আমাদের ফুটবলকে এশীয় মানে নিতে চাই: মাসুরা পারভীন

আমাদের ফুটবলকে এশীয় মানে নিতে চাই: মাসুরা পারভীন

মাসুরা পারভীন, বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের সেন্টার ব্যাক। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলেছেন কাবাডি। হ্যান্ডবল, ভলিবল, খো খো খেলাতেও ছিল তার পদচারণা। শেষ পর্যন্ত ফুটবলেই বেশি জনপ্রিয় হয়েছেন মাসুরা পারভীন। করোনাভাইরাস মহামারীতে জাতীয় নারী ফুটবল দলের এই সদস্য‌ও অন্যদের মতোই আছেন নিজেতের বাড়ি সাতক্ষীরায়। মিস করছেন ফুটবলকে। তাড়াতাড়ি লিগটা মাঠে গড়ালেই খুশি এই ডিফেন্ডার। তবে কোচের নির্দেশনা অনুযায়ী ঠিকই তিনি ফিটনেস ধরে রাখার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। জানালেন সেই কথাই।

প্রশ্ন: ফিটনেস কীভাবে ধরে রাখছেন?

মাসুরা: বাড়িতে ফিটনেস ধরে রাখাটা একটু কঠিন। তারপরও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ঢাকা থেকে ফিরে প্রথম দিকে বাড়িতেই স্ট্রেচিং, স্কিপিং ও কোর ট্রেনিংগুলো করতাম। এখন আমাদের কিছু সিডিউল দিয়েছেন স্যার-ম্যাডামরা (কোচ) সেগুলো ফলো করছি।

প্রশ্ন: করোনা প্রতিরোধে কী কী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন?

মাসুরা: প্রথমত বিনা দরকারে বাড়ি থেকে বেরই হই না। বাইরে গেলেও মাস্ক ব্যাবহার করি। বাসায় দিনের মধ্যে বেশ ক’বার সাবান দিয়ে হাত ধুই।

প্রশ্ন: লিগ তো স্থগিত হয়ে গেল। এ বিষয়ে কী ভাবছেন?

মাসুরা: সত্যি বলতে দীর্ঘদিন পর আবারও লিগ শুরু হয়েছিল। আমরা বেশ আনন্দে ছিলাম। এখন যে কারণে লিগ বন্ধ হয়েছে তার ওপর তো আর কারও হাত নেই। তবে শুনেছি সেপ্টেম্বরের পর আবারও লিগ শুরু হবে। এর আগে যদি শুরু হতো তাহলে আরও ভাল হতো।

প্রশ্ন: আগে শুরু হলে কী সুবিধা হতো?

মাসুরা: আমরা খেলার মানুষ। খেলার মধ্যেই থাকতে ভালো লাগে। ফুটবলটাকে খুব বেশি মিস করছি। এখন ফেসবুকে খেলার পুরানো ভিডিওগুলো দেখে সময় পার করছি। খুব কষ্ট লাগে। কবে মাঠে ফিরব সে অপেক্ষাতেই আছি।

প্রশ্ন: অনুশীলন তো করেন। আর বাকি সময় কীভাবে পার করছেন?

মাসুরা: ফোনে বান্ধবী ও আত্মীয়-স্বজনের খোঁজ-খবর নেই। অবসরে মোবাইলে গেম খেলি, টিভি দেখি।

প্রশ্ন: ক্রীড়াঙ্গনে অনেক খেলাতেই তো অংশ নিয়েছেন। ফুটবলের শুরুটা কীভাবে?

মাসুরা: ফুটবলের শুরুটা ২০১০ সাল থেকে। তবে ২০১৩ সালে প্লান অনূর্ধ্ব-১৫ বালিকা ট্যালেন্টহান্ট প্রোগ্রামে টিকে যাই। এরপরই ২০১৪ সালে অনূর্ধ্ব-১৬ দলে সুযোগ পাই। এরপর অনূর্ধ্ব-১৭, ১৮, ১৯ ও সিনিয়র দলে খেলেছি।

প্রশ্ন: এবারের লিগে তো আপনি বসুন্ধরা কিংসের হয়ে খেলেছিলেন। সবার ধারণা আপনাদের টিমই শক্তির বিচারে সেরা। দল নিয়ে প্রত্যাশা কী?

মাসুরা: আমরা সব সময় একটা টিম হয়ে খেলতে চেষ্টা করি। অবশ্যই আমাদের দল ভালো। তবে আরও অনেক ভালো দলও এবার আছে। লিগ শুরু হলে আমাদের দলই চ্যাম্পিয়ন হবে এটাই প্রত্যাশা। তবে বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ লিগ হবে বলে আমি মনে করি।

প্রশ্ন: আপনি নিজে একজন ফুটবলার। আপনার প্রিয় খেলোয়াড় তালিকায় কারা আছেন?

মাসুরা: আমার ব্রাজিলের থিয়াগো সিলভার খেলা খুব ভালো লাগে। বাংলাদেশে নারী ফুটবলে তৃষ্ণা চাকমা আর ভারতের বালা দেবী আমার প্রিয় ফুটবলার।

প্রশ্ন: আপনাদের জাতীয় দল নিয়ে কিছু বলুন।

মাসুরা: গত কয়েক বছরে অনেক এগিয়েছে আমাদের দেশের নারী ফুটবল। তারপরও আমাদের ইচ্ছা থাকে সব সময় আগের থেকে ভালো করার। আমাদের দেশের ফুটবলকে এশীয় মানে নিয়ে যেতে চাই।

প্রশ্ন: করোনাতে দেশবাসীর উদ্দ্যেশে কিছু বলতে চান?

মাসুরা: সবাইকে বলব সাবধানে থাকুন। নিজে সুরক্ষিত থাকুন। পরিবারকেও বিপদমুক্ত রাখুন। নিয়ম-কানুন মেনে চলুন। এখনই সময় অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর। তাই সাধ্য অনুযায়ী সবাই চেষ্টা করবেন।

" class="prev-article">Previous article

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD