বসুন্ধরার ইতিহাস নাকি রাসেলের শিরোপা উদ্ধার

বসুন্ধরার ইতিহাস নাকি রাসেলের শিরোপা উদ্ধার

স্পোর্টস রিপোর্টার

ঢাকার মাঠে পরীক্ষিত দল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। এক মৌসুমে ট্রেবল জিতে আলোচনায় আসে দলটি। প্রিমিয়ার লিগ, ফেডারেশন কাপ এবং স্বাধীনতা কাপ- তিনটি শিরোপার স্বাদই নিয়েছিল তারা। অন্যদিকে হাল আমলের তারকা সমৃদ্ধ দল বসুন্ধরা কিংস। এবারের মৌসুমে উঠে আসা দলটি সত্যিই চমক দেখিয়ে যাচ্ছে। ফেডারেশন কাপে এসেই ফাইনাল খেলেছে। ব্যাক টু ব্যাক ফাইনাল খেলছে স্বাধীনতা কাপেও। শিরোপা লড়াইয়ে মুখোমুখি শেখ রাসেল ও বসুন্ধরা কিংস। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আজ বুধবার বিকেল সাড়ে চারটায় ম্যাচটি শুরু হবে। শিরোপা জিতলে নতুন ইতিহাস গড়বে বসুন্ধরা স্পোর্টিং ক্লাব। আর শেখ রাসেল জিতলে হবে শিরোপা পূনরুদ্ধার। বাংলাদেশ টেলিভিশন সরাসরি ম্যাচটি সম্প্রচার করবে।

২০১২-১৩ মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগ, ফেডারেশন কাপ ও স্বাধীনতা কাপ তিনটি শিরোপাই জেতে শেখ রাসেল। ওই বছরেই সুপার কাপে রানার্সআপ হয় দলটি। কোচ মারুফুল হকের তত্বাবধানে সেটাই ছিল অলব্লুজদের স্বর্ণালী মৌসুম। এরপর বদলে গেছে দলটি। কোচ মারুফুল হক নেই। দলে সেরা মানের ফুটবলারের অভাবও ছিল প্রচুর। তবে এই মৌসুমে ফের জেগে উঠেছে শেখ রাসেল। কোচ সাইফুল বারী টিটুর তত্বাবধানে স্বাধীনতা কাপে ম্যাড় ম্যাড়ে শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত ফাইনাল খেলছে তারা। গ্রুপ পর্বে বসুন্ধরা কিংস ও শেখ জামালের সঙ্গে গোলশূণ্য ড্র করে মাত্র দু’পয়েন্ট নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট কাটে। চট্টগ্রাম আবাহনীকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালে জায়গা করে নেয় দলটি। আর ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে ব্রাদার্সকে হারায় একই ব্যবধানে। তাই শুরু থেকে ফাইনাল পর্যন্ত উঠের আসার কৃতিত্বটা ফুটবলারদেরই দিলেন কোচ টিটু। তার কথায়, ‘শুরুটা খুবই কঠিণ ছিল। এখন ফাইনালে খেলছি। পুরো কৃতিত্বটাই ফুটবলারদের।’ অধিনায়ক আশরাফুল ইসলাম রানার কথায়, ‘আগে যে গোল করবে, সেই এগিয়ে থাকবে ম্যাচে। আমরাই এগিয়ে থাকতে চাই।’

এদিকে, ফেভারিট হিসেবেই এই ম্যাচটি শুরু করবে বসুন্ধরা কিংস। অনুশীলন ম্যাচ এবং ফেডারেশন কাপে- দু’বার শেখ রাসেলকে হারিয়েছে তারা। তবে এবারের স্বাধীনতা কাপে ড্র করেছে। তাই ফাইনালে আত্মবিশ্বাসী কোচ অস্কার ব্রুজন। তার কথায়,‘ট্রফি জিতেই ক্রিসমাস পালন করতে চাই। নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে চাই।’ টানা দু’টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলছে বসুন্ধরা। এতে কতটা চাপে দলটি? প্রশ্নের উত্তরে অস্কারের কথা, ‘আমি জানি শেখ রাসেল এখন পর্যন্ত কোনো গোল হজম করেনি। খুবই শক্তিশালী দল তারা। তার উপর আমাদের দলে কিছু ইনজুরি সমস্যা রয়েছে। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার জর্জ গোতোর ব্লাস ইনজুরিতে রয়েছে। ফরোয়ার্ড তৌহিদুল আলম সবুজ নিষিদ্ধ অবস্থায়। একটু চাপেতো থাকবোই। তারপরও দেখা যাক কি হয়।’ গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকুর প্রশংসায় পঞ্চমুখ অস্কার, ‘দু’টি ম্যাচ আমাদেরকে জিতিয়েছে সে। অসাধারণ খেলছে। ফাইনালে সেভাবে খেলতে পারলেই আশাকরি আমরা শিরোপা জিততে পারবো।’ অধিনায়ক ইমন বাবুর কথা,‘আমরা মন জয় করে খেলতে চাই। কোচ টিটু ভাইয়ের অধীনে খেলার সুবাদে উনার অনেক কিছুই জানা আছে আমাদের। দেখা যাক ম্যাচে কি হয়।’

তবে বসুন্ধরার তুরুপের তাস যে কোস্টারিকার হয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলা কলিন্দ্রেস- তা একবাক্যে স্বীকার করলেন দু’দলের কোচই।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD