সাকিবের চোখে এটা স্বাভাবিক ফলই!

সাকিবের চোখে এটা স্বাভাবিক ফলই!

চরম হতাশার একটি সফর কাটলো বাংলাদেশের। টেস্ট, ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজেও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হোয়াইটওয়াশ হলো টাইগাররা। টেস্ট-ওয়ানডে না হোক, গত দুই বছর ধরে ভালো খেলা বাংলাদেশ অন্ততপক্ষে একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জিতবে, এমন আশা ছিল ক্রিকেটপ্রেমীদের। কিন্তু আখেরে দেখা গেল, 'যে লাউ সেই কদু।' শেষটা বরং হলো আরও হতাশার। তবে বাংলাদেশ দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এমন ফলকে স্বাভাবিকই বলছেন।

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ দল দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারাতে পারে, এমন বিশ্বাসটা আসলে তৈরি হয়েছিল সিরিজের প্রথম ম্যাচের পর। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে লড়াই করে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ২০ রানে হেরেছিল সাকিব আল হাসানের দল। দ্বিতীয়টিতেও বোলিংয়ে শুরুটা ভালো হয়েছিল। কিন্তু ডেভিড মিলারের এক বিধ্বংসী সেঞ্চুরির পর আদতে ম্যাচটা জেতার আত্মবিশ্বাস শেষ হয়ে যায় টাইগারদের।

২২৫ রানের বড় সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে পাঁচ ওভার শেষে বাংলাদেশের রান ছিল ৩ উইকেটে ৩৩। সেনউইজ পার্কের ডিজিটাল স্কোরবোর্ড দেখাচ্ছিল, ডার্কওয়ার্থ লুইসে তখন পার স্কোর ৮৮ রান। এ থেকেই বোঝা যাচ্ছে, রান তাড়ায় কখনোই জয়ের সম্ভাবনাও তৈরি করতে পারেনি বাংলাদেশ। শেষপর্যন্ত তারা ম্যাচটা হেরেছে ৮৩ রানের বড় ব্যবধানে।

প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আশা জাগিয়ে শেষটায় একেবারে লড়াই করতে না পারায় কিছুটা হতাশ বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তবে বিদেশ সফরে এমন ফলকে স্বাভাবিকই মনে করছেন তিনি, 'এটাকে কিছুটা স্বাভাবিক ফলই বলা যায়, বাইরের সফরে এমন ফল হতেই পারে। সম্ভবত আমরা যে হারব এটা জানাই ছিল। তবে আশা করিনি এভাবে হারব। আমরা নিজেদের সামর্থ্য সম্পর্কে জানি, তবে কেউই তার সামর্থ্য অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারেনি।'

হারলেও বিদেশ সফর শেষে একটা প্রশ্ন চলেই আসে। এখান থেকে ইতিবাচক কি পেলেন? সাকিব অবশ্য হতাশার বাণীই শোনালেন। তবে সামনের বিরতিতে নিজেদের শারীরিক ও মানসিক দৃঢ়তা আরও বাড়ানোর উপর জোর দিচ্ছেন বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক, 'যদি দল না জেতে, তবে কে কি করল এটা ব্যাপার না। এটা একটা দলীয় খেলা। সবাই দলকে জেতানোর জন্য খেলে। কঠিন একটা সময় কেটেছে। তবে এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কিছুটা বিরতি পাব আমরা। শারীরিক এবং মানসিক ফিটনেস বাড়াতে হবে আমাদের।'

সাকিব অবলীলায় স্বীকার করে নিলেন, বাংলাদেশের এই দলটার এখনও টি-টোয়েন্টিতে দুইশ রানের বেশি তাড়া করার মত সামর্থ্য তৈরি হয়নি। ৩৫ বলে সেঞ্চুরি করে ডেভিড মিলারই অর্ধেক ম্যাচ যেতেই টাইগারদের সব সম্ভাবনা শেষ করে দিয়েছেন মানছেন সাকিব, 'প্রথম টি-টোয়েন্টির পর আমরা ভেবেছিলাম, ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ আছে। আজ (রোববার) যেভাবে শুরু করেছিলাম, সুযোগ ছিল। কিন্তু যেভাবে মিলার ব্যাট করলো, সেটার জবাব দেয়ার আসলে কঠিন ছিল। এখনও ২০০ বা ২২০ রান তাড়া করার মত মানসিক দৃঢ়তা তৈরি হয়নি আমাদের।'

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD