অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলের ফাইনাল কাল

অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবলের ফাইনাল কাল

ওয়ালটন অনূর্ধ্ব-১৮ ফুটবল শিরোপার জন্য আগামীকাল লড়বে সাইফ স্পোর্টিং কাব ও নোফেল স্পোর্টিং কাব। আজ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাকক্ষে ম্যাচ পূর্ববর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন দুু’দলের কোচ ও খেলোয়াড়রা। এ সময় বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী এমপি ও পৃষ্ঠপোষক ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার উপস্থিত ছিলেন। দুপুর তিনটায় কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হবে।

পেশাদার লিগের জন্য কাড়ি কাড়ি অর্থ খরচ করে দল গোছান কাব কর্তারা। কিন্তু সাইফ ও নোফেলের অনূর্ধ্ব-১৮ দলের রয়েছে মানবিক কাহিনী। নোফেলের আকবর হোসেন রিদন দল গুছিয়েছেন বিভিন্ন জেলা জেলা ঘুরে। রিদনের কথায়, অনেক কষ্টে আমি দলগুছিয়েছি। নোয়াখালীর ১১ জনকে নেয়ার পর বাকি ফুটবলারদের খোঁজে মাঠে নেমে পড়ি। এরপর বিভিন্ন জেলা থেকে বাকিদের সংগ্রহ করেছি। তিনি যোগ করেন, প্রিমিয়ার লিগ থেকে রেলিগেশনে যাওয়ার পর এই টুর্নামেন্টে নোফেল স্পোর্টিং কাবকে গণনাতেও আনেনি। আন্ডার ডগ হিসেবেই শুরু করেছিলাম। এটাই আমাকে এতদুর আসতে সাহায্য করেছে। তবে আমার বিশ্বাস ছিল ফাইনালে খেলবো। নিয়মাবর্তিতা ও পরিশ্রমই নাকি তার দলকে পৌঁছে দিয়েছে ফাইনালে। রিদনের কথা, কমলাপুর স্টেডিয়ামে শত কষ্টের মধ্যেও ছেলেদের আমি দু’বেলা অনুশীলন করিয়েছি। ওরা খুব কষ্ট করে আজ ফাইনালে ওঠে এসেছে। তবে যেহেতু আমি গুরু কামাল বাবুর টেকনিক সবই জানি, ফাইনালে চেষ্টা করবো উনাকে হারাতে।

অন্যদিকে সাইফ স্পোর্টিংয়ের যুব দলটি গরীব ও এতিমখানার খেলোয়াড়দের নিয়েই-এমন কথা জানালেন কোচ কামাল বাবু। তার কথায়, সাইফ স্পোর্টির্ংয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার নাসির চৌধুরী আমাকে সমাজের সুবিধাবঞ্চিত ছেলেদের নিয়ে দল গড়তে বলেছেন। আমি সুবিধাবঞ্চিত ও এতিমখানার ছেলেদের নিয়েই এই দল তৈরী করেছি। যার মধ্যে ৮৫ ভাগ রিকশা ওয়ালাদের ছেলে। অনেক কষ্ট করেছে ওরা। এদের মধ্য থেকে আমি নয়জনকে প্রিমিয়ার লিগে বিভিন্ন দলে খেলার সুযোগ করে দিয়েছি। ওরাই আমার বাজির টেক্কা। তিনি যোগ করেন, দিন শেষে সবার ইচ্ছাই এক। আমরাও শিরোপার জন্য খেলবো।

সালাম মুর্শেদী বলেন, মৌসুমের শেষ টুর্নামেন্ট এটি। হয়তো বর্ষপঞ্জিকাতে আরও টুর্নামেন্ট ছিল। কিন্তু আমরা তা মাঠে গড়াতে পারিনি। এই টুর্নামেন্টটিও লিগ আকারে হওয়ার কথা ছিল। এবার না পারলেও আগামীতে চেষ্টা করবো। ওয়ালটনও আমাদের সেই সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছে। তিনি যোগ করেন, ফাইনাল ম্যাচটি বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামেই আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু বৃষ্টি এবং ভুটানের বিপক্ষে জাতীয় দলের প্রীতি ম্যাচের কারণে কমলাপুরেই ফাইনাল হচ্ছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD