আরচ্যারিতে জার্মান কোচ

আরচ্যারিতে জার্মান কোচ

‘তীর গো ফর গোল্ড’ প্রোগ্রামের আওতায় জার্মান কোচ ফ্রেডেরিক মার্টিনকে নিয়েই অলিম্পিকে পদক জয়ের লক্ষ্যে নেমেছে বাংলাদেশ আরচারি ফেডারেশন। ১৯৬৮ সাালে বার্লিনে জন্ম নেয়া জার্মান কোচ ফ্রেডেরিক গত ছয় বছর কাজ করেছেন চিলির জাতীয় আরচারি দলের কোচ হিসেবে। লিপজিগ স্পোর্টস ইউনিভার্সিটি থেকে কোচিংয়ে সার্টিফিকেট পাওয়া ফ্রেডরিক এরআগে জার্মানীর হেড কোচ, জুনিয়র দলের কোচ এবং বার্লিনের অলিম্পিক সেন্টারে দায়িত্ব পালন করেন

প্রোজেক্টের আওতায় উদীয়মান আরচ্যার এবং জাতীয় দলের আরচ্যারদের ক্রীড়া নৈপুণ্য বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে জার্মান কোচ ‘ফ্রেডরীক মার্টিন’ কে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। জার্মান কোচ ফ্রেডরিক মার্টিন গত ১৪ ফেব্রুয়ারী থেকে টঙ্গিতে আরচ্যারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র শহীদ আহসান উল্লাহ্ মাস্টার স্টেডিয়ামে, এদেশের আরচ্যারদের নিয়ে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করেছেন।

আজ সোমবার বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের ডাচ্-বাংলা ব্যাংক অডিটোরিয়ামে ফ্রেডেরিক মাটির্নের সঙ্গে বাংলাদেশ আরচ্যারি ফেডারেশনের পাঁচ বছরের জন্য চুক্তি স্বাক্ষর হয়। চুক্তি প্রতি বছরের ডিসেম্বর মাসে নবায়ন করা হবে। চুক্তি স্বাক্ষর শেষে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ আরচ্যারি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজীব উদ্দিন আহমেদ চপল এবং সিটি গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক (মার্কেটিং এন্ড ফাইন্যান্স) শোয়েব মো: আসাদুজ্জামান ‘তীর গো ফর গোল্ড’ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানান। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ আরচ্যারি ফেডারেশনের সহ-সভাপতি এবং প্রশিক্ষণ ও উন্নয়ন কমিটির আহ্বায়ক মো: আনিসুর রহমান দিপু, ফেডারেশনের নির্বাহী কর্মকর্তা ও সিটি গ্রুপের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ আরচ্যারিতে ফ্রেডেরিক পঞ্চম বিদেশী কোচ। ভারতীয় নিশীথ দাস ছিলেন প্রথম বিদেশী। যিনি অদ্যাবধি কাজ করে যাচ্ছেন আরচ্যারির সঙ্গে। এরপর ব্রিটিশ রিচার্ড জন প্রিয়েস্টম্যান বাংলাদেশে এসেছিলেন। কোরিয়ার মেউন কুন পার্ক কাজ করেছেন বাংলাদেশের আরচ্যারদের নিয়ে। সবশেষ বিদেশী কোচ হিসেবে এসেছিলেন কোরিয়ার কোচ হেগ ইয়ং কিম।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD