কোচের অভিষেকটা স্মরণীয় করলেন মেসি

কোচের অভিষেকটা স্মরণীয় করলেন মেসি

কিকে সেতিয়েন হয়তোবা অন্য একটি বার্সেলোনাকে মাঠে দেখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারপরেও বার্সার হয়ে সেতিয়েনের স্বপ্নের অভিষেকটা ম্লান হতে দেননি দলের প্রাণ ভোমরা লিওনেল মেসি। ন্যু ক্যাম্পে ৭৬ মিনিটে তার দেয়া গোলেই গতকাল গ্রানাডাকে ১-০ গোলে পরাজিত করে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আর এতে, জয় দিয়েই বার্সেলোনার সাথে সম্পর্ক শুরু করলেন আর্নেস্টো ভালভার্দের উত্তরসূরী সেতিয়েন। শনিবার সেভিয়াকে পরাজিত করে অল্প সময়ের জন্য টেবিলের শীর্ষস্থান দখল করেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু গতকাল জয়ী হয়ে আবারো গোল ব্যবধানে রিয়ালকে পিছনে ফেলে উপরে উঠে এসেছে বার্সা।

ম্যাচ শেষে উচ্ছসিত সেতিয়েন বলেন, ‘আজ আমি দলের মধ্যে অনেকগুলো বিষয় দেখেছি যা আমি বারবার দেখতে চাই। এর আগে এ্যাথলেটিকোর বিপক্ষে গত সপ্তাহেও আমি বেশ কয়েকটি বিষয় লক্ষ্য করে ফেলেছি। আসলে বার্সা দলটি এমনই। তাদের দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য আছে।’

ম্যাচ শেষের ২৩ মিনিট আগে ক্যামেরুনের ২২ বছর বয়সী মিডফিল্ডার ইয়ান এতেকির শট পোস্টে না লাগলে ম্যাচের ভাগ্য হয়ত ভিন্ন হতে পারতো। এরপরই সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার জার্মান সানচেজ অযথাই দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেয়ে মাঠের বাইরে চলে গেলে ১০জনের দলে পরিণত হয় গ্রানাডা।

আর এই সুযোগে মেসি মৌসুমের ২১ ম্যাচের ১৭তম গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন। পুরো ম্যাচে আরটুরো ভিডাল, আঁতোয়া গ্রিজম্যান ও ২০ বছর বয়সী রিকি পুইগের অবদানকে স্বীকৃতি দিতেই হবে। বিশেষ করে বদলী বেঞ্চ থেকে ৭১ মিনিটে ইভান রাকিটিচের পরিবর্তে মাঠে নামার পর থেকেই পুইগ নিজেকে প্রমান করেছেন। তার অন্তর্ভূক্তি একটি বিষয় নিশ্চিত করেছে তরুনদের ওপরই সর্বাধিক আস্থা রাখতে চান সেতিয়েন। পুইগ মাঠে নামার পর বার্সেলোনা বেশ কয়েকটি আক্রমনের সুযোগ সৃষ্টি করেছে।

গত সপ্তাহে দলে যোগ দেবার পরেই সেতিয়েন ঘোষনা দিয়েছিলেন একটি বিষয় তিনি নিশ্চিত করতে চান, তার অধীনে যেন বার্সেলোনা ভাল ফুটবল খেলে। যদিও অনেকেই হয়ত বলবে কালকের ম্যাচে ভালভার্দের ছায়া সুষ্পস্ট ছিল। তারপরেও বলা যায় প্রথম ম্যাচেই সেতিয়েন তার কৌশলে দলকে খেলিয়ে অনেকটাই সফল হয়েছেন। পাসগুলো ছিল খুবই দ্রুতগতির, আক্রমনে পুরো দল একসাথে এগিয়ে গেছে, মধ্যমাঠ থেকেই মেসি বেশী আক্রমন করার চেষ্টা করেছেন। তার সাথে বামদিকে ছিলেন গ্রীজম্যান ও ডানদিকে আরেক তরুন আনসু ফাতি।

ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে সেতিয়েন বলেছিলেন, তিনি কখনই দল বাজে খেলে জিতেছে এই মন্তব্য শুনে বাড়ি ফিরবেন না। কাল প্রথমার্ধে বার্সেলোনা ৮৩ শতাংশ পজিশন নিজেদের করে নিয়েছিল। যদিও আক্রমনের সুযোগগুলো ভালভার্দের মত অতটা স্পস্ট ছিলনা। সাত মিনিটে ডান দিকে ফাতিকে পাস দিয়েছিলেন গ্রিজম্যান। কিন্তু ফাতির শট রুখে দেন গ্রানাডা গোলরক্ষক রুই সিলভা। এরপরপরই আরেকটি ভাল সুযোগ নষ্ট করেন ফাতি। ১৪ মিনিটে ডি বক্সের সামনে মেসিকে ফাউল করায় ফ্রি-কিক পায় বার্সা। কিন্তু মেসির ফ্রি-কিক ক্রসবারের উপর দিয়ে বাইরে চলে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই আক্রমনাত্মক খেলতে থাকে স্বাগতিকরা। ৬৭ মিনিটে এতেকির শট পোস্টে লেগে ফেরত আসে। ৭৬ মিনিটে গ্রিজম্যান ও ভিদালের সহায়তায় মেসি ডেডলক ভাঙ্গলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD