ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়-সংগঠকদের প্রশংসনীয় উদ্যোগ

ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়-সংগঠকদের প্রশংসনীয় উদ্যোগ

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে দুর্ভোগে থাকা অসহায় নিরন্ন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় ও সংগঠকরা। এই সব অসহায় মানুষের মুখে খাবার তুলে দে‌ওয়ার চেষ্টা করছেন তারা। করোনাভাইরাসের কারণে পুরো দেশই এখন লক ডাউন। বাইরে বের হতে পারছেন না সাধারণ মানুষ। কাজ করতে না পারার কারনে সবচেয়ে বেশী সমস্যায় আছেন নিম্ন আয়ের মানুষেরা। তাই ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় ও সংগঠকরা সেই অবহেলিত মানুষের দু:খ লাঘবের চেষ্টা করছেন।

দেশের ৬টি জেলায় একযোগে কাজ করছেন তারা। জাতীয় শাটলার আম্মার এর নেতৃত্বে পুরো দেশ বিদেশের শাটলার, কোচ,আম্পায়ার ও সংগঠকরা ফান্ড সংগ্রহ করে ত্রান বিতরন করছেন। এবার ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ নিয়েছে ব্যাডমিন্টন পরিবার। শ্রমিক সংকটের কারনে ফসল কাটতে না পারা কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তারা। দুইদিনের কর্মসূচির প্রথম দিনে তারা সুনামগঞ্জের দেখার হাওড়ের কয়েককটি জমিতে ব্যাডমিন্টন পরিবারের ১৫ জন ধান কেটেছে। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন ২৫ এপ্রিলের মধ্যে ধান কাটার নির্দেশ দেন।

এ সময়ের মধ্যে ধান কাটা সম্ভব না হলে বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তাই তারা এ কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন বলে জানান জাতীয় শাটলার আম্মার। জানান, ‘শাটলার জাবেদ, সাবেক কৃতি শাটলার শামীম আহমেদ, কবির আহমেদ, আবদাল, সালমান, হাফিজ রায়হান, ইমাদ, প্রবাসী মাওলানা রেজওয়ান আহমেদ সহ অনেককেই সাথে নিয়ে আমরা টাঙ্গুয়ার দেখার হাওড়ের একেবারে গভীরের দিকে চলে যাই। সেখানকার ক্ষেতের ধান সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত সেখানে কেটেছি। আমাদের এই কর্মসূচি দেখার পর অনেক ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় ও সংগঠকরা ফোন করে খবর নিয়েছন। তারা নিজেদের এলাকায় এ কর্মসূচি হাতে নেবেন বলে জানান।’

কৃষক আব্দুর রহমান জানান, ‘ফসল কিভাবে কাটবো তা নিয়ে দুঃশ্চিতার মধ্যে ছিলাম। সময় মতো ধান কাটতে না পারলে অনেক বড় ক্ষতির মুখে পড়ে যেতাম। কিন্তু আজ হঠাৎ করেই ব্যাডমিন্টন পরিবার আমার পাশে দাঁড়ানোয় আমি অনেক উপকৃত হয়েছি।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD