এক সাকিব ভক্তের কথা

এক সাকিব ভক্তের কথা

ফারদিন আল সাজু

সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ ক্রিকেটকে নতুন উচ্চতর আসনে বসানো এক রাজকুমার। সাকিব শুধু একটি নাম নয়- হাজারো শিশু-কিশোরদের আইকন।

নতুন প্রজন্মের কোন ক্রিকেটার কে যদি জিজ্ঞাসা করা হয় তুমি কোন ক্রিকেটারের মতো হতে চাও? তার একটাই উত্তর, একটাই স্বপ্ন-সাকিব আল হাসান। এই রকম সাকিব হতে পারলে তো দেশেরই লাভ। সাকিব মানেই রেকর্ডের বরপুত্র, বলা হয় বাংলাদেশের পেষ্টার বয়। দেশকে রিপ্রেজেন্ট করেন তিনি। বাংলাদেশ ক্রিকেটে তার অবদান অতুলনীয়।

সকালে উঠে যখন সংবাদপত্রে দেখলাম ১৮ মাসের জন্য নিষেজ্ঞায় পড়ছেন সাকিব, তখন তাৎক্ষণিকভাবে হৃদয়টা ভেঙ্গে পড়ে। তখন কি আর কিছুই ভালো লাগে? সংবাদটা এমন হলে ভালো হতো সাকিব জুয়াড়ির প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছেন। কিন্তু খবরটা দেখলাম জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করেছেন সাকিব। এটাই সবচেয়ে বড় অপরাধ সাকিবের। যার কারণে এক বছরে জন্য মাঠের বাইরে চলে গেলেন তিনি। এই ১ বছর দেশের ক্রিকেটপ্রেমিকরা সাকিবকে কতটুকু মিস করবেন তা হয়েতো মিরপুর স্টেডিয়ামের দর্শকের প্রতিবাদের ভাষায় বোঝা যায়। বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যামে সাকিবের ভক্তদের ক্ষোভ দেখা যাচ্ছে। কারণ সাকিব ছাড়া যেন বাংলাদেশ অচল। পুরো বাংলাদেশ তার উপরেই ভরসা করতে পারে।

যে ছেলেটা কিছুদিন আগে‌ও দেশের ক্রিকেটারদের প্রাপ্য সম্মানি দেওয়া হয়না বলে প্রতিবাদ করেন। কোন কিছু না ভেবেই সকল ক্রিকেটারদের নিয়েই নেমে যান দাবী বাস্তবায়নের আন্দোলনে, আজ তাকেই বানানো হলো বলিরপাঠা। তাই অনেকের ভাষ্যমতে, ২৯ অক্টোবর তারিখটা বাংলাদেশের ক্রিকেটে 'কালো দিন' হয়ে থাকবে।

আমার মতে, সাকিবের ভুল করেছেন কিন্তু অন্যায় করেনি। তাই বলে এতো বড় শাস্তি! এটা আমি সাধারণ ভক্ত হিসাবে মেনে নিতে পারছিনা। ক্রিকেট আমাদের আবেগের জায়গা। সেটা যেন ধ্বংস না হয়ে যায়। আর আমরা সাকিবের পাশে থাকতে পারি। আমরা যেন বলতে পারি জুয়াড়িদের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন সাকিব। সাকিব বল ট্যাম্পিরিং বা ম্যাচ ফিক্সিং করেননি। তাকে স্যালুট। শুভ কামনা সাকিব।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD