টেস্টে ভালো খেলার আশা বাংলাদেশের

টেস্টে ভালো খেলার আশা বাংলাদেশের

গতকাল শনিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৮ সদস্যের টেস্ট স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেখানে জায়গা হয়েছে পাঁচজন পেসারের। প্রায় ১ বছর পরে টেস্ট খেলতে নামার আগে মূলত ইনজুরির কথা মাথায় রেখেই এতজন পেসারকে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের দ্বিতীয় দিনেই স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়েছে। সেই ম্যাচে দারুণ বোলিং করা খালেদ আহমেদের জায়গা হয়নি টেস্ট স্কোয়াডে। যদিও হাসান মাহমুদ ছাড়া নতুন কোন চমক নেই বিশাল এই বহরে।

বিগত কয়েক সিরিজের নিয়মিত মুখ আবু জায়েদ রাহী ও এবাদত হোসেন আছেন স্কয়াডে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বেঞ্চ শক্তি বাড়ানো তাসকিন আহমেদও আছেন দলে। ২০১৭ সালে সাদা পোশাকে সর্বশেষ মাঠে নেমেছিলেন তিনি। সঙ্গে রয়েছে মুস্তাফিজুর রহমানও।

করোনা মহামারীর এই সময়ের সঙ্গে সবাইকে ভবিষ্যত সফরের কথা মাথায় রেখেই বড় এই দল ঘোষণা করেছেন বলে জানিয়েছেন নান্নু। একই সঙ্গে বিদেশের মাটিতে পেসারদের প্রস্তুত রাখতেই দলে এতজন পেসার আছে বলে জানিয়েছেন তিনই।

পাঁচ পেসার সম্পর্কে নান্নু বলেন, 'টিমের মধ্যে স্পিনার, পেস বোলার সবাইকেই রেডি রাখতে হয়। কারণ আমরা যখন পুল তৈরি করি তখন কিন্তু শুধু একটা টেস্ট ম্যাচ মাথায় রেখে টিম করা হয়না। এটা সামনের কথা ভেবে, বিদেশের মাটিতে খেলার বিষয় মাথায় রাখা হয়। তারপরও হোম সয়েলে স্পিনারটাই আমরা বেশি খেলি। কম্বিনেশনটা যেন ঠিক থাকে, বোলারদের স্ট্যান্ডার্ড যেন ঠিক থাকে সেভাবেই ভারসাম্য রাখা হয়।

'এখানে পাঁচ জন পেসার রাখা হয়েছে কারণ অনেকদিন পর আমরা টেস্ট খেলতেছি, যেকোন সময় যে কেউ ইনজুরিতে পড়তে পারে। পাঁচ দিনের টেস্ট শেষে আপনি বলতে পারেন না যে তাদের স্ট্যামিনা একই রকম থাকবে। সে হিসেবে তাদের ফিটনেস লেভেলের কথা চিন্তা করে আমরা পাঁচ জন পেসার রেখেছি। আশা করি সবার ফিটনেস লেভেলটা ভালো অবস্থায় আছে এবং দুটো টেস্টেই তাদের ভালো অবস্থানে পাবো', তিনি যোগ করেন।

স্কোয়াডের পেসারেদের মধ্যে একাদশে কতজন থাকবে তা এখনো নিশ্চিত নয় বলে জানিয়েছেন নান্নু। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন,'আমরা হোম সয়েলে সবসময় যেভাবে খেলি সেভাবেই খেলি। এটা এখনই বলা মুশকিল, ২৪ ঘন্টা আগে টিম ম্যানেজমেন্ট একাদশ চূড়ান্ত করবে। কয়টা স্পিনার, কয়টা সিমার নিয়ে খেলবে এটা তখনই সিদ্ধান্ত হবে। আগাম বলা মুশকিল যে কখন কাকে খেলানো হবে।'

আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ১১ ফেব্রুয়ারী মিরপুরে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলে সফর শেষ করবে ক্যারিবীয়রা।

" class="prev-article">Previous article

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD