আইসিসির শাস্তির কবলে বাংলাদেশ-ভারতের পাঁচ খেলোয়াড়

আইসিসির শাস্তির কবলে বাংলাদেশ-ভারতের পাঁচ খেলোয়াড়

দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে অনূর্ধ্ব-১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে আচরনবিধি ভঙ্গের দায়ে বাংলাদেশের তিনজন ও ভারতের দু’জন খেলোয়াড়কে শাস্তি দিলো ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। পাঁচ জনকে বিভিন্ন ম্যাচে শাস্তি দিলো আইসিসি।

এক বিবৃতি আইসিসি জানায়, বাংলাদেশের তৌহিদ হৃদয়, শামিম হোসেন ও রকিবুল হাসান এবং ভারতের আকাশ সিং-রবি বিশনোইকে আইসিসির আচরনবিধি ভঙ্গের কারনে শাস্তি দেয়া হলো। আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ম্যাচ রেফারি গ্রায়াম লেবয়, পাঁচজন খেলোয়াড়ের শাস্তি অনুমোদন করেন।

শাস্তির মধ্যে দশটি ডিমেরিট পয়েন্টও পেয়েছেন হৃদয়। শামিম আট ও রকিবুল চার ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন। যা আগামী দু’বছর তাদের অ্যাকাউন্টে রেকর্ড হিসেবে থাকবে।

ভারতের আকাশ আট ও বিশনোই পাঁচ ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন। শামিম আট ও রকিবুল চার ডিমেরিট পয়েন্ট পেয়েছেন। তাদেরও এই ডিমেরিট পয়েন্ট আগামী দু’বছর অ্যাকাউন্টে রেকর্ড হিসেবে থাকবে।

পাঁচ খেলোয়াড়ের এই শাস্তি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের যেকোন ম্যাচে বহাল থাকবে। সেটি সিনিয়র বা অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়েও বহাল থাকবে।

একটি ডিমেরিট পয়েন্টের অর্থই হলো, একটি ওয়ানডে বা টি-২০ ম্যাচে নিষিদ্ধ থাকবেন তারা। সেটি অনূর্ধ্ব-১৯ বা ‘এ’ দলের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্যও প্রযোজ্য হবে।

ফাইনাল শেষে আচরণবিধি ভঙ্গের কারনে পাঁচ ও ম্যাচ চলাকালীন ২৩তম ওভারে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যান অভিষেক দাসকে আউটের পর অশ্রাব্য ভাষা ব্যবহারের কারনে আরও অতিরিক্ত দুই ডিমেরিট পয়েন্ট পান বিশনোই।

আইসিসির মহাব্যবস্থাপক জিওফ অ্যালার্ডিচ বলেন, ‘ম্যাচ বেশ উত্তেজনাপূর্ণ ছিলো। যা আমরা ফাইনালে আশা করেছিলাম। কিন্তু ম্যাচ শেষ হবার পর কিছু খেলোয়াড়ের আচরণে হতাশাজনক অভিজ্ঞতার মধ্যে পড়তে হয়েছে আমাদের। যা আমাদের খেলার মধ্যে পড়ে না। পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ হচ্ছে স্পিরিট অব ক্রিকেটের মূল বিষয়। তাই খেলোয়াড়দের নিজস্ব শৃঙ্খলার প্রদর্শন করতে হবে। প্রতিপক্ষকে তাদের সাফল্যের জন্য অভিনন্দন জানানো এবং নিজের দলের সাফল্যকে উপভোগ করতে হবে।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD