টেইলরের বিশ্বরেকর্ডের ম্যাচে জয় চায় নিউজিল্যান্ড

টেইলরের বিশ্বরেকর্ডের ম্যাচে জয় চায় নিউজিল্যান্ড

বিশ্বের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই ১শ ম্যাচ খেলার মাইলফলক স্পর্শ করতে যাচ্ছেন নিউজিল্যান্ডের রস টেলর। ২১ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু করছে নিউজিল্যান্ড ও ভারত। এ ম্যাচ দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়বেন নিউজিল্যান্ডের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান টেলর। শততম টেস্ট খেলতে যাচ্ছেন তিনি। টেলরের বিশ্বরেকর্ডের ম্যাচে জয় দিয়ে টেস্ট সিরিজ শুরু করতে চায় নিউজিল্যান্ড ও ভারত। ওয়েলিংটনের টেস্ট ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোর ৪টা ৩০ মিনিটে।

২০০৬ সালের মার্চে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু হয় টেলরের। ঐ বছরই টি-টোয়েন্টি ও পরের বছর টেস্ট আঙ্গিনায় পা রাখেন তিনি। এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি টেলরকে। সময়ের সাথে-সাথে নিউজিল্যান্ড দলের অন্যতম নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় বনে যান এই ডানহাতি।

নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং লাইন-আপে নিজের জায়গাটি পাকাপোক্ত করতে গিয়ে এখন পর্যন্ত দেশের হয়ে ৪৩০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন টেলর। ভারতের বিপক্ষে শেষ হওয়া সিরিজে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে শততম ম্যাচ খেলেন তিনি। ওয়ানডে খেলেছেন ২৩১টি। টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা ৯৯টি। তাই শততম টেস্ট ম্যাচ থেকে এক ধাপ দূরে দাঁড়িয়ে টেলর। ভারতের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে সেই মাইলফলক স্পর্শ করতে চলেছেন তিনি। এতেই তিন ফরম্যাটে অন্তত একশ ম্যাচ খেলা প্রথম খেলোয়াড় হবেন টেলর। দেশের হয়ে ৪৩০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে তার মোট রান ১৭,৬৫৩।

তিন ফরম্যাটে অন্তত ১শ ম্যাচ খেলা প্রথম খেলোয়াড় হলেও দেশের হয়ে শততম টেস্ট খেলা চতুর্থ খেলোয়াড় হবেন টেলর। এজন্য টেলর কৃতিত্ব দিতে চান তাঁর এক সময়কার মেন্টর, প্রয়াত মার্টিন ক্রো’কে। টেলর বলেন, ‘ক্রো আমার মধ্যে এমন কিছু দেখেছিলেন, যা আমিও দেখিনি। আমি একটা টেস্ট খেলতে পারলেই খুশি হতাম। আর এখন ১০০ টেস্ট খেলতে চলেছি। পাশাপাশি তিন ফরম্যাটের ম্যাচের সেঞ্চুরি হতে যাচ্ছে। সত্যিই এটি বিশেষ অনুভূতি।’

দাপট দেখিয়ে এবারের নিউজিল্যান্ড সফর শুরু করে ভারত। পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে কিউইদের হোয়াইটওয়াশ করে বিরাট কোহলির দল। বিশ্বের প্রথম দল হিসেবে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে প্রতিপক্ষকে হোয়াইটওয়াশের নজির গড়ে টিম ইন্ডিয়া।

টি-টোয়েন্টিতে হারের প্রতিশোধ নিতে মোটেও সময়ক্ষেপন করেনি নিউজিল্যান্ড। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেই ভারতকে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দেয় কিউইরা। তাই জয় ও হারকে সাথে নিয়ে এবারের টেস্ট সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে দুই দল।

ভারতের আগে, নিউজিল্যান্ড সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ খেলেছে অস্ট্রেলিয়া সফরে। তিন টেস্ট সিরিজে অসিদের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল কিউইরা। তাই ভারতের বিপক্ষে এই টেস্ট সিরিজকে কঠিন চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন নিউজিল্যান্ডের বাঁ-হাতি পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। হাত ভাঙার কারণে ছ’সপ্তাহ মাঠের বাইরে ছিলেন তিনি। সপ্তাহখানেক হল ঘরোয়া ম্যাচ দিয়ে মাঠে ফিরেন বোল্ট। আর ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আবারো ফিরছেন বোল্ট। তিনি বলেন, ‘ভারত খুবই ভাল দল। কঠিন চ্যালেঞ্জ হবে আমাদের জন্য। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট টেবিলে অনেক এগিয়ে ভারত। যেকোন দলের বিপক্ষেই দারুন ক্রিকেট খেলার সামর্থ্য রয়েছে ভারতের। তবে আমাদের ঘুড়ে দাঁড়ানোর পালা। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে আমরা খুব খারাপ ফল করেছি। সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে হবে আমাদের।’

ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভ স্টেডিয়ামের পিচে পেসাররা সহায়তা পাবেন। তাই ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে শিকারের হুমকি দিয়ে রেখেছেন বোল্ট। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে কোহলিকে এক রানে আউট করা এ পেসার বলেন, ‘আমি ভাল উইকেটের জন্য নিজেকে তৈরি রাখছি। সাধারণত এখানকার উইকেট খুব ভাল হয় এবং পুরো পাঁচ দিনই খেলা গড়ায়। এই মাঠে খেলতে আমি খুবই পছন্দ করি। কোহলিদের মতো ব্যাটসম্যানকে আউট করার জন্যই আমি ক্রিকেট খেলি। সেরাদের বিপক্ষে নিজের পরীক্ষা দিতে আমি সব সময় মুখিয়ে থাকি। ভাল খেলতে এটাই আমাকে প্রেরণা দিচ্ছে। কোহলি-পূজারাদের বিপক্ষে বল করতে মুখিয়ে আছি। কোনও সন্দেহ নেই কোহালি অসাধারণ একজন ক্রিকেটার। তার উইকেট নেওয়ার তর সইছে না আমার।’

গেল তিন বছর ধরে তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে দুর্দান্ত পারফরমেন্স করছে ভারত। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে ৭ ম্যাচে সবগুলোতে জয় নিয়ে ৩৬০ পয়েন্ট অর্জন করেছে ভারত। তাই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে একমাত্র অপরাজিত দল ভারত। নিজেদের সামর্থ্যের বিশ্বাসী হয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে হুমকি দিয়ে রাখলেন কোহলি, ‘প্রতিপক্ষ যে দলই হোক না কেন, তাদের হারাতে আমরা ফিটনেস ও মনঃসংযোগের প্রস্তুতি নিয়েছি। টেস্ট সিরিজে এই আত্মবিশ্বাসই সঙ্গী হবে আমাদের। নিউজিল্যান্ডের বোলার ও ব্যাটসম্যানরা খুব ফিট। তাদের ফিল্ডাররাও অসাধারণ। তাই সুযোগের সদ্ব্যবহার করা জরুরি। ফোকাস রাখতে হয় তার জন্য। তবে আমরাও পুর্ন শক্তির দল নিয়ে এসেছি। যাদের ভালো খেলার সামর্থ্য রয়েছে।’

প্রথম টেস্টের আগে নিউজিল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে একটি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচও খেলেছে ভারত। ম্যাচটি ড্র হয়েছে। তবে ঐ ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছেন হনুমা বিহারি। হাফ-সেঞ্চুরি করে বড় স্কোর গড়ার চেষ্টা করেছেন চেতেশ্বর পূজারা, ঋসভ পান্থ ও মায়াঙ্ক আগারওয়াল। বিহারি ১০১, পূজারা ৯৩, আগারওয়াল ৮১ ও পান্থ ৭০ রান করেন।

পেস বোলাররাও নিজেদের দক্ষতা দেখিয়েছেন। প্রথম ইনিংসে মোহাম্মদ সামি ৩টি, জসপ্রিত বুমরাহ-উমেশ যাদব-নবদীপ সাইনি ২টি করে উইকেট নেন। বোলারদের নৈপুন্যে প্রথম ইনিংসে ২৬২ রানে অলআউট হয়েও লিড পায় ভারত। প্রথমে ব্যাট করা নিউজিল্যান্ড একাদশকে ২৩৫ রানে অলআউট করে দেন সামি-বুমরাহরা। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেটে ২৫২ রান করে ভারত।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে ৫ ম্যাচে অংশ নিয়ে একটি জয় ও চার হারে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ষষ্ঠস্থানে রয়েছে নিউজিল্যান্ড। টেস্টে ৫৭বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও নিউজিল্যান্ড। এরমধ্যে ভারতের জয় ২১বার। ১০বার জিতেছে নিউজিল্যান্ড। ২৬টি ম্যাচ ড্র হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD