শেষ আট থেকে বিদায় মামুনের

শেষ আট থেকে বিদায় মামুনের

প্রথমবারের মত বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এশিয়ান আরচ্যারি চ্যাম্পিয়নশীপ। বাংলাদেশের এই আয়োজনকে আরো রঙ্গিয়ে তুলেছিলেন স্বগতিক আরচ্যার আবুল কাশেম মামুন। পুরুষদের একক কম্পাউন্ড বিভাগে কারাবাইয়েভকে হারিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠা এই বাংলাদেশী তীরন্দাজ ওই রাউন্ডে ১৫০ পয়েন্টের মধ্যে ১৪৯ পয়েন্ট নিয়ে তাইপের ওয়েং ইকে হারিয়ে তাক লাগিয়ে দেন। বিশ্ব মানের কোন আরচ্যারের পক্ষেই সম্ভব এমন স্কোর করা।

তবে আজ বুধবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সকালে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেও শেষ পর্যন্ত হার মানেন ভারতের অভিষেক ভার্মার কাছে। ফলে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয় মামুনকে। কম্পাউন্ড এককের এই কোয়ার্টার ফাইনালে ১৪১ স্কোর করেছিলেন মামুন। ১৪৮ স্কোর করে তাকে টপকে যান ভারতের অভিষেক।

অনেক প্রতিকূলতার মধ্য দিয়েই এবারের টুর্নামেন্টে অংশ নিতে হয়েছে বাংলাদেশ আনসারের এই আরচ্যারকে। গত ২২ নভেম্বর বিএ শেষ বর্ষের পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। সেই প্রস্তুতিও ছিল মামুনের। পরীক্ষা পিছিয়ে যাওয়ায় ঘরের মাঠে এশিয়ান আরচ্যারি চ্যাম্পিয়নশিপে খেলার সুবর্ণ সুযোগ পান নড়াইলের এই আরচ্যার। পরীক্ষা না পেছালে হয়তো তাকে এই প্রতিযোগিতায় পাওয়া যেত না। যেমনটি অংশ নিতে পারছেননা সজিব।

আজ পরাজিত হবার পর কিছুটা হতাশ মামুন জানান, ‘আসলে বড় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনের অভিজ্ঞতা আমাদের কম। তাই এই পর্যায়ে এসে কিছুটা নার্ভাসনেস ছিল। সেই সঙ্গে যুক্ত হয় প্রতিকুলে বাতাসের প্রবাহ।’

তিনি আর‌ও বলেন, ‘আগামীতে আরো ভাল করতে হলে অবশ্যই আরো বেশী করে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহনের সুযোগ করে দিতে হবে। ভারত বা কোরিয়ার আরচ্যাররা যে পরিমান টুর্নামেন্টে অংশ নেয়ার সুযোগ পায় তার ধারে কাছেও নেই আমরা।’

২০০৯ সাল থেকেই বাংলাদেশে রিকার্ভ ইভেন্টের সেরার অবস্থান ধরে রাখা নড়াইলের ছেলে মামুন। এর আগে ইসালামী সলিডারিটি আরচ্যারিতে দুটি স্বর্ন পদক জয় করেন তিনি। ১৭ দেশের অংশগ্রহনে ওই প্রতিযোগিতায় তিনি মিক্স টিম ও টিম ইভেন্টে স্বর্ন পদক জয় করেছিলেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD