গিনেস রেকর্ড গড়লেন ফয়সাল

গিনেস রেকর্ড গড়লেন ফয়সাল

স্পোর্টস রিপোর্টার

বাংলাদেশে গিনেস রেকর্ডের পথটা দেখিয়েছিলেন টেবিল টেনিস কন্যা জোবেরা রহমান লিনু। সে ধারাবাহিকতায় ক’দিন পরপরই বিশ্বমন্ডলে বাংলাদেশকে পরিচিত করছেন আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বিভিন্ন প্রতিভাবানরা। তাদেরকেই একাট্টা করে পৃষ্ঠপোষকতা করছে ওয়ালটন গ্রুপ।

নতুন এই প্রতিভাবান তরুণের নাম মাহমুদুল হাসান ফয়সাল। তার গ্রামের বাড়ি মাগুরার হাজীপুরে। বেশ কয়েকটি রেকর্ড গড়তে ও ভাঙতে প্রস্তুত মাহমুদুল হাসান ফয়সাল বলেন, ‘২০১৪ সাল থেকে আমি এটা শুরু করি। সেটা শুধু ফুটবল নিয়ে নয়, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে। এই রেকর্ড গড়া কিংবা ভাঙার জন্য আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে আমার নানা-নানী। তাদের উৎসাহেই এতদূর আসা। আমার বাবা-মা প্রথম প্রথম সমর্থন দিতেন না। কিন্তু পরবর্তীতে আমার আগ্রহের প্রতি সম্মতি দেন তারা।’

নড়াইলের কালিয়াতে জন্ম নেয়া ফয়সালের পৈতৃক নিবাস মাগুরার হাজীপুর। সেখানেই শৈশব ও কৈশোর পার করেছেন। বাবা অবসরপ্রাপ্ত আর্মি। মাগুরা সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসি পাসের পর মাগুরা পলিটেকনিক ইনিস্টিটিউটে ভর্তি হন ফয়সাল। বর্তমানে চতুর্থ বর্ষে অধ্যয়ন করছেন। ফয়সাল বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি গিনেস রেকর্ড গড়তে চান, ‘ওয়ালটন গ্রুপ আমার পাশে দাঁড়িয়েছে। তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমি রেকর্ড ভাঙা ও গড়াটাকে প্যাশন হিসেবে নিয়েছি। আমি বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি গিনেস রেকর্ড গড়তে চাই।’

লিনুর পর ফুটবল নিয়ে বিভিন্ন কারুকাজ করে তিনবার গিনেস বুকে নাম লিখিয়েছেন আব্দুল হালিম। ২০১১ সালে বল মাথায় রেখে হেঁটে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে রেকর্ড গড়েছিলেন। এরপর বল মাথায় নিয়ে স্কেটিং জুতা পরে দ্রুততম সময়ে (২৭.৬৬ সেকেন্ড) ১০০ মিটার অতিক্রম করে ২০১৫ সালে নতুন রেকর্ড গড়েন। ২০১৭ সালে বল মাথায় নিয়ে সাইকেল চালিয়ে সবচেয়ে বেশি দূরত্ব অতিক্রম করার রেকর্ড গড়েন। গতমাসেই আরেক সফলতা অর্জন করেন মাসুদ রানা। তিনিও ফুটবল কৌশল দেখিয়ে।

এবার করলেন মাগুরার ফয়সাল। আশ্চর্যের বিষয় হলো ফয়সাল আগে গিনেস কার্যালয়ে এন্ট্রি করে তারপর অনুশিলন শুরু করেন। বুকের সামনের দিকে দুই হাত গোল করে তার মাঝে ফুটবলকে চক্রাকারে ঘুরাতে থাকেন। গিনেস কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেয় জার্মানির ডেভিড র’ একমিনিটে ১২৭ বার বল ঘুরাতে পেরেছিলেন। তোমাকে তা অতিক্রম করতে হবে। ফয়সাল ১ মিনিটে ১৩৪ বার ঘুরিয়ে নতুন রেকর্ড গড়েন। মজার ব্যাপার হলো, তিনি ১৪০ বার পর্যন্ত ঘুরাতে সক্ষম। আজ বুধবার বিওএ ভবনে এই ফয়সালকেই সম্বর্ধনা দিলো ওয়ালটন। প্রাপ্তি এক লাখ টাকা ও ব্লেজার। ভবিষ্যতে ওয়ালটন তার পাশেই থাকবে বলে জানালেন ওয়ালটন গ্রুপের সিনিয়র অপারেটিভ ডিরেক্টর ইকবাল বিন আনোয়ার ডন।

ফয়সাল জানান, ‘গত দুই মাসে আমি পড়ালেখার পাশাপাশি ১২ থেকে ১৩ ঘন্টা অনুশীলন করেছি। ভবিষ্যতে আমি ফ্রি স্টাইলে আরো রেকর্ড গড়তে চাই। দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD