বড় জয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শুরু বার্সেলোনার

বড় জয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শুরু বার্সেলোনার

হাঙ্গেরীর দল ফেরেনভারোসকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নতুন মৌসুম শুরু করেছে বার্সেলেনো। গত মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে বিধ্বস্ত হয়ে বিদায় নেবার পর এটাই কাতালান জায়ান্টদের প্রথম কোন ইউরোপিয়ান ম্যাচ।

নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে, লিওননেল মেসির পেনাল্টির সাথে ১৭ বছর বয়সী আনসু ফাতি এক গোল করেছেন ও ফিলিপ কুটিনহোকে দিয়ে এক গোল করিয়েছেন। বাকি দুটি গোল এসেছে পেড্রি ও ওসমানে ডেম্বেলের হাত ধরে। ফেরেনভারোসের নরওয়েজিয়ান এ্যাটাকার টোকমাক নগুয়েনকে পেনাল্টি এরিয়ার মধ্যে ফাউলের অপরাধে জেরার্ড পিকে লাল কার্ড পেলে ৬৮ মিনিটের পর থেকে বাকি সময়টা ১০জন নিয়েই খেলতে হয়েছে বার্সেলেনোকে। সফরকারীদের হয়ে এক গোল শোধ করেন ইগর খারাতিন।

আগামী শনিবার রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে মৌসুমের প্রথম এল ক্লাসিকোর আগে কিছুটা হলেও আত্মবিশ্বাস ফিরে এলো বার্সা শিবিরে। বড় এই জয়ে গ্রুপ-জি’এর শীর্ষে থাকলো বার্সেলোনা। কিন্তু পিকের লাল কার্ডের কারণে আগামী সপ্তাহে জুভেন্টাস সফরে দলের এই অভিজ্ঞ ডিফেন্ডারকে পাচ্ছে না রোনাল্ড কোম্যান। এদিকে, ডায়নামো কিয়েভের বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় তুলে নিয়েছে জুভেন্টাস। নতুন কোচ কোম্যানের অধীনে তুরিনের ম্যাচটি হতে পারে বার্সার জন্য সবচেয়ে বড় পরীক্ষা। কিন্তু লিসবনে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হবার অস্বস্তিকর স্মৃতি থেকে ৬৭ দিন পর অন্তত বেরিয়ে তো আসতে পারলো বার্সা খেলোয়াড়রা। ১৮ বছরের কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে চ্যাম্পিন্স লিগে দুটি গোল করা প্রথম খেলোয়াড় এখন আনসু ফাতি। কিন্তু সব মিলিয়ে তরুণদের জন্য বার্সার রাতটা উপভোগ্য হয়ে উঠেছিল। ফাতি ছাড়াও ডানদিকে আঁতোয়ান গ্রিজম্যানের জায়গায় ২০ বছর বয়সী তরুণ পর্তুগিজ এ্যাটাকার ফ্রান্সিসকো ট্রিনকাওকে মাঠে নামিয়েছিলেন কোম্যান। এছাড়া ক্লাবের হয়ে ক্যারিয়ারের প্রথম গোল করেছেন ১৭ বছর বয়সী পেড্রি। এর মাধ্যমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে প্রথম দল হিসেবে স্কোরশিটে এমন দুজন খেলোয়াড়ের নাম ওঠালো বার্সেলোনা যাদের বয়স ১৭ কিংবা তারও কম। কোম্যান অবশ্য বলেছেন গ্রিজম্যানের না খেলার সাথে ক্লাসিকোর কোন সম্পর্ক নেই।

ডায়নামো ও টটেনহ্যামের সাবেক স্ট্রাইকার সার্জি রেবরোভের অধীনে খেলতে নামা ফেরেনভারোস ১১ বছরের মধ্যে প্রথম হাঙ্গেরিয়ান দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। ম্যাচের শুরুতে তারা বেশ কয়েকটি সুযোগ সৃষ্টি করেছিল। এনগুয়েনের একটি শট অফসাইডের কারনে বাতিল হয়ে যায়। ইসায়েল মাত্র আট গজ দুর থেকে শট ক্রসবারে লাগান। কিন্তু একইসাথে বার্সাও ছিল অপ্রতিরোধ্য। তৃতীয় প্রচেষ্টায় গোল করে মেসি অবশেষে ২৭ মিনিটে স্পট কিক থেকে বার্সাকে এগিয়ে দেন। এনিয়ে টানা ১৬ মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গোলের কৃতিত্ব দেখালেন আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। ডানদিক থেকে ট্রিনকাওয়ের বাড়ানো ক্রসে ফাতির শট দারুন দক্ষতায় আটকে দেন সফরকারী গোলরক্ষক ডেনেস ডিবাস।

এরপর মেসির একটি শট ক্রসবারে লেগে ফেরত আসে। এলডার সিভিকের হাত ধরে ফেরেনভারোস সমতা ফেরাতে ব্যর্থ হলে ৪২ মিনিটে ফ্রেংকি ডি জংয়ের সহায়তায় ফাতি ব্যবধান দ্বিগুন করেন। বিরতির ঠিক পরপরই ফাতির অসাধারন এসিস্টে কুটিনহো দলের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন। খারাতিন স্পট কিক থেকে এক গোল পরিশোধ করলে তা কোন কাজে আসেনি। বদলী খেলোয়াড় হিসেবে পেড্রি ৮২ মিনিটে চতুর্থ গোলটি করার পর ম্যাচ শেষের মিনিটখানেক আগে ডেম্বেলে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD