আরামবাগকে হারিয়ে শেষ আটের আশা বাঁচিয়ে রাখলো মোহামেডান

আরামবাগকে হারিয়ে শেষ আটের আশা বাঁচিয়ে রাখলো মোহামেডান

স্পোর্টস রিপোর্টার: বড় দলগুলোর মতো তারকা সমৃদ্ধ নয় বরং তারুণ্য নির্ভর দল গড়েছে আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ। কাগজে-কলমে খর্ব শক্তির দল নিয়েও আজ মঙ্গলবার ফেডারেশন কাপ ফুটবলে শক্তিশালী মোহামেডান স্পোর্টিংয়ে রীতিমতো ঘাম ঝরায় তারা। যদিও শেষ রক্ষা হয়নি। ২-১ গোলের ব্যবধানে হারতে হয়েছে আরামবাগকে। জয়ী দলের নাম মোহামেডান। কিন্তু এই হারের মধ্যে আছে তৃপ্তি। সুন্দর পাসিং আর ছন্দময় ফুটবল উপহার দেয় মারুফুল হকের শিষ্যরা। হারলেও শেষ আটের সম্ভাবনা কিছুটা এখনো রয়েছে আরামবাগের। কারণ ‘সি’ গ্রুপে থাকা আরেক দল চট্টগ্রাম আবাহনী, ঢাকা মোহামেডানকে পরাস্ত করেছিল। এতে আগামী বৃহস্পতিবার বন্দরনগরীর দলটিকে বড় ব্যবধানে পরাস্ত করতে পারলেই কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যাবে মারুফুল হকের শিষ্যরা। যদি ঐ ম্যাচে আরামবাগ ২-১ গোলে জয় পায়, সেক্ষেত্রে লাল ও হলুদ কার্ডের হিসেবে নির্ধারণ করা হবে কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট। যে দল বেশী কার্ড পেয়েছে, বিদায় নিতে হবে তাদেরকেই।
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যার ম্যাচে তারুণ্যনির্ভর দল নিয়ে মোহামেডানকে বেশ ভালোভাবেই চেপে ধরেছিলো আরামবাগ। ছোট ছোট পাসে নিজেদের মধ্যে বলের নিয়ন্ত্রন ধরে রাখে মাঝারি শক্তির দলটি। সাফল্য পেতেও বেশী সময় অপেক্ষা করতে হয়নি তাদের। ১৩ মিনিটে মোহামেডানকে লজ্জায় ডুবিয়ে এগিয়ে যায় আরামবাগ। পরিকল্পিত আক্রমনে ডান দিক থেকে নেয়া রাজন মিয়ার শট সাদা-কালো শিবিরের গোলরক্ষক রাসেল মাহমুদ লিটন প্রতিহত করতে ব্যর্থ হলে সামনে দাঁড়ানো রবিউল প্লেসিং শটে নিশানা ভেদ করেন (১-০)। উৎসবে মেতে উঠে আরামবাগের সমর্থকরা।
পিছিয়ে পড়লেও হতাশ হয়নি মোহামেডান। বরং ম্যাচে ফিরতে প্রাণান্ত চেষ্টা ছিলো তাদের। আর এগিয়ে যাওয়া আরামবাগ নেয় রক্ষণশীল কৌশল। তবে কাউন্টার অ্যাটাকে প্রতিপক্ষকে পরাস্ত করার চেষ্টাও ছিলো আরামবাগের। সাদা-কালো দূর্গে বেশ কয়েকবার আক্রমণও চালায তারা। কিন্তু গোল ব্যবধান বাড়াতে পারেনি। উল্টো ম্যাচের ৩৪ মিনিটে গোল হজম করতে হয় মারুফুল হকের শিষ্যদের। সাদা-কালো শিবিরকে সমতায় ফিরিয়ে আনেন গত মৌসুমে চট্টগ্রাম আবাহনীতে খেলা সিলেটি স্ট্রাইকার তকলিস। ইলিয়াসুর ব্যাকভলি থেকে বল পেয়ে প্রথমে ব্যর্থ হলেও দ্বিতীয়বার আর ব্যর্থ হননি তিনি। ফিরতি শটে আরামবাগের গোলরক্ষক মাহফুজ হাসান প্রিতমকে পরাস্ত করে চলতি আসরে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন তকলিস (১-১)।
দ্বিতীয়ার্ধে বেশ ভালোভাবেই ম্যাচে ফিরে আসে নৈমুদ্দিনের শিষ্যরা। ম্যাচের ৬৬ মিনিটেই এগিয়ে যায় তারা। নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড কিংসলে সহজ এক গোলে দলকে উৎসবে মাতিয়ে তোলেন। আরামবাগের গোলরক্ষক মাহফুজ হাসানের ভুলেই গোল হজম করতে হয়। নিজেদের ডিফেন্ডারদের ব্যাক পাস ক্লিয়ার করতে গিয়ে ব্যর্থ হলে ফাঁকা পোষ্টে বল ঠেলে দেন মোহামেডানের এ নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড (২-১)। এই জয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার পথটা হাতের নাগালে চলে আসে মোহামেডানের। তবে তার জন্য চেয়ে থাকতে হবে আরামবাগ- চট্টগ্রাম আবাহনীর মধ্যকার ম্যাচের ফলাফলের দিকে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD