ভাল খেলতে নিজেকে উজাড় করে দিতে চাই : রোমান সান

ভাল খেলতে নিজেকে উজাড় করে দিতে চাই : রোমান সান

বাংলাদেশ আর্চারির সম্ভাবনাময় তরুণ রোমান সানা। বিশ্বকাপে প্রথমবার অংশ নিয়েই ব্যক্তিগত রিকার্ভে পৌঁছেছিলেন তৃতীয় রাউন্ডে। টোকিও অলিম্পিক পর্যন্ত বৃত্তি পেয়ে অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছেন সুইজারল্যান্ডে। এশিয়ান গেমসে নিজের সেরা স্কোর করে ছাড়িয়ে যেতে চান রোমান সানা নিজেকেই।

প্রশ্ন : এশিয়ান গেমসের প্রস্তুতি কেমন হচ্ছে?

রোমান সানা : খুবই ভালো। সিটি গ্রুপের তীর স্পন্সর হওয়ার পর টানা অনুশীলনে আছি আমরা। বাংলাদেশের আর্চারিতে এটা ভাবা যেত না একটা সময়। জার্মান কোচ ফ্রেডরিখ আসার পর সবার স্কোরে উন্নতি হয়েছে অনেক। আমরা প্রথমবার সুযোগ পেয়েছি আর্চারি বিশ্বকাপে। এ সাফল্যটা ছোট করে দেখা যাবে না। আর্চারি বিশ্বকাপ অনেক মর্যাদার টুর্নামেন্ট। সেখানে প্রথমবার অংশ নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালেও খেলেছিল বাংলাদেশ।

প্রশ্ন : ব্যক্তিগত ইভেন্টে আপনি পৌঁছেছিলেন তৃতীয় রাউন্ডে। সব মিলিয়ে হয়েছেন ১৭তম। এটা কি সন্তুষ্টির?

রোমান সানা : প্রথমবার বিশ্বকাপে অংশ নিয়ে ১৭তম হওয়া অবশ্যই সন্তুষ্টির। আমরা চাইনিজ তাইপের চেয়ে আর্চারিতে অনেক পিছিয়ে। সেখানে সেই দেশের আর্চারকে হেড টু হেডে হারিয়েছি আমি। আসলে আমাদের খেলাটাই হেড টু হেডের। ঠিক সময়ে ভালো কয়েকটা নিশানা দরকার।

প্রশ্ন : সেই প্রস্তুতি নিশ্চয়ই আছে আপনার?

রোমান সানা : তা তো বটেই। অজুহাত শোনাতে পারে, এর পরও বলে রাখি—জাকার্তায় বাতাস সমস্যা করতে পারে কিছুটা। জার্মানি বিশ্বকাপে সেই সমস্যায় পড়েছিলাম। আমাদের বাংলাদেশে সাধারণত প্রচণ্ড বাতাস থাকে না। অনুকূল পরিবেশে অনুশীলন করতে পারি। কিন্তু বাইরের দেশে ব্যাপারটা আলাদা। জার্মানি বা ইন্দোনেশিয়ায় বাতাসের গতি প্রচণ্ড। তাতে সমস্যা হতে পারে কিছুটা। ব্যাপারটা অন্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের জন্যও এক। আমি চেষ্টা করব নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার।

প্রশ্ন : রিকার্ভের ব্যক্তিগত ইভেন্টে আপনার সেরা স্কোর কত?

রোমান সানা : খুব খারাপ বলব না। ৭২০-এর মধ্যে ৬৭৯। এ স্কোরটা করতে পারলে কোয়ার্টার ফাইনাল বা সেমিফাইনালে পৌঁছানো অসম্ভব নয়। এশিয়ান গেমসে দক্ষিণ কোরিয়া, চীন, চাইনিজ তাইপে, জাপানের প্রতিদ্বন্দ্বীদের স্কোর জানি। ৬৭৫ থেকে ৬৯০-এর ঘরে ঘোরাফেরা করে স্কোরটা। আমি নিজেকে ছাড়িয়ে যেতে পারলে, দেখা যাক কী হয়?

প্রশ্ন : কোচ মার্টিন ফ্রেডরিখ বাংলাদেশের সেরা আর্চার মনে করেন আপনাকে।

রোমান সানা : আমার সৌভাগ্য তিনি এতটা পছন্দ করেন। সুইজারল্যান্ডে আমার বৃত্তি পাওয়ায় ভীষণ খুশি তিনি। কোচ হয়ে এসে আপন করে নিয়েছেন পুরো দেশটাকে। আমরা যেমন দেশের জন্য ভালো করতে সব উজাড় করে খেলতে চাই, তেমনি ফ্রেডরিখও নিজের জানা সব কৌশল শেখাচ্ছেন আমাদের।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD