ইনজুরি টাইমে শ্রীলংকাকে হারিয়ে শেষ চারে ফিলিস্তিন

ইনজুরি টাইমে শ্রীলংকাকে হারিয়ে শেষ চারে ফিলিস্তিন

ইনজুরি টাইমের গোলে শ্রীলংকাকে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টের সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিন। আজ শুক্রবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে, ‘এ’ গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে লংকানদের ২-০ গোলে পরাজিত করে ফিলিস্তিন। ইনজুরি টাইমে ফিলিস্তিনের হয়ে গোল করেছেন অধিনায়ক মাহমুদ আবুওয়ার্দা ও বদলী খেলোয়াড় খালেদ সালেম।

নিজেদের প্রথম ম্যাচেও স্বাগতিক বাংলাদেশকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল ফিলিস্তিনিরা। এতে প্রথম দল হিসেবে টুর্নামেন্টের শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। আগামী রোববার গ্রুপের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের মোকাবেলা করবে শ্রীলংকা। ওই ম্যাচের জয়ী দল গ্রুপ রানারআপ হিসেবে শেষ চারে খেলবে। ম্যাচে কোন পক্ষ গোল করতে না পারলে টাইব্রেকারে নির্ধারিত হবে জয়-পরাজয়।

আজ ম্যাচের শুরু থেকেই একচেটিয়া প্রাধান্য বিস্তার করে রাখে ফিলিস্তিন। কিন্তু গোল পোস্টের নীচে থাকা গোলরক্ষক প্রবাদ অরুনাশ্রি বার বার তাদের সামনে দেয়াল হয়ে দাঁড়ান। ৮ মিনিটে ফিলিস্তিনের তায়ের জবুবের তড়িৎ পাসের বলে সময় মত পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন সতীর্থ স্ট্রাইকার রিয়েবেল দাহামসি। লংকান গোল রক্ষক প্রবাদ অরুনাশ্রি ঝাপিয়ে পড়ে বলটি ফিরিয়ে দেন।

১৭ মিনিটে আরো একটি গোলের সুযোগ নষ্ট করে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আক্রমনে যাওয়া দাহামসিকে লংকান রক্ষনের খেলোয়াড়রা ফেলে দিলে ফ্রি কিকের নির্দেশ দেন মালয়েশীয় রেফারি তুয়ান মোহাম্মদ হানাফিয়া। ডি বক্সের বাইরের ফ্রিকিক থেকে ডিফেন্ডার তায়ের জবুরের ক্রসের বলে মাথা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন গোলবক্সের সামনে অবস্থান নেয়া দাহামসি।

এভাবে বিরতি পর্যন্ত ফিলিস্তিনের আক্রমন প্রতিহত করেই কাটিয়ে দিয়েছে লংকান দল। বিরতির পর আক্রমনের ধারা আরো বাড়িয়ে দেয় ফিলিস্তিন। ৫৫ মিনিটে সতীর্থের ক্রসের বলে চলন্ত অবস্থায় হেড করেন রামি আলমাসালমা। এসময় লংকান গোলরক্ষক পরাস্ত হলেও সতীর্থ ডিফেন্ডার আসমাইল খালিদ গোল লাইনে থেকে পাল্টা হেডে বলটি ফিরিয়ে দেন।

৫৭ মিনিটে জটলার মধ্যে একাধিকবার লংকান পোস্টে শট করেও লক্ষ্যভেদ করতে ব্যর্থ হয় ফিলিস্তিন। ৭০ মিনিটেও তাদের আরেকটি পরিকল্পিত আক্রমন রুখে দেয় লংকান গোলরক্ষক। ফলে নির্ধারিত ৯০ মিনিটেও গোল করতে পারেনি বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

তবে ইনজুরি টাইম হিসেবে বাড়তি ছয় মিনিট পেয়ে যায় ফিলিস্তিন। আর ওই সুযোগে পরপর দুই গোল করে জয় পেয়ে যায় তারা। ইনজুরির তৃতীয় মিনিটে (৯০+৩) বদলী মিডফিল্ডার সামেহ মারাবার ক্রসের বলে ঝাপিয়ে পড়ে হেডের সাহায্যে লংকান জালে জড়িয়ে দেন ফিলিস্তিন অধিনায়ক মাহমুদ আবুওয়ার্দা (১-০)।

শেষ মিনিটে (৯০+৫) প্রতিআক্রমন থেকে সালেম বল নিয়ে লংকান ডি বক্সের কাছে চলে যান। এ সময় কিছুটা উঠে আসা লংকান গোল রক্ষক তাকে প্রতিহত করতে চেস্টা করেন। কিন্তু বক্সের সামান্য বাইরে থেকেই গোলরক্ষককে কাটিয়ে ঠান্ডা মাথায় জালে পাঠিয়ে দেন সালেম (২-০)।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD