শিরোপা পুনরুদ্ধার মিশন চ.আবাহনীর

শিরোপা পুনরুদ্ধার মিশন চ.আবাহনীর

শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব টুর্নামেন্টের প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল স্বাগতিক চট্টগ্রাম আবাহনী। পরের আসরে সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয় তাদের। এক মৌসুম পর আবারো ফাইনালের মহারণে নাম লিখিয়েছে বন্দরনগরীর দলটি। শিরোপা পুনরুদ্ধার করাই মূল লক্ষ্য তাদের। অন্যদিকে, প্রথমবারের মতো দেশের বাইরে কোন আসরে খেলতে এসেই ফাইনালের মহামঞ্চে মালয়শিয়ার তেরেঙ্গানু এফসি। এখন ইতিহাস গড়াই লক্ষ্য দলটির কোচ মোহাম্মদ নাফুজি বিন জাইনের। ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরতে চান তিনি। আগামীকাল ব্রহস্পতিবার সন্ধ্যা ছ’টায় চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে দু’দল। চট্টগ্রাম আবাহনীর শিরোপা পুনরুদ্ধার মিশন, আর তেরেঙ্গানু চাচ্ছে ইতিহাস গড়তে। দুই দলের লক্ষ্য এখন একটাই- শিরোপা জয়। ফাইনালের মহারণ যে বেশ উপভোগ্য হবে সেটা সহজেই অনুমেয়।

গ্রুপ পর্বে এক ম্যাচে হারতে হয়েছে চিটাগং আবাহনীকে। আর এখনো পর্যন্ত অপরাজিত অতিথি দলটি। তেরেঙ্গানুর আক্রমনভাগ আগলে রাখেন অধিনায়ক লি টাক ও ব্রুনো সুজুকি। এ দুই ফুটবলারই এবারের আসরে করেছেন হ্যাটট্রিক। ব্রুনো এক ম্যাচে আর লি টাক দুই ম্যাচে পেয়েছেন হ্যাটট্রিক করার গৌরবময় স্বাদ। তারা দু’জনই প্রতিপক্ষের জাল কাঁপাতে বেশ পটু। রক্ষণ দেয়াল তছনছ করে প্রবেশ করেন প্রতিপক্ষের বিপদসীমায়। আর সেট পিস থেকেও গোল আদায়ে দক্ষ তেরেঙ্গানুর অধিনায়ক লি টাক। এ দুই ফুটবলারই বুকে কাঁপন ধরাচ্ছে স্বাগতিক সমর্থকদের। তাই ফাইনালে ব্রুনো আর লি টাককে নিয়ে আলাদা পরিকল্পনার ছক কষেছেন স্বাগতিক দলের কোচ মারুফুল হক। ‘তেরেঙ্গানুর অধিনায়ক লি টাক ও ব্রুনো সুজুকির মধ্যে রসায়নটা দারুণ। এ দু’জনকে আটকানোর কৌশল নিয়ে আমরা কাজ করছি। লি টাক অন্যতম সেরা পারফর্মার এ আসরে। বক্সের ভেতরে এ পর্যন্ত তারা তিনটি পেনাল্টি আদায় করেছে। তাই আমার প্লেয়ারদের প্রতি পরামর্শ যেনো বক্সে রাফ ট্যাকল না করে। ওদেরকে সে সুযোগ আমরা দিতে চাই না।’

ফাইনালে নিজ দলের কৌশল সম্পর্কে মারুফুল হক বলেন, ‘আমার প্ল্যানিং থাকবে মিডফিল্ডে। সেখান থেকেই গোল করার চেষ্টা থাকবে। লুকাকে ওরা টার্গেট করবে। কিন্তু জামাল ও দিদিয়ারকে কাজে লাগাবো পেছন থেকে। থার্ডম্যান হিসেবে যে থাকবে, সেই গোল করবে ফাইনালে।’ নিজ দলকেই ফেবারিট মানছেন মারুফ, ‘আমরা ফেবারিট হিসেবেই কাল মাঠে নামবো। লক্ষ্য এখন শিরোপা জয় করা। আমার দল দিন দিন উন্নতি করেছে। আশাকরি ফাইনালেও উন্নতি করবে এবং নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়েই শিরোপা জয় করবে।’ সেমিফাইনালে কিছুটা ইনজুরিতে থাকলেও জামাল এখন পুরোপুরিই শঙ্কামুক্ত বলে জানান কোচ। ‘সে পুরোপুরি ফিট আছে। দলে কোন কার্ড সমস্যাও নেই।’

এদিকে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া জানান, ‘টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই আমাদের টার্গেট ছিল চ্যাম্পিয়ন হওয়া। আমরা সে লক্ষ্যের একেবারে কাছে। আশাকরি চিটাগংয়ের সমর্থকরা হতাশ হবেন না। দলের সবাই ফাইনালে জিততে মুখিয়ে আছে। আমরা প্রস্তুত দারুণ একটি ম্যাচ উপহার দিতে।’

তেরেঙ্গানু এফসি এবারই প্রথম দেশের বাইরে কোন আসরে খেলতে এসেছে। প্রথম আসরেই বাজিমাত করেছে ফাইনালে উঠে। আর দলের কোচ মোহাম্মদ নাফুজি বিন জেইন হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথম কোচ টুর্নামেন্টে দায়িত্বপালন করছেন। সবকিছু মিলিয়ে দারুন উত্তেজনায় রয়েছে মালয়শিয়ান দলটি। দেশের বাইরে থেকে ট্রফি নিয়ে ফিরতে চাচ্ছে তারা। কোচ বলেন, ‘আমার লক্ষ্য শিরোপা জয়। আশা করি, আগামীকাল খুব উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচ হবে। আমি জানি, স্বাগতিক দলের বিপক্ষে খেলাটা খুব সহজ হবে না। আন্ডারডগ হিসেবে মাঠে নামলে‌ও আমরা আমাদের সেরা খেলাটা খেলতে চাই।।’

দলের অধিনায়ক লি টাক বলেন, ‘আমি মনেকরি আগামীকাল চমৎকার এক ফাইনাল হবে। দু’দলই চমৎকার ফুটবল খেলেছে। তবে স্বাগতিকদের বিপক্ষে তাদের মাঠে খেলাটা আমাদের জন্য সহজ হবে না। তাই আগামীকালকের ম্যাচটিতে আমাদের বাড়তি কষ্ট করতে হবে। তারা ফাইনালের আগে দুই দিন সময় পেয়েছে। সেদিক থেকে তারা কিছুটা এগিয়ে থাকবে।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD