আইপিএল থেকে নাম প্রত্যাহার করবে ভিভো!

আইপিএল থেকে নাম প্রত্যাহার করবে ভিভো!

আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর চীনা কোম্পানি ভিভো চলতি বছর টুর্নামেন্ট থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিতে পারে। এমন খবরই প্রকাশ করেছে ক্রিকেট বিষয়ক ‌ওয়েবসাইট, ইএসপিএনক্রিকইনফো। গত জুনে ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষের পরই ভিভোর সাথে সম্পর্কচ্ছেদের বিষয়ে জনমত গড়ে ‌ওঠে ভারতে। তবে ভিভো কিংবা আইপিএল কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে এখন‌ও মুখ খোলেনি।

ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষের পর বিসিসিআই জানিয়েছিল স্পন্সরশীপ নিয়ে তারা 'পর্যালোচনা' করবে, কিন্তু কোনো ব্র্যান্ডের নাম জানায়নি। তবে বিসিসিআই ১৯ জুন পোস্ট করা একটি টুইট বার্তায় বলেছে, 'আমাদের সাহসী জওয়ানদের শাহাদাত বরণকারী সীমান্ত সংঘাতের বিষয়টি পর্যালোচনা করে, আইপিএল পরিচালনা কমিটি আগামী সপ্তাহে আইপিএলের বিভিন্ন স্পনসরশিপ চুক্তি পর্যালোচনা করার জন্য একটি সভা আহ্বান করেছে।'

কয়েকদিন আগে বিসিসিআই জানায়, আইপিএল আয়োজনে ভারত সরকারের অনুমতি মিলেছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতেই হচ্ছে আইপিএলের ১৩তম আসর। ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে টুর্ণামেন্টটির ফাইনাল হবে ১০ নভেম্বর।/ ২০১৫ সালে ভিভো ২ বছরের জন্য আইপিএল গর্ভনিং কাউন্সিলের সাথে চুক্তি করেছিল। পরে ৩৪১ মিলিয়ন ডলারে ৫ বছছেরর(২০১৭-২২) চুক্তির মেয়াদ বাড়ায়।

এদিকে, সবচেয়ে বড় খবর হচ্ছে এই মৌসুমের জন্য আইপিএল কর্তৃপক্ষ আগের মতোই তাদের সব স্পন্সর রেখে দিয়েছে। অর্থাৎ এ বছরও আইপিএলের টাইটেল স্পনসর থাকছে চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘ভিভো’। যদিও সম্প্রতি চীন-ভারত সম্পর্কের টানাপোড়েন তৈরি হয়েছে। আইপিএল থেকে চীনা কোম্পানিকে বাদ দেয়ার জন্য ভারত জু্ড়েই আলোচনা শুরু হয়েছিলো। কিন্তু শেষ পযন্ত বিসিসিআই তাদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে চীনা কোম্পানিকেই আইপিএলের টাইটেল স্পন্সর হিসেবে রেখে দিয়েছে।

যা নিয়ে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে প্রতিবাদ। টুইটারে টপ ট্রেন্ডিংয়ে #BoycottIPL। এ প্রতিবাদে এবার শামিল রাজনৈতিক মহলও। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করলেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ।

প্রসঙ্গতঃ ‘ভিভো’, ‘আলিবাবা’, ‘পে-টিএম’সহ সমস্ত চীনা কোম্পানিই ভারতীয় ক্রিকেটে বড় অঙ্কের টাকা ঢালে। ভারতীয় বোর্ডের ‘সোনার হরিণ’ আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ‘ভিভো’। শুধুমাত্র ভিভোই প্রতি বছর আইপিএল আয়োজনের জন্য বিসিসিআইকে দেয় ৪৪০ কোটি রুপি। আর প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজি সেখান থেকে পায় ২০ কোটি রুপি করে।

এসব বিষয় বিবেচনা করে ক্রিকইনফো ধারণা করছে, শেষ পর্যন্ত ভিভো'ই চলতি বছর আইপিএলকে না করে দিতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD