রিয়াল মাদ্রিদের জয়

রিয়াল মাদ্রিদের জয়

দুই গোলে এগিয়ে থেকেও পয়েন্ট হারানোর স্মৃতি এখনও তাজা। এবার ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে গিয়েও হোঁচট খেতে বসেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে এ যাত্রায় গ্রানাদার বিপক্ষে কোনোমতে জিতেছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। লি লিগার ম্যাচে শনিবার ৪-২ গোলে জিতেছে স্পেনের দলটি। এতে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় টানা দুই ম্যাচে ড্র করার পর জয়ে ফিরল রিয়াল।

ক'দিন আগে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ক্লাব ব্রুজের বিপক্ষে ২ গোলে এগিয়ে গিয়েও ২-২ গোলে ড্র করেছিল রিয়াল। এর আগে লা লিগায় গোলশূন্য ড্র করে আথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে।

করিম বেনজেমা শুরুতে দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে ব্যবধান বাড়ান এদেন আজার। দ্বিতীয়ার্ধে দূরপাল্লার শটে বল জালে পাঠান লুকা মদ্রিচ। দুই গোল করে ম্যাচ জমিয়ে তোলে গ্রানাদা। ম্যাচের যোগ করা সময়ে রিয়ালের জয় নিশ্চিত করেন হামেস রড্রািগেজ।

প্রথম আক্রমণেই এগিয়ে যায় রিয়াল। দ্বিতীয় মিনিটের গোলটিতে দারুণ অবদান গ্যারেথ বেলের। তার নিখুঁত ক্রসে দলকে এগিয়ে দেনকরিম বেনজেমা। চলতি লিগে এটি তার ষষ্ঠ গোল।

দ্বাদশ মিনিটে দানি কারভাহালের শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন রুই সিলভা। ষোড়শ মিনিটে অরক্ষিত আলভারো ওদ্রিওসোলার হেড ঠেকিয়ে আবার অতিথিদের ত্রাতা গোলরক্ষক। ২৬ মিনিটে কারভাহালের আরেকটি শট পা দিয়ে কোনোমতে ঠেকিয়ে দেন তিনি।

একের পর এক আক্রমণ করা রিয়াল ব্যবধান বাড়ায় প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে। ফেদেরিকো ভালভেরদের কাছ থেকে বল পেয়ে কিছুটা এগিয়ে চিপ শটে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে জালে পাঠান আজার। চেলসি থেকে এবারের গ্রীষ্মে রিয়ালে যোগ দেওয়ার পর নতুন ঠিকানায় প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে এটাই বেলজিয়ান তারকার প্রথম গোল।

৬১ মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ করেন মদ্রিচ। আজারের কাছ থেকে বল পেয়ে বুলেট গতির শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ক্রোয়াট মিডফিল্ডার। কিছুই করার ছিল না গোলরক্ষকের।


৬৮ মিনিটে ব্যাকপাস ক্লিয়ার করতে গিয়ে তালগোল পাকান রিয়াল গোলরক্ষক আলফুঁস আরিওলা। শেষ সময়ে শট নিতে গিয়ে মেরে বসেন ছুটে আসা আলভারো ভাদিয়োর পায়ে। সফল স্পট কিক থেকে ব্যবধান কমান দারউইন মার্চিস।

ব্যবধান কমানোর পর উজ্জীবিত হয়ে ওঠে গ্রানাদা। ৭৫ মিনিটে ব্যবধান আরও কমিয়ে ফেলছিল তারা। গোললাইন থেকে হেড করে কোনোমতে রিয়ালকে রক্ষা করেন এক ডিফেন্ডার। ৭৭ মিনিটে ঠিকই দ্বিতীয় গোল আদায় করে নেয় অতিথিরা। কর্নার থেকে ভিক্তর দিয়াসের ফ্লিক থেকে বল পেয়ে দারুণ স্লাইডে জাল খুঁজে নেন ডমিঙ্গোস দুরাতে।

৮৫ মিনিটে প্রতি আক্রমণে দারুণ সুযোগ আসে বেনজেমার সামনে। গ্রানাদা গোলরক্ষককে ফাঁকি দিতে পারেননি তিনি। যোগ করা সময়ে আর রক্ষা করতে পারেননি গোলরক্ষক। ওদ্রিওসোলার কাটব্যাকে ইসকোর ডামিতে বল পান অরক্ষিত রদ্রিগেস। তার কোনাকুনি শট অনেক চেষ্টা করেও ঠেকাতে পারেননি সিলভা।  

৮ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে রয়েছে রিয়াল। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে রয়েছে গ্রানাদা। ৭ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে আথলেটিকো মাদ্রিদ। সমান ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে চারে বার্সেলোনা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD