কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বড় জয়

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বড় জয়

ব্যাট হাতে এভিন লুইসের অপরাজিত সেঞ্চুরির পর ‌ওয়াহাব রিয়াজের হ্যাটট্রিক- তাতে চট্টগ্রামে আজ সোমবার বিপিএলের প্রথম ম্যাচে খুলনা টাইটান্সকে ৮০ রানের বড় ব্যবধানে হারাল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

২৩৮ রানের বিশাল টার্গেট তাড়া করতে নেমে দারুণ সূচনা খুলনার। প্রথম পাঁচ ওভারেই সংগ্রহ ৫১ রান। পরে আর সেই ধারা রক্ষা করতে পারেনি খুলনা টাইটানস। আর ৮০ রানের জয়ে শীর্ষ চারের জায়গাটা আরও শক্ত করলো কুমিল্লা। প্রথমে ব্যাট করে এভিন লুইসের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ৫ উইকেটে ২৩৭ রানের বিশাল স্কোর গড়ে কুমিল্লা। জবাবে সাত বল বাকি থাকে ১৫৭ রানেই অলআউট হয় খুলনা।

ম্যাচ সেরা কুমিল্লার ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ব্যাটসম্যান এভিন লুইস

দলের ষষ্ঠ ওভারে উইকেট হারায় খুলনা। ৫৫ রানের মাথায় ২৭ রান করে ফেরেন জুনায়েদ সিদ্দিকী। এরপর কুমিল্লাকে দ্বিতীয় সাফল্য এনে দেন শহীদ আফ্রিদী। ১৩ রানে থাকা ডেভিড মালানকে ফেরান এই পাকিস্তানি স্পিনার। ব্যাট হাতে আবারও ব্যর্থ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। ৭ বলে ১১ রান করে আফ্রিদীর শিকার হন। পরে প্রায় একা হাতে দলকে টানা ব্রেন্ডন টেলরকেও ফেরান আফ্রিদী। ৩৩ বলে পাঁচ চার ও এক ছক্কায় ৫০ রান করা জিম্বাবুয়ে তারকার ক্যাচ নিজেই নেন আফ্রিদী।

ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, নাজমুল হাসান শান্ত ‌ও আরিফুল হক‌ও নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। খুলনার শেষ তিন ব্যাটসম্যানকে পরপর ফিরিয়ে হ্যাটট্রিক তুলে নেন ওয়াহাব রিয়াজ। ডেভিড ওয়াইজ, তাইজুল ইসলাম ও মোহাম্মদ সাদ্দামকে আউট করেন পাকিস্তানি পেসার। ঢাকা ডায়নামাইটসের আলিসের পর দ্বিতীয় বোলার এই বিপিএলে হ্যাটট্রিক করেন। এতে ১৫৭ রানে থামে খুলনা।

এরআগে, আসরের চতুর্থ আর এভিন লুইসের প্রথম সেঞ্চুরিতে খুলনার বিপক্ষে ২৩৭ রান তোলে ৫ উইকেট হারানো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। বিপিএল ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। এই নিয়ে চলতি আসরে তৃতীয়বারের মতো দুই শতাধিক রানের স্কোর দেখল বিপিএল। এর আগে অ্যালেক্স হেলস ও রাইলি রুশোর সেঞ্চুরিতে চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে বিপিএল ইতিহাসের সর্বোচ্চ ২৩৯ রান তুলেছিল রংপুর রাইডার্স। এই খুলনার বিপক্ষেই ২১৪ রানও করেছিল ভাইকিংসরা।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা বেশ ভালোই করেন কুমিল্লার দুই ওপেনার। জুটিতে ৫৮ রান তুলে ব্যক্তিগত ২৫ রানে আউট হন তামিম ইকবাল। শূন্য হাতে ফেরেন এনামুল হক বিজয়। তবে উইকেটে ঝড় তোলেন এভিন লুইস। ৩১ বলে ফিফটি তুলে ৪৭ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন এই ক্যারিবিয়ান তারকা। শেষ পর্যন্ত ৪৯ বলে ১০৯ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ১০টি ছক্কার সঙ্গে পাঁচটি চারের মারে সাজান এভিন লুইস। ১৫ বলে দুই ছক্কা ও এক চারে ২৮ রান করেন শামসুর রহমান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD