২৭ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা যা‌ওয়া হচ্ছেনা টাইগারদের

২৭ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা যা‌ওয়া হচ্ছেনা টাইগারদের

শেষ পর্যন্ত অনিশ্চিতই হয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর। ঝুলে রয়েছে এই সফরের ভাগ্য। লঙ্কা সরকারের বেধে দেয়া নিয়মাবলী মেনে শ্রীলংকায় খেলতে যাওয়া সম্ভব না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বিষয়টি জানিয়ে‌ও দেয়া হয় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডকে (এসএলসি)। তারা‌ও কোনো জবাব দেয়নি।

তবে সিরিজটির বিষয়ে এখনও হাল ছাড়ছেন না বিসিবি। শ্রীলঙ্কার মতামতের ওপর ভিত্তি করে তারপর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানানো হয় বিসিবির তরফ থেকে। শ্রীলঙ্কার জানানো প্রতিক্রিয়ার সঙ্গে যদি কোনো সমণ্বয় করা প্রয়োজন হয় তবে তা করে হলেও সিরিজটি আয়োজন করতে চায় বিসিবি। আজ বুধবার এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘যদি কিছু অ্যাডজাস্টমেন্টের দরকার হয় তাহলে আমরা সেটি করবো এবং সে ব্যাপারে আমাদের প্রাথমিক কথাবার্তা হয়েছে। সেক্ষেত্রে আমরা চেষ্টা করবো যতো দ্রুত সম্ভব এসএলসি আমাদের ফিডব্যাকটা দেয়, সে অনুযায়ী আমরা আমাদের পরিকল্পনা করতে পারবো।’

‘বিষয়টা পুরোটা এসএলসির উপর নির্ভর করছে না। বিষয়টা অনেকটাই নির্ভর করছে তাদের সরকারের যেই সিদ্ধান্ত, কোভিড টাস্কফোর্সের সিদ্ধান্তের ওপর এবং আমরা যতদূর জানতে পেরেছি এসএলসি তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে এবং আমাদের অবস্থানটা বোঝানোর জন্য তারাও চাচ্ছে।’

সেই সঙ্গে বিসিবির প্রধান নির্বাহী এটিও জানান যে দুই বোর্ডই আপ্রাণ চেষ্টা করছে সিরিজটি যাতে হয়। সেই সঙ্গে তিনি আশাবাদী শীঘ্রই এই বিষয়ে চূড়ান্ত ফলাফল জানতে পারবেন তারা।

নিজামউদ্দিন বলেন, ‘আমরা স্পেসিফিক কিছু বিষয় তাদের কাছে জানিয়েছি এবং বিষয়গুলো নিয়ে তারা যেটা বলেছেন তাদের যে কোভিড টাস্কফোর্স আছে, বা অন্যান্য যেই অথরিটি আছে তাদের সঙ্গে কথা বলে, তাদের যে স্বাস্থ্যবিধি রয়েছে সেটি কতটুকু শিথিল করা যায় তা নিয়ে কাজ করছে। তো আমরা আশা করছি শীঘ্রই এই বিষয়গুলো নিয়ে তারা আমাদের জানাতে পারবেন।’

‘এসএলসি এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড যেহেতু আইসিসির সঙ্গে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে কমিটেড তাই বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে আমরা অংশগ্রহণ করবো। সেহেতু আমাদের দুই বোর্ডের ইচ্ছা রয়েছে সিরিজটি আয়োজন করার ব্যাপারে।’

এদিকে চলতি মাসের ২৭ তারিখ লঙ্কার বিমান ধরার কথা থাকলেও সেটি হচ্ছে না টাইগারদের। আগামী অক্টোবরের ২৪ তারিখ ক্যান্ডিতে শুরু হবার কথা রয়েছে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজটি।

এদিকে, গত মার্চে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ দুই রাউন্ডের পরই স্থগিত হয়ে যায় করোনাভাইরাসের কারণে। স্থগিত হয়ে যাওয়ায় এই লিগ চলতি বছর ফের চালু করা কঠিন বলে জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি। প্রিমিয়ার লিগ চালু না করলেও অন্য যে কোনোভাবে দেশের ক্রিকেট ফেরাতে চায় বিসিবি।

নিজামউদ্দিন জানান, আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেট দুটোই ফেরানোর পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন তারা, ‘আমাদের কিন্তু এখনো পর্যন্ত পরিকল্পনা আছে দুটোই পাশাপাশি এগিয়ে নিতে। আমরা এই সফরটাও যদি করি, তারপরও ঘরোয়া ক্রিকেট শুরুর একটা পরিকল্পনা আছে।’

একটি সূত্রে জানা গেছে, শ্রীলঙ্কা সফর হলে জাতীয় লিগ বা বিসিএল দিয়ে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট ফেরানো হতে পারে। আর শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল হয়ে গেলে পরিকল্পনায় আসবে কিছুটা বদল। তখন দেশের শীর্ষ ক্রিকেটারদের তিন, চারটি দলে ভাগ করে আয়োজন করা হতে পারে একটি টুর্নামেন্ট।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD