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হাতে এখনো ৫ উইকেট রয়েছে তাদের। দ্বিতীয় ইনিংসে দিন শেষে ৫ উইকেটে ১৭৯ রান তুলেছে ক্যারিবীয়রা।

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিনই ২৫৭ রানে অলআউট হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিসিবি একাদশের ১৮ বছর বয়সী লেগ-স্পিনার রিশাদের স্পিন বিষে গুটিয়ে যায় সফরকারীরা তারা। ৭৫ রানে ৫ উইকেট নেন রিশাদ।

রিশাদের ভেলকির দিন ৮ ওভার ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছিলো বিসিবি একাদশ। বিনা উইকেটে ২৪ রান করেছিলো তারা। ফলে প্রথম দিন শেষে ১০ উইকেট হাতে নিয়ে ২৩৩ রানে পিছিয়েছিলো বিসিবি একাদশ।

চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে আজ দ্বিতীয় দিনের পঞ্চম বলেই বিসিবি একাদশের উদ্বোধনী জুটি ভাঙ্গে। ১৫ রান দিয়ে শুরু করে সেখানেই কেমার রোচের শিকার হন ওপেনার সাইফ হাসান। এরপর তিন নম্বরে নামা মোহাম্মদ নাইমকে নিয়ে ৭৪ রানের জুটি গড়ে দলকে ভালো অবস্থায় নিয়ে যান আরেক ওপেনার সাদমান ইসলাম। এরমধ্যে ওয়ানডে স্টাইলে ব্যাট করেছেন নাইম। ৯টি চারে ৪৮ বলে ৪৫ রান করে থামেন নাইম। তাকে শিকার করে নাইম-সাদমানের ৭৪ রানের জুটি ভাঙ্গেন কর্নওয়াল।

দলীয় ৯৮ রানে দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে কর্নওয়ালের আউটের পর বিসিবি একাদশের ব্যাটিং অর্ডারে ধস নামে। বাকী ৮ উইকেটে ৬২ রান যোগ করতে পারেন বিসিবি একাদশ।

কর্নওয়ালের সাথে বাঁ-হাতি স্পিনার জোমেল ওয়ারিকান বাংলাদেশের সর্বনাশ করেন। মিডল-অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে শিকারের মাধ্যমে  বিসিবি একাদশের মেরুদন্ড ভেঙ্গে দেন ওয়ারিকান। শাহাদাত হোসেন ১৩, অধিনায়ক নুরুল হাসান ৩০ ও তৌহিদ হৃদয় ৭ রান করে ওয়ারিকানের শিকার হন।

আর নাইমের পর ইয়াসির আলি ১, আকবর আলি ৫, মাহমুদুল হাসান জয় ৪ ও শেষ ব্যাটসম্যান খালেদ আহমেদকে খালি হাতে আউট করেন কর্নওয়াল। মাঝে ওপেনার সাদমানকে ২২ রানে তুলে নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরেক পেসার আলজারি জোসেফ। কর্নওয়ালে সাথে ওয়ারিকান ২৫ রানে ৩টি, দলের দুই পেসার রোচ-জোসেফ ১টি করে উইকেট নেন।

দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে চতুর্থ বলেই উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বিসিবি একাদশের পেসার খালেদ আহমেদ খালি হাতে বিদায় দেন শেন মোসলেকে। এরপর ওপেনার জন ক্যাম্পবেল ও এনক্রমার বোনার ১২৯ রানের জুটি গড়েন। এই জুটি ভাঙ্গেন অফ-স্পিনার সাইফ। ৯টি চারে ৬৮ রান করেন ক্যাম্পবেল।

চার নম্বরে নামা জার্মেই ব্ল্যাকউডকে ৪ রানের বেশি করতে দেননি সাইফ। এছাড়া কাইল মায়ারসকে ৮ রানে অফ-স্পিনার তৌহিদ হৃদয় ও কাভেম হজকে ১৯ রানে শিকার করেন পেসার মুকিদুল ইসলাম। তবে এক প্রান্ত আগলে অপরাজিত ৮০ রানে দিন শেষ করেছেন বোনার। বিসিবি একাদশের সাইফ ২টি, খালেদ-মুকিদুল ও হৃদয় ১টি করে উইকেট নিয়েছেন।    

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

ওয়েস্ট ইন্ডিজ : ২৫৭ ও ১৭৯/৫, ৪৮ ওভার (বোনার ৮০*, ক্যাম্পবেল ৬৮, সাইফ ২/৩২)।

বিসিবি একাদশ : ১৬০/১০, ৪৭.৪ ওভার (নাইম ৪৫, নুরুল ৩০, কর্নওয়াল ৫/৪৭)।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD