জয়ের জন্যেই আমরা এসেছি: আরভিন

জয়ের জন্যেই আমরা এসেছি: আরভিন

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে জিম্বাবুয়ে সবকিছুই করবে বলে জানিয়েছেন, দলটির ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন। শ্রীলংকার বিপক্ষে সম্প্রতি হোম টেস্ট সিরিজে লড়াইয়ের প্রেরণা তারা বাংলাদেশেও ধরে রাখতে চান।

গত জানুয়ারিতে নিজ মাঠে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ১-০ ব্যবধানে হেরে গেলেও লংকানদের বিরুদ্বে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছিল আফ্রিকার দেশটি। তারা যে দীর্ঘ বিরতির পর টেস্ট খেলতে নেমেছিল তা বুঝা যায়নি জিম্বাবুয়ে দলের পারফর্মেন্সে। সে আত্মবিশ্বাসের জোরেই বাংলাদেশের বিপিক্ষে এই সিরিজে জয় ছাড়া কিছু ভাবতে পারছে না জিম্বাবুয়ে।

মাসাধিককালের বাংলাদেশ সফরকালে জিম্বাবুয়ে স্বাগতিক দলের বিপক্ষে একটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অংশ নিবে।

আজ রোববার মিরপুরের একাডেমি মাঠে প্রথম অনুশীলন শেষে আরভিন বলেন, ‘আমরা জয়ের লক্ষ্য নিয়েই এখানে এসেছি। শ্রীলংকার বিপক্ষে আমরা ভাল একটি সিরিজ খেলেছি। দীর্ঘ বিরতির পর ওই সিরিজটি আমাদের অনুপ্রানীত করেছে। এখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে আমাদের ভাল পরিচিতি রয়েছে। অনেকবার আমরা এখানে এসেছি। এখন আমরা ময়দানী লড়াইয়ের অপেক্ষায় আছি।’

আরভিন বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য সিরিজ জয়। অমরা খুব বেশী টেস্ট খেলতে পারিনি। বছরের বাকী সময়েও খুব বেশী টেস্ট খেলার সুযোগ পাবনা। অন্য যে কোন ম্যাচের তুলনায় টেস্ট হচ্ছে বেশী গুরুত্বপুর্ন।’

তলুনামুলক ভাবে বাংলাদেশের সঙ্গে বেশী ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতার কারণে জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক জানেন যে টাইগাররা জোড়ালো স্পিন আক্রমন দিয়ে তাদের ঘায়েল করতে চাইবে। যে কারণে নিজ খেলোয়াড়দেরকে এ বিষয়ে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন আরভিন। সেই সঙ্গে টেস্টের প্রথম দিন বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে অনুরোধ করেছেন দলকে।

জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক বলেন, ‘ফলাফলের কথা না ভেবে আমাদেরকে নিজেদের খেলার প্রতি মনোযোগ দিতে হবে। টেস্টে ম্যাচের প্রথম দিনেই আমরা পিছিয়ে পড়তে চাই না। দলে বেশ কয়েকজন নতুন সদস্য রয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি তাদেরকে যতটুকু সম্ভব সাবলীল রাখতে। এখানে সফরে এসে অনেক দল কন্ডিশনের কারণে সংকটে পড়ে যায়। আগেও বলেছি, আমরা অন্য দলগুলোর তুলনায় বেশী এ দেশ সফর করেছি। এখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে পুর্ব পরিচিত। এখানে স্পিন গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রাখবে। এ বিষয়ে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। টেস্টের প্রস্তুতিতেও এটিকে অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে।’

এবারের সফরকারী জিম্বাবুয়ে দলে নেই নিয়মিত অধিনায়ক সেন উইলিয়ামসন। প্রথম সন্তানের জন্মের আগে স্ত্রীর পাশে থাকতে চান তিনি। সেই সঙ্গে নেই ফাস্ট বোলার কাইলি জার্ভিস ও টেন্ডাই চাতারা। দুই জনই ইনজুরিতে রয়েছেন।

আরভিন বলেন, ‘উইলিয়ামস, জার্ভিস ও চাতারাকে আমরা মিস করব। তারা আমাদের বড় খেলোয়াড়। তবে এর ফলে অন্য খেলোয়াড়দের পথও উন্মুক্ত হয়ে থাকল। নবীনরা দক্ষতা প্রদর্শনের সুযোগ পাবে। শ্রলীংকার বিপক্ষে ওপেনিংয়ে ব্যাট করেছিলেন প্রিন্স মাসবুরে ও কেভিন কাসুজা। বাংলাদেশেল বিপক্ষেও একই দায়িত্ব পালন করবেন তারা। এটি তাদের জন্য খুবই চ্যালেঞ্জিং হবে।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD