আইপিএলের টাই ম্যাচে দিল্লির জয়

আইপিএলের টাই ম্যাচে দিল্লির জয়

আইপিএলের দুর্দান্ত এক প্রথম টাই ম্যাচে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে হারিয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। চলতি আইপিএলের দ্বিতীয় ম্যাচটিই নিষ্পত্তি হল সুপার ওভারে।  সুপার ওভারে মাত্র ৩ রানের টার্গেট ৪ বল হাতে রেখেই ছুঁয়ে ফেলে পাঞ্জাব।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে দিল্লি ক্যাপিটালস ৮ উইকেটে সংগ্রহ করে ১৫৭ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে একসময়ে মনে হয়েছিল ম্যাচটা হেরে যাবে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। কিন্তু অন্য কিছু ভেবেছিলেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ৬০ বলে ৮৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন তিনি। শেষ ওভারে জেতার জন্য পাঞ্জাবের দরকার ছিল ১২ রান। স্টোনিসের প্রথম বলই গ্যালারিতে ফেলেন মায়াঙ্ক। যখন মনে হচ্ছে জিতেই যাবে কিংস ইলেভেনকে, ঠিক সেই সময়েই স্টোনিস সাজঘরে ফেরান মায়াঙ্ককে। শেষ বলে আউট হন জর্ডন। তাতে দু' দলের সমান ১৫৭ রান হওয়ায় খেলা গড়ায় সুপার ওভারে। সুপার ওভারে দিল্লির বোলার রাবাদা আগুনে বোলিং করেন। লোকেশ রাহুল ও নিকোলাস পুরানকে আউট করেন রাবাদা। মাত্র ২ রান করে কিংস ইলেভেন। ব্যাট করতে নেমে খুব সহজেই ম্যাচ জিতে নেয় দিল্লি ক্যাপিটালস।

টস জিতে প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেন কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব অধিনায়ক লোকেশ রাহুল। উইকেট বোলিং সহায়ক। সেই কারণেই দিল্লি ক্যাপিটালসকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠিয়ে অল্প রানে আটকে রাখাই উদ্দেশ্য ছিল তাদের। উইকেটে ঘাস থাকায় দিল্লির দুই ওপেনার পৃথ্বী শ ও শিখর ধাওয়ান শুরুতে সুবিধা করতে পারেননি। মোহম্মদ শামি রীতিমতো আতঙ্ক ছড়ান।

তাতে দুবাইয়ে টসে হেরে ব্যাট করে ৬ উইকেট মাত্র ১০০ রান তোলে দিল্লি। কিন্তু শেষ ৩ ওভারে আরো ৫৭ রান যোগ করে, শেষ পর্যন্ত ৮ উইকেটে ১৫৭ রানের লড়াকু স্কোর পায়, দিল্লি ক্যাপিটালস। ২১ বলে সর্বোচ্চ ৫৩ রান করেন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার মার্কাস স্টোনিস। ১৫ রানে ৩ উইকেট নিয়ে আইপিলে নিজের সেরা রেকর্ড গড়েন পাঞ্জাব-পেসার মোহাম্মদ সামি।   

জবাবে, শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং শুরু করেন কিংস অধিনায়ক লোকেশ রাহুল। ১৯ বলে ২১ রান করে মোহিত শর্মার বলে বোল্ড হন তিনি। অশ্বিন বল করতে এসেই ফেরান করুণ নায়ারকে। নিকোলাস পুরানও আউট হন অশ্বিনের বলে। অশ্বিনের বোলিংয়ে কিংস ইলেভেনের উপরে চাপ তৈরি করে দিল্লি। কিন্তু চোট পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তারকা অফস্পিনারকে। 

ম্যাক্সওয়েলকে আউট করে রাবাদা আরও সমস্যায় ফেলে দেন কিংস ইলেভেনকে। সরফরাজ খানের উচিত ছিল উইকেটে পড়ে থাকা। অক্ষর পটেলকে অযথা মারতে গিয়ে নিজের উইকেট ছুড়ে দেন সরফরাজ। মারমুখী ব্যাটিং করছিলেন গৌতম। রাবাদার বলে তাঁকে তালুবন্দি করেন রিশভ পান্ট। শেষ ওভারে স্টোনিসের প্রথম বলে ছক্কা মারেন মায়াঙ্ক। সবাই যখন ধরেই নিয়েছেন মায়াঙ্ক ম্যাচ জেতাবেন কিংসকে, ঠিক সেই সময়ে স্টোনিসের বলে ফেরেন তিনি। শেষ বলে আউট হন জর্ডন। ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। মায়াঙ্ক খেলেন ৬০ বলে ৮৯ রানের ইনি্ংস। কাজে এল না তাঁর চমৎকার ইনিংসটিও। তবে এ রকম ফর্মে থাকা ব্যাটসম্যানকে সুপার ওভারে ওপেন করতে পাঠালো না কেন কিংস ইলেভেন, এটাই এখন তাদের পরাজয়ে রহস্যের ব্যাপার হয়ে রইলো।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD