দাপুটে জয় পেল ডি ভিলিয়ার্সের দক্ষিণ আফ্রিকা

দাপুটে জয় পেল ডি ভিলিয়ার্সের দক্ষিণ আফ্রিকা

ইনজুরি কাটিয়ে দীর্ঘ দিন পর জাতীয় দলে ফিরলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স; ফিরেছেন অধিনায়ক হয়েই। তার নেতৃত্বে জয়ে ফিরলো টি-টোয়েন্টি সিরিজ হাতছাড়া করা দক্ষিণ আফ্রিকাও। সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮ উইকেটের দাপুটে জয় পেয়েছে প্রোটিয়ারা। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ডি ভিলিয়ার্সের দল।

পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জ পার্কে প্রথমে ব্যাট করে ৪৮.৩ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৮১ রান তোলে লঙ্কানরা। জবাবে ৩৪.২ ওভারে মাত্র ২ উইকেট খুইয়ে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে দক্ষিণ আফ্রিকা।

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রোটিয়াদের শুভসূচনা এনে দেন দুই ওপেনার কুইন্টন ডি কক ও হাশিম আমলা। ৪০ বলে ৪টি চারে ৩৪ রান করা ডি কক শিকারের পরিণত হন সান্দাকারের। গুনারত্নের বলে তার হাতেই ক্যাচ তুলে দেন আমলা। বিদায়ে আগে ৭১ বলে পাঁচটি চার ও একটি ছক্কায় আমলা করেন ৫৭ রান।

দক্ষিণ আফ্রিকাকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন ফ্যাফ ডু প্লেসিস ও এবি ডি ভিলিয়ার্স। ৬৮ বলে পাঁচটি চারের মারে ৫৫ রান করেন ডু প্লেসিস। আর অধিনায়ক ভিলিয়ার্সের ব্যাট থেকে আসে ৩০ রান। তার ২৭ বলের ইনিংসটি সমৃদ্ধ তিনটি চার ও একটি ছক্কায়।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে শ্রীলঙ্কা। দলের স্কোরশিটে ১ রান যোগ হতেই ওপেনার ডিকওয়েলা ফেরেন সাজঘরে। ব্যক্তিগত ৫ রানের মাথায় বিদায় নেন আরেক ওপেনার ওয়েরাকোদিও।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেছেন কুশল মেন্ডিস। ৯৪ বলে ১০টি চারের সাহায্যে ইনিংসটি সাজান তিনি। ধনঞ্জয় ডি সিলভার ব্যাট থেকে আসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৮ রান। উইকেটরক্ষক দিনেশ চান্দিমাল করেন ২২ রান। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের অনুপস্থিতিতে অধিনায়কের ভূমিকা পালনকারী উপল থারাঙ্গা ৬ রানের বেশি করতে পারেননি।

দক্ষিণ আফ্রিকার সেরা বোলার ইমরান তাহির। ১০ ওভারে ২৬ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট। ওয়াইন পারনেলও নিয়েছেন তিন উইকেট। তবে ১০ ওভারে তিনি খরচ করেছেন ৪৮ রান। ক্রিস মরিস ঝুড়িতে জমা করেছেন ২টি উইকেট। আর একটি উইকেট দখলে নিয়েছেন কাগিসো রাবাদা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




bangladesherkhela.com 2019
Developed by RKR BD