ধৈর্যের পুরস্কার পেয়েছি: আব্দুল্লাহ হেল বাকী

ধৈর্যের পুরস্কার পেয়েছি: আব্দুল্লাহ হেল বাকী

স্বর্ণ ধরা দিয়েও দিচ্ছিল না। ২০১০ এর ঢাকা এসএ গেমসের পর শ্যুটার আবদুল্লাহ হেল বাকির কাছে আন্তর্জাতিক ইভেন্টে স্বর্ণ যেন সোনার হরিণই হয়ে থাকছিল। অবশেষে স্বর্ণ উঠলো দেশের অন্যতম সেরা শ্যুটার বাকির হাতে। যদিও এককে নয়, বাকি স্বর্ণ জিতেছেন নারী শ্যুটার সৈয়দা আতকিয়া হাসান দিশার সঙ্গে, মিশ্র দ্বৈতে। আজারবাইজানের বাকুতে চলমান চতুর্থ ইসলামী সলিডারিটি গেমসের দ্বিতীয় দিনে এ দুই জন স্বর্ণ জিতেছেন মিশ্র দলগত ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে। ঢাকা এসএ গেমসে বাকি ১০ মিটার এয়ার রাইফেলের দলগত ইভেন্টে স্বর্ণ জিতেছিলেন আসিফ হোসেন ও শোভন চৌধুরীকে নিয়ে। গত এসএ গেমসে একই ইভেন্টে বাকি রৌপ্য জিতেছিলেন শোভন চৌধুরী ও অঞ্জন কুমার সিংহকে নিয়ে। তার আগে গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে পেয়েছিলেন রৌপ্য পদক। বারবার স্বর্ণের কাছ থেকে ফিরে এসেও হাল ছাড়েননি বাকি। ধৈর্য্য ধরে সাধনা করে গেছেন। যার ফল তিনি পেলেন অর্ধযুগ পর। বাকুতে পদক জয়ের পরপরই নিজের ফেসবুক ওয়ালে সাফল্যের জন্য বাকি আল্লার কাছে শুকরিয়া আদায় করেন। সমর্থন দেয়ার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন শুভাকাঙ্খীদের, ‘গত ৩/৪ বছরে ৩টি বিশ্বকাপসহ অনেকগুলো আন্তর্জাতিক গেমসে অংশ নিয়েছি; কিন্তু ২০১৬ এসএ গেমসে টিম ইভেন্টে সিলভার বাদে মেডেল পাইনি কোনটাতেই। ফাইনালে গিয়েও শেষ হচ্ছিল না মনের মতো। কোচ বারবার ধৈর্য্য ধরে রাখার উপদেশ দিয়ে নিজের উপর আস্থা না হারানোর কথা বলেছিলেন। আমি কোচের কথাতেই বিশ্বাসটা ধরে রেখেছিলাম’- পদক জয়ের পর গণমাধ্যমকে বলেন বাকি। স্বর্ণ জয়ের অনুভূতি জানাতে গিয়ে বাকি বলেন, ‘এ পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় পদক জয়ই থাকে সবার লক্ষ্য। আর যদি সেটা হয় স্বর্ণপদক, তার অনুভূতি প্রকাশ করা যায় না। আমার অনুভূতিটাও বলে বোঝানো যাবে না। আমি মনে করি এই পদকটি আমার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবেই এসেছে। এখন আমার একটাই লক্ষ্য টোকিও অলিম্পিকে কোটা প্লেস।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD