সেমির স্বপ্ন এখন পাকিস্তানের

সেমির স্বপ্ন এখন পাকিস্তানের

দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৪৯ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখলো পাকিস্তান। লর্ডসে, ৩০৯ রানে জয়ের টার্গেটে নেমে ২৫৯ রানে থামে ৯ উইকেট হারানো প্রোটিয়ারা। এর আগে, প্রথমে ব্যাট করে মাচ সেরা হারিস সোহেলের ৮৯ ও বাবর আজমের ৬৯ রানে, ৭ উইকেটে ৩০৮ রানের পুঁজি পায় পাকিস্তান। এই জয়ে ৬ ম্যাচে ৫ নিয়ে বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলার আশা বেঁচে রইলো সরফরাজ আহমেদের দলের।

পাকিস্তান তিনশ’ পাড় হতেই ধারণা করা গিয়েছিল, আরো একটা পরাজয় অপেক্ষা করছে দক্ষিণ আফ্রিকার। হলোও তাই। পেস আর স্পিনে ভেঙে পড়লো প্রোটিয়ারা। তাতে ম্যাচ জিতে সেমির স্বপ্ন এখন পাকিস্তানীদের।

আগের ম্যাচগুলো হেরে আত্মবিশ্বাসের একেবারে তলানিতে এখন দক্ষিণ আফ্রিকা। পেস আর স্পিন আক্রমণে পাকিস্তানীরা শুরু থেকেই প্রোটিয়াদের কোনঠাসা করে ফেলে। ওপেনার কুইন্টন ডি ককের পর অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসিস দলকে পরাজয়ের কিনার থেকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন। ডি কক ৪৭ ও ডুপ্লেসিস ৬৩ রানে বিদায় নিলে, লড়াইটা একপেশে হয়ে যায়। ভ্যান ডার ডুসেন, ডেভিড মিলার ও ফেলুকুয়ো’র প্রচেষ্টা প্রোটিয়াদের জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিলো না।

অবশ্য লর্ডসে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এই ম্যাচটি ছিল পাকিস্তানের জন্য ‘ডু অর ডাই’। শোয়েব মালিকের পরিবর্তে দলে সুযোগ পেয়েই সবকিছু একেবারে পাল্টে দিলেন পাঁচ নম্বরে নামা হারিস সোহেল। ৩৮ বলে ফিফটির পর, বিশ্বকাপে পাঁচ নম্বরে নামা পাকিস্তানী ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ইমরান খানের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলেন। ৫৯ বলে ৮৯ রান করে হারিস যখন সাজঘরে ফেরেন ৭ উইকেট হারানো পাকিস্তানের পুঁজি তখন ৩০৭ রান।

এরআগে, টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নামা পাকিস্তানের দুই ওপেনার ইমাম উল হক ও ফখর জামানের উইকেট নিয়ে বিশ্বকাপে প্রোটিয়া বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩৯ টি উইকেটের মালিক বনে যান ইমরান তাহির। পরে দ্বিতীয় ও ক্যারিয়ারে ১৪তম ফিফটি করা বাবর আজমের ৬৯ রানের কল্যাণে ৭ উইকেটে ৩০৮ রানের বড় স্কোর পায় পাকিস্তান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD