সবে সাফল্য শুরু-অনেক দূর যেতে হবে : সোহেল

সবে সাফল্য শুরু-অনেক দূর যেতে হবে : সোহেল

দেশের শীর্ষ গলফারদের অন্যতম সাখাওয়াত হোসেন। কয়েক বছর ধরেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজের জায়গা করার জন্য লড়ছিলেন। অবশেষে মালয়েশিয়ায় এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ট্যুর টুর্নামেন্ট জিতে তিনি পাদপ্রদীপের আলোয় আসেন। সেই সাফল্য কথাই তিনি ভাগাভাগি করেছেন বাংলাদেশের খেলার ভক্তদের কাছে।

প্রশ্ন : ট্রফি হাতে দেশে ফিরলেন, বিমানবন্দরেই পেলেন সংবর্ধনা—সব কিছু মিলিয়ে ব্যাপারটা কেমন লাগছে?

সাখাওয়াত হোসেন : আন্তর্জাতিক একটা ট্রফি হাতে দেশে ফিরবো এই স্বপ্ন তো আমার অনেক দিনের। এশিয়া ডেভেলপমেন্ট ট্যুরের শিরোপা হলেও এ স্বপ্ন আমার পূরণ হয়েছে। এ আনন্দ বলে বোঝাতে পারব না। ফেরার পর সবার কাছ থেকে যে ভালোবাসা পেয়েছি, তাতে আমি আপ্লুত। আমি বলতে চাই, এ সাফল্য আমার শুরু; এখান থেকে অনেক দূর যাওয়ার আছে আমার।

প্রশ্ন : প্লে-অফে ইগল মেরে সবাইকে বিস্মিত করেছেন, কিভাবে হলো এমন কিছু?

সাখাওয়াত : গত জুলাইয়েই আরেকটা টুর্নামেন্টে প্লে-অফে আমি হেরে গিয়েছিলাম। সেই শিক্ষাটাই আমি এ টুর্নামেন্টে কাজে লাগিয়েছি বলতে পারেন। আমার কোচ অ্যান্ড্রু আর্গুসের সঙ্গেও এ নিয়ে আমার কথা হয়েছে। উনার পরামর্শ ছিল যখন যে শটটা মারছি, সে শটটা নিয়েই শুধু ভাবতে। আগে-পরের সব কিছু মন থেকে মুছে ফেলার সূত্রেই আমার এ সাফল্য। এ পরিস্থিতিতে ইগল খেলাটা আসলেই অন্য রকম। আমি নিজেও অবাক হয়েছি।

প্রশ্ন : কাছাকাছি সময়ের মধ্যে দুটি টুর্নামেন্টে শিরোপার জন্য প্লে-অফ খেলা। তার মানে যে ধারাবাহিকতার অভাব নিয়ে আপনি নিজেও উদ্বিগ্ন ছিলেন, তা কি কেটে গেছে?

সাখাওয়াত : অনেকটাই। গলফে আবেগ নিয়ন্ত্রণটাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার। টুর্নামেন্ট থেকে টুর্নামেন্টে শুধু নয়, টুর্নামেন্টের মধ্যেও আমি ধারাবাহিকতা হারিয়ে ফেলেছিলাম সব কিছুতে অতিরিক্ত প্রতিক্রিয়া দেখাতে গিয়ে। এখন তো শুধু যে শটটা খেলছি তা নিয়েই ভাবার চেষ্টা করছি। যে কারণে আবেগ নিয়ন্ত্রণ করাটা সহজ হচ্ছে। এ জন্য আমার কোচের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। সব কিছু সহজভাবে নেওয়ার শিক্ষাটাই তিনি আমাকে দিয়েছেন।

প্রশ্ন : অনেক দিন ধরেই তো অস্ট্রেলিয়ান এই কোচের সঙ্গে আপনি কাজ করছেন।

সাখাওয়াত : হ্যাঁ, সাত-আট বছর হবে। উনি মালয়েশিয়াতেই থাকেন। এ টুর্নামেন্টের সময় আমি তাঁকে পাশে পেয়েছি ভালোভাবেই।

প্রশ্ন : এ টুর্নামেন্ট জিতে তো আপনি আগামী বছর এশিয়ান ট্যুরে সুযোগ পাওয়ারও পথ করে ফেলেছেন?

সাখাওয়াত : হ্যাঁ, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ট্যুরের অর্ডার অব মেরিটে শীর্ষ সাতে থাকতে পারলে আগামী বছর বাছাই ছাড়াই আমি এশিয়ান ট্যুর খেলতে পারব। আর সত্যি বলতে এটাই আমার লক্ষ্য। যে কারণে ভারতীয় সার্কিট পিজিটিআইয়ের চেয়ে আমি এডিটিতেই বেশি মনোযোগ দিয়েছি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD