লন্ডনি ঝালমুড়ি

লন্ডনি ঝালমুড়ি

বিশ্বকাপের সঙ্গে সঙ্গে আড্ডাবাজ বাঙালির প্রাণের খাবার ঝালমুড়ি‌ও ইংল্যান্ড মাতিয়ে বেড়াচ্ছে। এই ঝালমড়ি মনের প্রশান্তি মেটালে‌ও পকেটের অবস্থা কিন্তু কাহিল করে দিচ্ছে। এক ঠোঙা ঝালমুড়ির দাম ১০ পাউন্ড। অর্থাত বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ১১০০ টাকা!

অবশ্য মুখরোচক এই খাবারের লোভে পকেটের কথা থোড়াই তোয়াক্কা করছে লোকজন। ভিড় জমাচ্ছেন সেই ঝালমুড়ি খেতে। লাইন পড়ে যাচ্ছে। ব্রিটিশ বিক্রেতা মিস্টার অ্যাঙ্গাস হাসিমুখে একের পর এক খদ্দেরকে ঝালমুড়ি খাওয়ে বিদায় করছেন। কেনিংটন ওভাল স্টেডিয়ামের বাইরে কোট-প্যান্ট ও মাথায় একখানা চেক টুপি পরে তিনি ঝালমুড়ি বিক্রি করছেন। বিশ্বকাপের ম্যাচ দেখতে আসা দর্শকদের কাছে মিস্টার অ্যাঙ্গাস যেন আলাদা এক আকর্ষণ হয়ে উঠছেন।

তিনি জানান, বেশ কয়েক বছর আগে কলকাতায় এসেছিলেন, পেশায় রাঁধুনি মিস্টার অ্যাঙ্গাস। বাঙালি খাবার-দাবারের স্বাদ-গন্ধে তিনি মোহিত হয়েছিলেন। এই শহর থেকে ফিরে তিনি ঝালমুড়ির স্টল দেন। তবে তাঁর স্টলের কোনো স্থায়ী ঠিকানা নেই। কখনও এখানে, তো কখনও ওখানে। স্টলের স্থাযী ঠিকানা নেই ঠিকই। তবে তাঁর স্টল ঘিরে ভিড় আছে প্রচুর। মিস্টার অ্যাঙ্গাস-এর ঝালমুড়ি খেতে হাসিমুখে লাইন দেন সাহেব-মেমসাহেবরা‌ও।

মিস্টার অ্যাঙ্গাস-এর ঝালমুড়ি এক্সপ্রেস এখন জনপ্রিয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সৌজন্যে তাঁর ঝালমুড়ি বিক্রির একটি ভিডিও মুহূর্তে ভাইরাল হয়েছে। দেখে মনে হবে, কোনও গ্রামের রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ঝালমুড়ি বিক্রি করছেন তিনি। শশা-পেঁয়াজ কাটা রয়েছে একটি পাত্রে। প্লাসটিকের মগে রাখা জিনিসপত্র। টক জল দিচ্ছেন মুড়িতে। সঙ্গে মশলা‌ও। কাগজ মুড়িয়ে বানিয়ে নিচ্ছেন ঠোঙা। তারপর মুড়ি মেখে হাতা দিয়ে তুলে দিচ্ছেন সেই ঠোঙায়। হাসতে হাসতে বিক্রি হয়ে যাচ্ছে ঝালমুড়ি। ওভাল স্টেডিয়ামের বাইরে তিনি যতক্ষণ থাকেন, ভিড় জমে থাকে স্টলের সামনে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD