বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমসের লোগো উন্মেচন

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমসের লোগো উন্মেচন

বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন নবম বারের মত আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ গেমস। বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এবারের আসরের নাম বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমস। গেমসের মাসকট ও লোগো আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করেছে বিওএ। এবারে গেমসে কপোতকে মাসকট করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে বাংলাদেশ গেমস উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লোগা ও মাসকট প্রদর্শন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে গেমসের বিভিন্ন তথ্য উপস্থাপন করেন বিওএ এর মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা। অন্যানের মধ্যে উপস্থিাত ছিলেন উপ-মহাসচিব আসাদুজ্জামান কোহিনুর, ষ্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান শেখ বশির আহমেদ, ষ্টিয়ারিং কমিটির সদস্য সচিব আশিকুর রহমান মিকু, মিডিয়া এন্ড পাবলিসিটি কমিটির সদস্য সচিব কাজী রাজীব উদ্দীন আহমেদ চপল। বিশেষ বর্ষে এবারের বাংলাদেশ গেমসটি তার নিজস্ব স্বকীয়তায় ভিন্ন এক মাত্রা পাবে বলেই আয়োজক কমিটি বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়েছে।

আগামী ১ এপ্রিল উদ্বোধন হবে দেশের সাফ গেমস খ্যাত বাংলাদেশ গেমসের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গেমসের উদ্বোধন করবেন। ১০ দিন ব্যাপী গেমসে দেশের প্রায় ১০,৬০০ ক্রীড়াবিদ ৩১ টি ডিসিপ্লিনে অংশগ্রহণ করবেন। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী স্মরণীয় করার জন্য ৩১ মার্চ বাংলাদেশ গেমসের মশাল টুঙ্গীপাড়া থেকে প্রজ্জালন করে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে নিয়ে আসা হবে।

গেমস আয়োজনের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধান পৃষ্ঠপোষক, অর্থ মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল চেয়ারম্যান এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলকে কো-চেয়ারম্যান করে সাংগঠনিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়াও ১৬ টি উপকমিটি গঠন করা হয়েছে গেমসের সার্বিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য।

সংবাদ সম্মেলনে স্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান শেখ বশির আহমেদ জানিয়েছেন, এবারের গেমসে ৩১টি ডিসিপ্লিনে ৩৯৬টি স্বর্ণ, ৩৯৬টি রৌপ্য ও ৫৪৬টি ব্রোঞ্জ পদকসহ সর্বমোট ১৩৩৮টি পদকের জন্য ১০,৬০০জন ক্রীড়াবিদ লড়াই করবে। ২৩টি ভেন্যুতে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী ও সমাপনী অনুষ্ঠান ছাড়াও গেমসের অন্যতম আকর্ষনীয় ইভেন্ট ফুটবল, এ্যাথলেটিক্স ও সাইক্লিং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

অন্যান্য ইভেন্টগুলো হলো আর্চারি, ব্যাডমিন্টন, বাস্কেটবল, বডিবিল্ডিং, বক্সিং, দাবা, ক্রিকেট, ফেন্সিং, গল্ফ, জিমন্যাস্টিকস, হকি, জুডো, কাবাডি, কারাতে, খো-খো, রোয়িং, রাগবি, রোলার স্কেটিং, সাঁতার, শ্যুটিং, টেবিল টেনিস, টেনিস, তায়কোয়ানডো, ভলিবল, হ্যান্ডবল, ভারোত্তোলোন, কুস্তি ও উশু।

বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করার জন্যই এবার মশাল প্রজ্জলনের ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী ৩১ মার্চ টুঙ্গীপাড়ায় গেমসের আনুষ্ঠানিক মশাল প্রজ্জলন করে তা ঐদিনই ঢাকায় নিয়ে আসা হবে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মশাল প্রজ্জলনের বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। তবে বাংলাদেশ গেমসে শ্রেষ্ঠত্ব দেখানো ক্রীড়াবিদ ও সাবেক তারকা ক্রীড়াবিদদের মধ্য থেকেই এবারের গেমসের মশাল প্রজ্জলনের জন্য ক্রীড়াবিদদের বেছে নেয়া হবে। ইতোমধ্যেই এ ব্যপারে একটি খসড়া তালিকা করা হয়েছে যা আগামী ১০ মার্চ সাংগঠনিক কমিটির সভায় চূড়ান্ত হবে। গেমস উপলক্ষে একটি থিম সংও রচিত হয়েছে যার কাজও প্রায় শেষ পর্যায়ে।

নেপালে সদ্য সমাপ্ত এসএ গেমস থেকে আসার পরপরই বঙ্গবন্ধু ৯ম বাংলাদেশ গেমসে অংশগ্রহণকারী ফেডারেশনগুলোর সাথে আলোচনা শুরু করেছিল বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন। পরবর্তীতে এপ্রিলের ১-১০ তারিখ গেমস আয়োজনের তারিখ চূড়ান্ত হবার পর ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি নাগাদ সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনগুলোকে প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়। তারই প্রেক্ষিতে যথাযথ প্রস্তুতির জন্য ইতোমধ্যেই অর্থছাড়ও দেয়া হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে।

২০১৮ সালে প্রথমবারের মত আয়োজিত বাংলাদেশ যুব গেমস থেকে এবারের বাংলাদেশ গেমসে প্রায় সাড়ে ১২শ’ ক্রীড়াবিদ অংশ নিচ্ছে বলে জানা গেছে। মূলত যুব গেমস থেকে জাতীয় পর্যায়ে নিজেদের নিয়ে আসাটা একজন ক্রীড়াবিদসহ সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনটিও একটি বড় অর্জন বলেই বিওএ মনে করছে। এরফলে দেশের ক্রীড়াঙ্গনই লাভবান হয়েছে। মূলত এ উদ্দেশ্যেই যুব গেমস আয়োজন করা হয়েছিল যা দেশব্যাপী ক্রীড়াঙ্গনে দারুন সাড়া ফেলেছিল। এসএ গেমসে সাফল্যের মূলেও যুব গেমসের সফলতাকে উল্লেখ করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD