মাশরাফীই বাংলাদেশ দলের ‌ওয়ানডে অধিনায়ক

মাশরাফীই বাংলাদেশ দলের ‌ওয়ানডে অধিনায়ক

জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের(বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আজ বুধবার জানিয়ে দিলেন- জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আসন্ন ওয়ানডে সিরিজে খেলবেন মাশরাফি বিন মর্তুজা এবং অধিনায়ক হিসেবে এটাই তার শেষ সিরিজ। সিলেটে পহেলা মার্চ থেকে শুরু হবে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শেষে সীমিত ওভারের জন্য নতুন অধিনায়ক খুঁজবে বিসিবি। নতুন অধিনায়কের অধীনে ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপকে লক্ষ্য করে নতুনভাবে দল ঘোছাতে চায় বিসিবি। পাপন বলেন, ‘পরের ওয়ানডে বিশ্বকাপকে সামনে রেখে আমাদের নতুনভাবে দল ঘোছানো দরকার। এ জন্য আমাদের একজন অধিনায়ক দরকার। বিশ্বকাপে যাবার আগে নতুন অধিনায়কের অধীনে আমরা অন্তত দু’বছর খেলতে চাই। তাই খুব শীঘ্রই আমরা নতুন অধিনায়কের নাম ঘোষনা করবো। পরবর্তী বোর্ড সভায় সিদ্বান্ত নেয়া হতে পারে।’

পাপন এটিও স্পষ্ট করেছেন, খেলোয়াড় হিসেবে খেলবেন কি-না বা অবসর নিবেন এটি সম্পূর্ণ মাশরাফি সিদ্বান্ত। কিন্তু সে যদি ক্রিকেট চালিয়ে যেতে চায় , তবে অন্য খেলোয়াড়ের মত তাকেও পারফরমেন্স প্রদর্শন করতে হবে। পাপন বলেন, ‘যদি সে খেলতে চায়, সে খেলতে পারবে। আসল হলো, তার পারফরমেন্স। এই মূর্হুতে আমরা শুধুমাত্র অধিনায়কত্ব নিয়ে ভাবছি। আমরা দেখেছি, জনপ্রিয় খেলোয়াড়রা কোন সিরিজ শুরুর আগে তাদের অবসর ঘোষনা করেন। মাশরাফিকে ভালোভাবে বিদায় দেয়ার ইচ্ছা আমাদেরও ছিলো, কিন্তু সে তা তেমনটি চান না।

ইংল্যান্ডে ওয়ানডে বিশ্বকাপের পরই অবসর নেয়ার পরিকল্পনা ছিলো মাশরাফির। কিন্তু বিসিবি চেয়েছিলো, দেশের ক্রিকেটে বড় অবদানের জন্য মাশরাফিকে ভালোভাবে বিদায় দিতে।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে ৮ ম্যাচে মাত্র ১ উইকেট শিকার করেন মাশরাফি। এতেই তার ক্যারিয়ার নিয়ে প্রশ্ন উঠে। এটি পরিস্কার যে, বিসিবি চেয়েছিলো ওয়ানডে থেকে মাশরাফি অবসর নেন। একমাত্র ওয়ানডে ফরম্যাটেই খেলে থাকেন ম্যাশ।

কিন্তু অবসর নিয়ে মাশরাফি চুপ ছিলেন। হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপের পর শ্রীলংকা সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ থেকে ছিটকে পড়েন ম্যাশ।

শ্রীলংকা সফরের পর আর কোন ওয়ানডে খেলেনি বাংলাদেশ। তবে সম্প্রতি মুখ খুলেন মাশরাফি। গত বিপিএলে তিনি বলেন, এই মূর্হুতে অবসরের কোন চিন্তা তার নেই। জাতীয় দলে খেলার জন্য ফিটনেস প্রমান করতে চান। অবসর নিয়ে বিসিবি যে ফেয়ারওয়েল দিতে চায়, তার প্রতি কোন আগ্রহ নেই মাশরাফির। কিছুদিন আগে, মাশরাফি ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন পাপন ও কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো।

বিসিবি অফিসে জাতীয় দলের সিনিয়র তিন খেলোয়াড় তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও মুমিনুল হকের সাথে আলোচনায় বসেন পাপন। আলোচনা শেষে পাপন জানান, অধিনায়ক হিসেবে শেষ ওয়ানডে সিরিজ খেলবেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি, ভবিষ্যতের জন্য সিদ্বান্ত নেয়ার সময় এসেছে। আমি মনে করি, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে মাশরাফি খেলবেন এবং সে দলে থাকবেন, তবে ফিটনেস সাপেক্ষে। তবে সে যদি ফিট না হন, তবে তা অন্য বিষয়।’

‘সে এখনও বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক এবং অধিনায়ক হিসেবে দলে খেলবেন।’

পাপন বলেন, এই মূর্হুতে মাশরাফির মত অধিনায়ক পাওয়া অনেক কঠিন। তিনি বলেন, ‘এই মূর্হুতে, মাশরাফির মত নেতৃত্ব দেয়ার মত আমাদের কেউই নেই। এটিই সত্যি এবং আমরা এটিই বারবার বলছি।’

তবে বিপক্ষে টেস্টে মাশরাফির উর্ত্তীন হওয়া নিয়ে শঙ্কিত বিসিবি প্রধান। এটি এমন একটি পরীক্ষা, যা খেলোয়াড়দের ফিটনেস নির্ধারন করে।

পাপন বলেন, ‘ইতোমধ্যে আমাদের ক্রিকেটে কিছু পরিবর্তন এসেছে। আমরা খেলোয়াড়দের ফিটনেস নির্ধারনের জন্য বিপ টেস্ট চালু করেছি। মাশরাফি বিপ টেস্টে উর্ত্তীন নাও করতে পারেন। একই সাথে, আমাদের দেশের ক্রিকেটের জন্য তার অবদানের কথা মনে রাখতে হবে। তার অধিনায়কত্ব আমাদের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য তার বিপক্ষে টেস্ট আমরা শিথিল করেছি।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD