সান্ত্বনার জয় ভারতের

সান্ত্বনার জয় ভারতের

অস্ট্রেলিয়াকে ১৩ রানে হারিয়ে সান্ত্বনার জয় পেল ভারত। অবশ্য তিন ম্যাচের প্রথম দুই জয়ে আগেই সিরিজ জিতে নিয়েছে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। আজ শেষ ম্যাচে ভেন্যু ছিল ক্যানবেরার মানুকা ওভাল। স্বাভাবিকভাবেই জিততে মরিয়া ছিলেন বিরাট কোহলি।

টস জিতে আগে ব্যাট করা সিরিজের এই ম্যাচে ভারত যেমন জয়ের দেখা পেয়েছে, তেমনি ম্যাচটাও হয়েছে জমজমাট। আগে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়াকে ৩০৩ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল ভারত। আগের দুই ম্যাচেই প্রায় ৪০০ রান তোলা অস্ট্রেলিয়ার জন্য এ লক্ষ্য অনেকের কাছে মামুলি মনে হতেই পারে। কিন্তু খেলাটা ক্রিকেট আর প্রতিদিনই তো সবার সমান যায় না। অধিনায়ক ফিঞ্চের ব্যাট থেকে এসেছে ৭৫।

মিডলঅর্ডারে কেউ দাঁড়াতে পারেননি। সাতে নামা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল আরেকটু হলেই ভারতকে ধবলধোলাই করতে পারতেন। কিন্তু ৪৪.৩ ওভারে ম্যাক্সওয়েল বুমরার বলে বোল্ড হতেই ঘুরে যায় ম্যাচের মোড়। ৪ ছক্কা ও ৩ চারে ৩৮ বলে ৫৯ রান করেন ম্যাক্সওয়েল। ম্যাক্সওয়েল আউট হওয়ার পর ৩৩ বলে ৩৫ রান দরকার ছিল অস্ট্রেলিয়ার। হাতে ৩ উইকেট। অন্য প্রান্তে অ্যাশটন অ্যাগার থাকায় তখনো আশা ছিল অস্ট্রেলিয়ার।

অ্যাগার স্পিনার হলেও মোটামুটি ভালোই ব্যাট চালাতে জানেন। কিন্তু ৪৭তম ওভারের শেষ বল ও পরের ওভারের প্রথম বলে শন অ্যাবট (৪) ও অ্যাগারকে (২৮) তুলে নিয়ে জয়ের পাল্লা নিজেদের দিকে ভারী করে ভারত। উইকেটে তখন অস্ট্রেলিয়ার শেষ উইকেট জুটি অ্যাডাম জাম্পা ও জশ হ্যাজলউড। জিততে হলে শেষ ওভারে দরকার ১৫ রান। ডেথ ওভারে ভারতের সেরা বোলার যশপ্রীত বুমরাকে আক্রমণে আনেন কোহলি। তৃতীয় বলে জাম্পাকে এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলে ভারতকে ১৩ রানের জয় এনে দেন বুমরা।

শেষ ম্যাচটা জিতে অন্তত সিরিজ হারের সান্ত্বনা পেল ভারত। অস্ট্রেলিয়া সিরিজ জিতল ২-১ ব্যবধানে। ভারতের হয়ে ৩ উইকেট শার্দূল ঠাকুরের। ২টি করে উইকেট বুমরা ও নটরাজনের।

এর আগে ভারতের ইনিংস ৩০০ পার হয়েছে ষষ্ঠ উইকেটে রবীন্দ্র জাদেজা ও হার্দিক পান্ডিয়ার অবিচ্ছিন্ন ১৫০ রানের জুটিতে। ৭৬ বলে ৯২ রানে অপরাজিত ছিলেন পান্ডিয়া। অন্য পাশে ৫০ বলে ৬৬ রানে অপরাজিত ছিলেন জাদেজা। কোহলির ব্যাট থেকে এসেছে ৬৩ রান। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ২ উইকেট নেন অ্যাগার।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD