কেনিন-মুগুরুজার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই

কেনিন-মুগুরুজার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের নারী বিভাগে শুরুতে শিরোপা প্রত্যাশি হিসেবে আলোচনার শীর্ষে ছিলেন মার্কিন তারকা সেরেনা উইলিয়ামস। কিন্তু শনিবার গ্র্যান্ড স্লাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে দুই বিষ্ময়কর মার্কিন তারকা সোফিয়া কেনিন ও অবাছাই গারবিন মুগুরুজা। অস্ট্রেলিয়ান ‌ওপেন শুরুর আগে কেউ স্বপ্নেও ভাবেনি।

টুর্নামেন্টে ২১ বছর বয়সী কেনিনের জন্য আরো একটি বিষ্ময় অপেক্ষা করছে, সেটি হচ্ছে তিনি যদি ফাইনালে স্প্যানিশ প্রতিপক্ষ মুগুরুজাকে হারাতে পারেন তাহলে র‌্যাংকিংয়ে টপকে যাবেন উইলিয়ামসকে।

যৌথভাবে সর্বোচ্চ ২৪টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ের রেকর্ড বইয়ে নাম লেখার লক্ষ্য নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার মার্গারেট কোর্টেই হাজির হয়েছিলেন ৩৮ বছর বয়সি উইলিয়ামস। কিন্তু তৃতীয় রাউন্ডেই চীনের ওয়াং কিয়াংয়ের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেন তিনি। একই রাউন্ড থেকে বিদায় নেন বর্তমান চ্যাম্পিয়ন নাওমি ওসাকা‌ও। ১৫ বছরের বিষ্ময়বালিকা কোকো গাউফের কাছে হেরে বিদায় নিতে হয়েছে ওসাকাকে। পরে অবশ্য স্বদেশী মার্কিন তারকা কেনিনের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হয় কোকোকে।

রোমাঞ্চে ভরা তৃতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নেন টুর্নামেন্টে অংশ নেয়া ১০ শীর্ষ বাছাইয়ের ছয়জনই। আর টিকে যাওয়া বিশ্বের এক নম্বর তারকা অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশলে বার্টি বিদায় নিয়েছেন সেমিফাইনাল থেকে। মস্কোয় জন্মগ্রহনকারী চতুর্দশ বাছাই কেনিন এগিয়ে যান আরো একধাপ। বৃহস্পতিবার ক্যারিয়ারের প্রথম গ্র্যান্ড স্লামের সেমিফাইনালে সরাসরি সেটে স্বাগতিকদের হৃদয় ভেঙ্গে দিয়ে তিনি পৌঁছে যান ফাইনালে।

এখন ফাইনালে হেরে গেলেও কেনিন জায়গা করে নেবেন ক্যারিয়ার সেরা নবম র‌্যাংকিংয়ে। আর তিনি যদি মুগুরুজাকে হারাতে পারেন তাহলে উইলিয়ামসকে টপকে পৌঁছে যাবেন বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের সপ্তম অবস্থানে।

১২ মাস আগে হোবার্টে প্রথম ডব্লিউটিএ শিরোপা জয় করেন কেনিন। দৃঢ়তা ও আগ্রাসী খেলা দিয়ে পরশুদিন তিনি নতুন একটি ট্রেডমার্কে উন্নীত হয়েছেন। শিশুকালে পিতা-মাতার সঙ্গে রাশিয়া ছেড়ে আমেরিকায় পাড়ি জমানো কেনিন বলেন, ‘আমি কার সঙ্গে খেলছি সেটি কখনো মাথায় রাখিনা। আমি শুধু জয়ের জন্য লড়াই করে যাই।’

মুগুরুজার প্রত্যাবর্তন

২৬ বছর বয়সি মুগুরুজার পরবর্তী লক্ষ্য হচ্ছে কেনিনকে হারানো। মার্কিন বাজিকর উইলিয়াম হিল বলেন, টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কেনিন-মুগুরুজার ফাইনাল খেলার বিপরীতে বাজির দর উঠেছিল ৭৫০-১। এ সময় তারা মুগুরুজাকেই ফেভারিটের তালিকায় রেখেছিলেন, কারণ বড় টুর্নামেন্টে খেলার অতীত অভিজ্ঞতা তার আছে। ২০১৬ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেন ও ২০১৭ সালে উইম্বলডন শিরোপা জয় করেছেন মুগুরুজা।

কিন্তু বিগত ১৮ মাস যাবৎ একেবারেই হারিয়ে যাওয়া ৩২তম বাছাই এই টেনিস তারকা এরপর প্রথম মেলবোর্নের ফাইনালে উঠেছেন। ভেনেজুয়েলায় জন্মগ্রহনকারী এই স্প্যানিশ তারকা অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শুরুতেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। মার্কিন কোয়ালিফাইয়ার শেলবি রজার্সের কাছে প্রথম সেটে হেরে যান ৬-০ ব্যবধানে।

তবে অসুস্থ শরীর নিয়েই কোচ কঞ্চিতা মার্টিনেজের সহায়তা নিয়ে ঘুরে দাঁড়ান তিনি। ২০১৪ সালের পর প্রথমবারের মত অবাছাই হিসেবে পৌঁছে যান গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে। এই যাত্রাপথে তিনি হারিয়েছেন তিনজন শীর্ষ দশ টেনিস তারকাকে।

সেমি-ফাইনালে বিশ্বের চার নম্বর খেলোয়াড় রোমানিয়ার তারকা সিমোনা হালেপকে ৭-৬ (১০-৮), ৭-৫ গেমে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছেন মুগুরুজা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD