পাকিস্তানের প্রতিপক্ষ আজ নিউজিল্যান্ড

পাকিস্তানের প্রতিপক্ষ আজ নিউজিল্যান্ড

সেমিফাইনালের পথটাকে মসৃণ করতে নিউজিল্যান্ডকে হারাতেই আজ বুধবার মাঠে নামবে পাকিস্তান। দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া পাকিস্তান আগের ম্যাচেই প্রোটিয়াদের হারিয়ে এখন সেমিফাইনালের স্বপ্ন দেখছে। ৬ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে পয়েন্ট টেবিলের সপ্তমে এখন সরফরাজ আহমেদের দল। বার্মিংহামে বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে তিনটায় শুরু হবে ম্যাচটি।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় চাইলে‌ও বাস্তবতার বিচারে ম্যাচটা পাকিস্তানের জন্য কেবল পরীক্ষাই নয়, রীতিমতো অগ্নিপরীক্ষা। কারণ বিশ্বকাপের শুরু থেকেই ধুঁকতে ধুঁকতে আসছে সরফরাজের দল। উল্টোদিকে, উইলিয়ামসনের দল আছে জয়ের মধ্যে। চলতি বিশ্বকাপে এখনো হারেনি নিউজিল্যান্ড। তাতে ৬ ম্যাচে ১১ পয়েন্ট নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার পরেই আছে কিউইরা।

২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে এই ইংল্যান্ডেই চিরশত্রু ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল পাকিস্তান। ‘জিরো থেকে হিরো’ বনে গিয়েছিলেন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর থেকেই পতনের শুরু ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ পাকিস্তানের। এশিয়া কাপ, দক্ষিণ আফ্রিকা সফর এবং পয়মন্ত আমিরাতে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার কাছে দুটি সিরিজে ভরাডুবির পর ঠিক বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ড সফরেও বিধ্বস্ত হয় পাকিরা। ওয়ানডেতে টানা দশ হারের ব্যর্থতা সঙ্গী করে আসরের প্রথম ম্যাচেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ১০৫ রানে অলআউট। ৭ উইকেটের হারে নিজেদের লজ্জার রেকর্ডটা ১১তে উন্নীত করার পর কে ভেবেছিল ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দেবে তারা?

পাকিস্তানীদের এই ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ মেজাজটাই হতে পারে নিউজিল্যান্ডের জন্য ভয়ের কারণ। গত বিশ্বকাপের (২০১৫) ফাইনালে উঠেও প্রতিবেশী অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারতে হয়েছিল কিউইদের। আধুনিক ক্রিকেটে সবসময়ই সমীহ জাগানিয়া দলটি আগের ১১ বিশ্বকাপে ছয়বারই সেমিফাইনালে খেলেছে। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং সব মিলিয়ে দারুণ ভারসাম্যপূর্ণ। ওপেনিংয়ে মার্টিন গাপটিল, কলিন মুনরো। টপঅর্ডারে অধিনায়ক উইলিয়ামসনের সঙ্গী ইনফর্ম রস টেইলর। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান টম লাথামও প্রয়োজনে কম যান না। অলরাউন্ডার হিসেবে জিমি নিশাম, কলিন ডি গ্রান্ডহোম বেশ কার্যকর। স্পিনে মিচেল স্যান্টনার, ইশ সোধি। আর যেটির কথা আলাদা করে বলতে হয় সেটি নিউজিল্যান্ডের পেস আক্রমণ। ট্রেন্ট বোল্ট, ম্যাট হেনরি, লোকি ফার্গুসনের পাশাপাশি চতুর্থ ও পঞ্চম পেসার হিসেবে আছেন নিশাম আর গ্রান্ডহোম। ১০ উইকেটের বড় জয়ের পথে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়ে মিশন শুরু করেছিল নিউজিল্যান্ড। এরপর একে একে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তারা হারিয়েছে।

১৯৭৩ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত মুখোমুখি ১০৬ ওয়ানডের ৫৪টিতে জিতে এগিয়ে পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ডের সাফল্য ৪৮। টাই ১ ও পরিত্যক্ত ৩। আর বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত ৮ দেখায় ৬ জয় পাকিস্তানের, কিউইদের জয় ২টি। দুই পরিসংখ্যানেই এগিয়ে পাকিস্তান। তবে মাঠের খেলায় আজ যারা ভালো করতে পারবেন তারাই জিতবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD