বাংলাদেশের টেস্ট লজ্জা

বাংলাদেশের টেস্ট লজ্জা

ব্যাটিংয়ের স্থায়ীত্ব মাত্র ১৮ ‌ওভার ৪ বল। ‌ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাতেই গুটিয়ে গেলো বাংলাদেশ। আর টেস্ট ক্রিকেটে সর্বনিম্ন রানের দক্ষিণ আফ্রিকার রেকর্ডে ভাগ বসালো তামিম-সাকিবরা। সর্বনিম্ন রানের লজ্জার রেকর্ডের প্রোটিয়াদের সঙ্গে যৌথভাবে দশম অবস্থানে এখন বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বুধবার বাংলাদেশ ৪৩ রানে অল আউট হওয়ার আগে ১৯৮৯ সালের ২৫ মার্চ কেপটাউনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪৩ রানে সবকটি উইকেট হারিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ওইটা ছিল ৩২তম টেস্ট। বাংলাদেশ এই লজ্জার রেকর্ড করলো ২ হাজার ৩১০ তম টেস্ট ম্যাচে।

লজ্জার রানের রেকর্ডে নবম, অস্টম এবং সপ্তম অবস্থানে আছে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের নাম। এই তিন দেশের সর্বনিম্ন রান ৪২ করে। ষষ্ঠ অবস্থানে আছে ১৯০২ সালে অস্ট্রেলিয়ার করা ৩৬ রান। ৭০তম টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষ ছিল ইংল্যান্ড। এছাড়া পঞ্চম থেকে দ্বিতীয় পর্যন্ত লজ্জার রেকর্ডের রানগুলো দক্ষিণ আফ্রিকার। দলটি বিভিন্ন সময়ে আউট হয়েছে ৩৬, ৩৫ এবং ৩০ ‌ও ৩০ করে। তবে এখন পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে কম রানের রেকর্ড নিউজিল্যান্ডের। ১৯৫৫ সালের ২৫ মার্চ অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ৪০২তম টেস্টে তারা রান করেছিল মাত্র ২৬। এই রেকর্ডেও প্রতিপক্ষ ছিল ইংল্যান্ড।

বাংলাদেশ টেস্টে সর্বনিম্ন ৪৩ রানের স্কোর করেছে ওযেস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। এর আগে টেস্টে বাংলাদেশের এক ইনিংসে সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড ছিল ৬২ রানের। ১২ বছর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পেতে হয়েছিল সেই লজ্জা।

বল হাতে একাই ক্যারিবিয়ান ঝড় তুলেছেন কেমার রোচ। ১০ রানের মাথায় তামিম ইকবালকে ফিরিয়ে শুরু করেছেন তিনি। ১৩ বলে ৪ রান করে বিদায় নেন তামিম। এরপর লিটন দাস ছাড়া আর সবাই নিজেদের নামের পাশে টেলিফোনের ডিজিট বসান। লিটন প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে করেন ২৫ রান।
‌ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের মধ্যে কেমার রোচ ৮ রানে ৫টি এবং কামিন্স ৩টি ‌ও জেসন হোল্ডার ২টি করে উইকেট নিয়ে বাংলাদেশ শিবিরে ধ্বস নামান।

" class="prev-article">Previous article

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD