চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬তে মেসিবিহীন বার্সেলোনা

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬তে মেসিবিহীন বার্সেলোনা

দুই ম্যাচ হাতে রেখেইে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬ নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা। মার্টিন ব্রেথওয়েটের জোড়া গোলে গতকাল ডায়নামো কিয়েভকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে নকআউট পর্বের টিকিট পেয়েছে কাতালানরা।

দাপুটে এই জয়ে অবশ্য সঙ্গী হতে পারেননি লিওনেল মেসি। তাকে বিশ্রামে রাখা হয়েছিল। কিন্তু দলের মূল স্ট্রাইকারের অনুপস্থিতিতে বাকি কাজটুকু সেরেছেন ব্রেথওয়েট, সার্জিনো ডেস্ট ও বদলী আঁতোয়ান গ্রিজম্যান। বড় এই জয়ে গ্রুপ-এইচ থেকে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা, তাদের সাথে পরের রাউন্ডে গেছে আরেক জায়ান্ট জুভেন্টাস। কাল গ্রুপের আরেক ম্যাচে ফেরেনভারোসকে ২-১ গোলে পরাজিত করে শেষ ১৬ নিশ্চিত করেছে ইতালিয়ান দলটি। চার ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে জুভেন্টাস। বার্সেলোনার সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট। আগামী সপ্তাহে ফেরেনভারোসের মোকাবেলা করবে বার্সা। নক আউট পর্ব নিশ্চিত হয়ে গেলেও গ্রুপের প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে বার্সা ও জুভকে। তুরিনে ঘরের মাঠে আলভারো মোরাতার শেষ মুহূর্তের গোলে হাঙ্গেরির দল ফেরেনভারোসকে ২-১ গোলে পরাজিত করেছে জুভেন্টাস।

ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ রোনাল্ড কোম্যান বলেছেন, ‘আমরা আমদের লক্ষ্য অর্জন করেছি। আজ আমাদের গোলের ক্ষুধা ছিল এবং সে কারণেই একে একে চার গোল করেছি। গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের আজ বিশ্রাম দেয়া হয়েছিল। সেই সুযোগে তরুণদের সামনে নিজেদের প্রমানের সুযোগ এসেছিল।’

প্রথম তিন ম্যাচ থেকে সর্বোচ্চ পয়েন্ট অর্জন করার পর কোম্যান কিয়েভে মেসি, ফ্রাঙ্ক ডি জংদের দলের বাইরে রাখার সাহস দেখিয়েছিলেন। জর্ডি আলবা ও গ্রিজম্যান ছিলেন সাইডবেঞ্চে। তার পরিবর্তে অনেকটাই তারুণ্যনির্ভর দল নির্বাচন করেছিলেন কোম্যান। সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার হিসেবে সিনিয়র দলে অভিষেক হয়েছে ওস্কার মিনগুয়েজার। এছাড়াও মূল একাদশে ছিলেন ফ্রান্সিসকো ট্রিনকাও, পেড্রি ও কার্লেস এলিনা। ম্যাচের শেষের দিকে কোনার্ড ডি ফুয়েন্টে ও ম্যাথিউস ফার্নান্দেসেরও অভিষেক হয়েছে।

ডায়নামোর থেকে আরো কঠিন প্রতিপক্ষ অবশ্যই মোকাবেলা করতে হবে বার্সেলোনাকে। কিন্তু ২১ বছর বয়সী মিনগুয়েজা তার নিজস্ব দক্ষতা দিয়ে অন্তত এটুকু প্রমান করতে পেরেছেন যে বার্সেলোনার বর্তমান ভঙ্গুর রক্ষণভাগে তার উপর কিছুটা হলেও নির্ভর করা যায়। জেরার্ড পিকে, স্যামুয়েল উমতিতি ও রোনাল্ড আরাজো ইনজুরির কারণে দলের বাইরে রয়েছেন। কোম্যানও মিনগুয়েজার দক্ষতার কথা স্বীকার করেছেন।

দ্বিতীয়ার্ধে ১৩ মিনিটের মধ্যে ব্রেথওয়েট দুই গোল করে বার্সার জয় নিশ্চিত করেন। এর মধ্যে দ্বিতীয়টি ছিল পেনাল্টি থেকে। তার এই দুই গোলে বার্সেলোনা ৭০ মিনিটে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায়। এই জয়ের মাধ্যমে বার্সা ইউরোপে নিজেদের দুর্দান্ত ফর্ম ধরে রাখলো। বিশেষ করে লা লিগায় ধুকতে থাকা কাতালান জায়ান্টদের সাথে ইউরোপের বার্সেলোনাকে কেমন যেন মেলানো যাচ্ছেনা। এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের কাছে শনিবার ১-০ গোলে পরাজিত হয়ে বর্তমানে লা লিগা টেবিলের ১২তম স্থানে রয়েছে বার্সা।

অসুস্থতার কারনে শীর্ষ গোলদাতা ভিক্টর টিশানকোভকে হারিয়ে ডায়মানো অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছিল। গত মাসে বার্সেলোনার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে তারা যে ধরনের প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল তার ছিটেফোঁটাও কাল দেখা যায়নি। তৃতীয় স্থান নিশ্চিত করে ইউরোপা লিগে খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য এখন তাদের ফেরেনভারোসের সাথে লড়াই করতে হবে।

প্রথমার্ধে বার্সেলোনাই প্রাধ্যান বিস্তার করে খেলতে থাকে। কিন্তু তারপরেও অপ্রতিরোধ্য ডায়নামো রক্ষনভাগকে ভাঙ্গতে পারেনি। প্রথমার্ধ যে কারনে গোল শুণ্যই থেকেছে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে অবশ্য আর আটকে রাখা যায়নি বার্সাকে। ব্রেথওয়েটের এসিস্টে ডেস্ট জোড়ালো শটে বার্সা ক্যারিয়ারের প্রথম গোল করেন। এলিনার কর্ণার থেকে পাঁচ মিনিট পর ব্রেথওয়েট ব্যবধান দ্বিগুন করেন। আলবার ক্রস থেকে হেড দিতে যাওয়া ব্রেথওয়েটকে ডি বক্সের মধ্যে ধাক্কা দেন ডেনিস পোপোভ। সেখান থেকে প্রাপ্ত পেনাল্টিতে নিজের দ্বিতীয় গোল পূরণ করেন ব্রেথওয়েট। ইনজুরি টাইমে বদলী খেলোয়াড় গ্রীজম্যান বার্সার বড় জয়ে স্কোর শিটে নাম লেখান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD