কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা-লিভারপুল

কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা-লিভারপুল

লিওনেল মেসির অসাধারণ নৈপুণ্যে অলিম্পিক লিঁওকে ৫-১ গোলে হারিয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলো বার্সেলোনা। ঘরের মাঠে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে দুই গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদদের দিয়ে আরও দুই গোল করিয়েছেন এই আর্জেন্টাইন সুপারস্টার। অন্যম্যাচে, বায়ার্ন মিউনিখকে তাদেরই মাঠে ৩-১ গোলে হারিয়ে শেষ আট নিশ্চিত করেছে লিভারপুল।

প্রথম লেগ গোলশূণ্য ড্র হওয়ায় বার্সার মাঠ ন্যু ক্যাম্পে ফিরতি লেগটিই দু’দলের জন্য হয়ে উঠেছিলো কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিটের একমাত্র সুযোগ। নিজেদের দুর্গে এমনিতেই ভয়ঙ্কর বার্সেলোনা। তার ওপর জিততেই হবে এমন সমীকরণের ম্যাচের শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রণ স্বাগতিকদের কাছে। বড় ম্যাচ মানেই দুর্দান্ত ফর্মে লিওনেল মেসি। এবারও তাই। ম্যাচের বয়স কুড়ি মিনিট না যেতেই পেনাল্টি পেয়ে কাতালানদের এগিয়ে দেন পাঁচবারের বিশ্বসেরা।

সুয়ারেজ-কুটিনহোর যৌথ নৈপুণ্যে বিরতির আগেই ব্যবধান দ্বিগুণ। বিরতির পর যেনো পুরোটাই মেসি শো। দুটি সুযোগ হাতছাড়া হলেও ম্যাচের শেষ ১৫ মিনিটের খেলা যেনো মেসিময়। ৭৮ মিনিটে নিজে গোল করার পর পিকে আর ডেম্বেলেকে দিয়েও করার দুটি গোল। তাতেই দাপটের সাথে শেষ আটে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা।

দিনের অন্যম্যাচের আগেও সমীকরণটা ছিলো একই। লিভারপুলের মাঠে প্রথম লেগ গোলশূণ্য। তাই কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট পেতে হলে জার্মান জায়ান্টদের মাঠে জয়ের মত অসাধ্য সাধন করতে হতো ইংলিশ ক্লাবটিকে।
কিন্তু ১৫ মিনিটেই ইনজুরির কারণে অধিনায়ককে হারিয়ে আরেকটু চাপে ‘অল রেড’রা। তারপরও ২৬ মিনিটেই আচমকা অতিথিদের আনন্দে ভাসান সাদিও মানে। বিরতির আগেই জোয়েল ম্যাটিপের ভুলে মিলিয়ে যায় সে আনন্দ।

অবশ্য বিরতির পর আর পেছন ফিরে তাকায়নি ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। তাতেই বিধ্বস্ত জার্মান প্রাচীর। জার্মানির জাতীয় দল আর বায়ার্ন মিউনিখের সবচেয়ে ভরসার জায়গা ম্যানুয়েল নুয়্যের বোকা বনলেন দুই-দুইবার। একবার ভ্যান-ডাইক আরেকবার সাদিও মানের কারণে। ইউরোপের শীর্ষ পর্যায়ে জার্মানদের এবারের মৌসুম শেষ তাতেই। আর লিভারপুলের স্বপ্ন যাত্রা এগোলো আরেকটু।

" class="prev-article">Previous article

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD